logo
বুধবার, ২২ জানুয়ারি ২০২০, ৯ মাঘ ১৪২৭

  যাযাদি রিপোর্ট   ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০০:০০  

মেডিকেল রিপোর্ট পরিবর্তন করতে চাচ্ছে সরকার

অভিযোগ বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সবশেষ স্বাস্থ্য অবস্থা নিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) মেডিকেল বোর্ড যে রিপোর্ট তৈরি করেছে, তাতে পরিবর্তন করতে চাইছে সরকার, এমন অভিযোগ করেছেন তার আইনজীবীরা। এ কারণেই আদালতের আদেশ থাকা সত্ত্বেও মেডিকেল রিপোর্ট আদালতে উপস্থাপন করা হয়নি বলে মনে করেন বিএনপির আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা। এ সময় বক্তৃতা করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সভাপতি ও সাবেক বার সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন ও সুপ্রিম কোর্ট বারের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্ট তৈরি করা আছে। সেই রিপোর্টে পরিবর্তন আনতে চাইছে সরকার। এ কারণেই খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানিতে মেডিকেল বোর্ডের প্রতিবেদন দাখিল করেননি অ্যাটর্নি জেনারেল।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া জামিনের হকদার। তার জামিন আটকাতে সরকারি ষড়যন্ত্র হচ্ছে। এ ষড়যন্ত্র জনগণ মেনে নেবে না।

জয়নুল আবেদীন বলেন, আদালত আমাদের আর্জি আমলে নেননি, অ্যাটর্নি জেনারেলের কথা শুনেছেন। তিনি বলেন, তারা খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে আশাবাদী।

খন্দকার

মাহবুব হোসেন বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আইনজীবীর আর্জি আমলে নেয়নি আদালত। অ্যাটর্নি জেনারেলের কথার ওপর ভিত্তি করে আদেশ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, তারা এখনো বিশ্বাস করেন দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আদেশে খালেদা জিয়ার জামিন হবে।

আদালত প্রাঙ্গণে বিশৃঙ্খলা নিয়ে খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, এর জন্য অ্যাটর্নি জেনারেল দায়ী। তার কথা শুনে আদালতের একতরফা সিদ্ধান্তে যে পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছিল, তারা সিনিয়র আইনজীবীরা তা সামাল না দিলে পরিস্থিতি কোন দিকে যেত তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপক্ষের বাড়াবাড়িতে জুনিয়র আইনজীবীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। তারা আদালতের প্রতি সম্মান রেখে তাদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেছেন।

\হ************ ছাড় **************

\হ
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে