logo
বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৫

  বিনোদন ডেস্ক   ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

স্তব্ধ টালিগঞ্জ

তাপস পাল আর নেই

তাপস পাল আর নেই
তাপস পাল
না ফেরার দেশে চলে গেলেন ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পাল। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার ভোরে মুম্বাইয়ের জুহু হাসপাতালে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন তিনি। মৃতু্যকালে এই অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। তাপস পালের মৃতু্যতে চলচ্চিত্রাঙ্গনে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। এদিকে ভারতীয় একাধিক সংবাদ মাধ্যম জানাচ্ছে, মুম্বাই থেকে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৫টায় কলকাতায় নিয়ে আসা হয় তাপস পালের মরদেহ। আজ বুধবার কলকাতার কেওড়াতলায় রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে রবীন্দ্র সদনে রাখা হবে অভিনেতার দেহ।

১৯৫৮ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর হুগলির চন্দননগরে জন্মগ্রহণ করেন তাপস পাল। এরপর ১৯৮০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত পরিচালক তরুণ মজুমদারের 'দাদার কীর্তি' ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে মাত্র ২২ বছর বয়সে চলচ্চিত্র দুনিয়ায় পা রাখেন তাপস। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। 'গুরুদক্ষিণা', 'সাহেব', 'অনুরাগের ছোঁয়া', 'বলিদান' 'কড়ি দিয়ে কেনা'র মতো একের পর এক সুপারহিট ছবি ভক্তদের উপহার দিয়েছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা।

'সাহেব' ছবিতে অভিনয়ের সুবাদে ১৯৮১ সালে ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড ঘরে তোলেন তাপস পাল। শুধু বাংলা নয়, হিন্দি ছবিতেও অভিনয় করেছেন তাপস পাল। বলিউড অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিতের বিপরীতে 'অবোধ' ছবিতে দেখা গেছে তাকে। তার অভিনীত শেষ ছবি 'আটটা আটের বনগাঁ লোকাল' মুক্তি পায় ২০১২ সালে।

রাজনৈতিক জীবনে তিনি ছিলেন তৃণমূল নেতা। ২০০১ সালে চেতলা বিধানসভা থেকে বিধায়ক হন তিনি। তারপর ২০০৯ সালে কৃষ্ণনগর লোকসভা থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে তার কিছু বক্তব্যের জন্য নানা সমালোচনাতেও জড়িয়েছেন। চিটফান্ড কান্ডেও তার নাম জড়ায়। সিবিআই তাকে গ্রেপ্তার করে ভুবনেশ্বরে নিয়ে যায়। সেখানে বন্দি অবস্থাতেও ছিলেন তিনি। সেখানে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। ভর্তি হন হাসপাতালে। তারপর থেকেই নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। স্নায়ু রোগেও আক্রান্ত হন তিনি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে