logo
শনিবার ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ৬ আশ্বিন ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২৬ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০  

সমালোচনার জবাবে রুমিন

‘প্লট চেয়েছি রাষ্ট্রের কাছে’

‘প্লট চেয়েছি রাষ্ট্রের কাছে’
রুমিন ফারহানা

একাদশ জাতীয় সংসদে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ায় দুই মাসের মধ্যে সরকারের কাছে ১০ কাঠার একটি পস্নট চেয়েছেন বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানা। তাতেই সংসদকে অবৈধ বলে আসা বিএনপির এই সংসদ সদস্যকে নিয়ে রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। কেউ বলছেন, নিজের ফ্ল্যাট থাকার বিষয়টি গোপন করে পস্নট চেয়েছেন। আবার কেউ বলছেন স্বঘোষিত অবৈধ সরকারের কাছে তার ব্যক্তি স্বার্থ হাসিলে উদগ্রিব হওয়া ঠিক হয়নি। অবশ্য রুমিন ফারহানার দাবি অনির্বাচিত সরকারের কাছে নয় রাষ্ট্রের কাছে পস্নট আবেদন করেছেন তিনি। সাংসদ ও বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সহ-সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা গত ৩ আগস্ট গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রীর বরাবর সংসদ সদস্যের প্যাডে ১০ কাঠা পস্নটের আবেদন করেন। আবেদনে রুমিন ফারহানা বলেছেন, ঢাকার পূর্বাচলে তার ১০ কাঠার একটি পস্নট প্রয়োজন। ঢাকায় তার কোনো জমি বা ফ্ল্যাট নেই। ওকালতির বাইরে তার কোনো পেশা বা ব্যবসা নেই। ১০ কাঠার পস্নট বরাদ্দ দেয়া হলে তিনি 'চিরকৃতজ্ঞ' থাকবেন বলেও আবেদনে উলেস্নখ করেন। পস্নটের আবেদনে তারা নামে কোনো ফ্ল্যাট না থাকার কথা বললেও নির্বাচনী হলফনামায় রুমিন জানিয়েছেন, মায়ের কাছ থেকে পাওয়া ১৮৫০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাট রয়েছে। এ বিষয়ে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেন, উনিসহ অনেকে আবেদন করেছেন। এ বিষয়ে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে। ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেছেন, একজন এমপি রাষ্ট্রীয়ভাবে পাঁচ বছর থাকার জন্য ন্যাম ভবনে একটি ফ্ল্যাট, একটা ট্যাক্স ফ্রি গাড়ি এবং রাজউকের একটা পস্নট পেয়ে থাকেন। আমিও জাতীয় সংসদের একজন এমপি। সে হিসেবে রাষ্ট্রের কাছে উলিস্নখিত সুবিধা পাওয়ার অধিকার রাখি। সে অনুযায়ী আমি রাষ্ট্রের কাছে পস্নটের জন্য আবেদন করেছি। তবে বর্তমান অনির্বাচিত সরকারের কাছে আবেদন করিনি। সংরক্ষিত আসনের বিএনপির একমাত্র এমপি আরও বলেন, শুধু আমি নই এই সংসদের আরও এমপিরা আবেদন করেছেন। কিন্তু তাদের নাম তো প্রকাশ করা হয়নি। এটা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ছাড়া প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি। আমার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন নম্বরও প্রকাশ করা হয়েছে। আমার নাম প্রকাশের একমাত্র কারণ হচ্ছে, আমি জাতীয় সংসদে সরকারের নেতিবাচক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে জোরালোভাবে বক্তব্য রাখি এবং আমি বিরোধী দলের এমপি। রুমিন বলেন, আমার নাম যেহেতু প্রকাশ করা হয়েছে তাহলে এমপিদের নামও প্রকাশ করা হোক। নিয়ম অনুযায়ী রাষ্ট্রের কাছে আমি পস্নট চেয়েছি তাতে এত হৈ চৈ কেন? আমি এখনো বলব, এ সরকার অনির্বাচিত সরকার। রুমিন আরও বলেন, সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবার এমপি না হয়েও অবৈধভাবে ট্যাক্স ফ্রি গাড়ি এনেছেন। আসলে মুহিত সাহেবের অবৈধ উপায়ে গাড়ি আনার বিষয়টি ধামাচাপা দিতেই আমার বৈধ আবেদন সামনে আনা হয়েছে। অথচ বেশকিছু দিন আগে আমার ফেসবুক আইডি হ্যাক হলেও নিউমার্কেট থানা পুলিশ আমার সাধারণ ডায়রি এখন পর্যন্ত নিচ্ছে না। এ বিষয়ে দল থেকে তাকে কিছু বলা হয়েছে কি-না তা জানতে চাইলে রুমিন ফারহানা বলেন, দল থেকে এখন পর্যন্ত তার কাছে কোনো বক্তব্য আসেনি। তবে বিএনপির একাধিক নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিষয়টি নিয়ে দল বিব্রত। এত দ্রম্নত তাদের ব্যক্তিস্বার্থ হাসিলে উদগ্রিব হওয়া ঠিক হয়নি। অবশ্য বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ হারুনুর রশিদ যায়যায়দিনকে বলেন, সংসদ সদস্য হিসেবে পস্নটের আবেদন করায় দোষের কিছু নেই। এজন্য দলের অনুমতিরও প্রয়োজন নেই। প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আটটি আসনে জয়লাভ করে। নানা নাটকীয়তার পর শেষ সময়ে এসে বিএনপির ছয় সাংসদের পাঁচজন শপথ নেন। আর আগে গণফোরামের দুই সাংসদ শপথ নেন। শপথ না নেয়ার বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। এরপর সেখানে নির্বাচনে বিএনপির জিএম সিরাজ নির্বাচিত হন। বিএনপির পক্ষ থেকে একমাত্র নারী সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেন রুমিন ফারহানা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে