logo
সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২২ জুলাই ২০১৯, ০০:০০  

ড্রাইভিং লাইসেন্সে ভ্যাট: বোঝার ওপর শাকের আঁটি

যানবাহন চালকদের নতুন লাইসেন্স ও নবায়ন ফি'র উপরে বর্তমানে শতকরা ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আদায় করা হচ্ছে। যা ২০১০-১১ অর্থবছর থেকে কার্যকর করা হয়েছে। এটা বোঝার উপরে শাকের আঁটি হিসেবে মনে করছে দরিদ্র পেশাদার যানবাহন চালকরা।

বর্তমানে সারা দেশে প্রায় সাড়ে ৩২ লাখ ড্রাইভিং লাইসেন্স রয়েছে। এরমধ্যে ১২ লাখ ৭০ হাজারই পেশাদার চালকদের। যারা গাড়ি চালিয়ে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে অর্থ উপার্জন করে সংসার চালান।

জানা গেছে, একজন পেশাদার গাড়ির চালককে নতুন লাইসেন্সের জন্য ১ হাজার ৬৭৯ টাকা দিতে হয়। এরমধ্যে লাইসেন্স ফি ১ হাজার ৪৬০ টাকা। বাকি ২১৯ টাকা ১৫ শতাংশ ভ্যাট হিসেবে অতিরিক্ত। একইভাবে নবায়ন করার জন্য জমা দিতে হয় ১ হাজার ৫৬৪ টাকা। এ ক্ষেত্রেও ১০ শতাংশ ভ্যাট হিসেবে অতিরিক্ত ২০৪ টাকা।

শুধু তাই নয়, অপেশাদার লাইসেন্স দশ বছর অন্তর নবায়ন করতে হয়। কিন্তু পেশাদার লাইসেন্স প্রতি ৫ বছর অন্তর নবায়ন করা বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিআরটিএর মিরপুর সার্কেল অফিসে লাইসেন্স নবায়ন করতে আসা গ্রিন লাইন পরিবহনের গাড়ির চালক সুব্রত মজুমদার বলেন, 'গাড়ি চালিয়ে সামান্য যে টাকা পান তা দিয়ে কোনো মতে সংসার চালান। এর মধ্যে প্রতি ৫ বছর পরে আবার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়নের জন্য ছুটতে হয় বিআরটিএর অফিসে। প্রতিবারই নবায়ন ফি'র উপরে ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হচ্ছে। সরকারের এ অমানবিক ভ্যাটের সাথে তো আবার বাড়তি খরচ আছে। অথচ অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের দশ বছর অন্তর নবায়ন করতে হয়। অথচ পেশাদার চালকদের ক্ষেত্রে ৫ বছর। এটি কোনোভাবেই মানবিক নয়।

ভ্যাট নিয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, একজন গাড়ি চালক পেটের দায় গাড়ি চালান। তার কাছে ড্রাইভিং লাইসেন্স বিলাসী পণ্য নয়। সরকারের ভ্যাট কারা নির্ধারণ করেন সেটা তার জানা নেই। তবে পেশাদার চালকদের লাইসেন্সের উপর এ অমানবিক ভ্যাট প্রত্যাহার করাটা সরকারের নৈতিক দায়িত্ব বলে মনে করেন। এছাড়া পেশাদার চালকদের লাইসেন্স অপেশাদার চালকদের মতো দশ বছর অন্তর নবায়ন করার নিয়ম চালু করার দাবি জানান তিনি।

এ ব্যাপারে অর্থনীতিবিদ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক ড. আরএন দেবনাথ যায়যায়দিনকে বলেন, 'এটা অমানবিক। পেশাদার চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স স্নো-পাউডারের মতো কোনো কসমেটিকস পণ্য নয়। জীবন জীবিকার তাগিদে দরিদ্র মানুষ গাড়ি চালিয়ে সংসার চালান। এরা ভ্যাটের আওতায় আসবে কেন? এটা বাদ দেয়া দরকার।'

\হ
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে