logo
সোমবার, ২০ জানুয়ারি ২০২০, ৭ মাঘ ১৪২৭

  যাযাদি ডেস্ক   ১৪ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

চট্টগ্রাম উপনির্বাচনে আ'লীগের প্রার্থী মোছলেম জয়ী

চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোছলেন উদ্দিন আহমদ ৮২ হাজার ২৪৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান পেয়েছেন ১৭ হাজার ৯৭৫ ভোট।

এদিকে সকালে ভোট গ্রহণের সময় একটি কেন্দ্রের বাইরে ককটেলবাজির ঘটনা ঘটেছে। কয়েকটি কেন্দ্রে ভোট দিতে বাধার অভিযোগ করেছেন বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান।

ভোটের 'সুষ্ঠু পরিবেশ নেই' অভিযোগ করে তিনি বলেছেন, 'বহিরাগতরা ভোটকেন্দ্রের আশপাশে অবস্থান নিয়ে ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বাধা দিচ্ছে। আমার এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।'

সকাল ৯টায় চট্টগ্রাম নগরী ও উপজেলার ১৭০টি কেন্দ্রের এক হাজার ১৯৬টি ভোটকক্ষে ইভিএমে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। সকালে শীত আর কুয়াশার মধ্যে কয়েকটি কেন্দ্রে ঘুরে দেখা যায় ভোটার উপস্থিতি ছিল তুলনামূলকভাবে কম।

ভোট শুরুর পরপরই বহদ্দারহাট মোড়ে এখলাসুর রহমান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার সিডিএ স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিয়ে বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান বলেন, 'ধানের শীষের এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে। ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ তো নেই।'

এই কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোছলেম উদ্দিন আহমদ বলেন, 'সুন্দর পরিবেশে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হচ্ছে। বিএনপির কাজই হলো অভিযোগ করা। ভোটাররা সুন্দরভাবে ভোট দিচ্ছে।'

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (পাঁচলাইশ জোন) দেবদূত মজুমদার বলেন, 'আবু সুফিয়ান প্রচুর কর্মী সমর্থক নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করলে হইচই শুরু হয়। তখন তাকে পুলিশ পাহারায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

চান্দগাঁও এনএমসি আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে একজনকে ভোট দিতে বাধা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের হাতাহাতিও

হয়েছে।

এ ছাড়া রাবেয়া বসরী ইনস্টিটিউট ও আল হুমাইয়া মহিলা মাদ্রাসা কেন্দ্র থেকে ধানের শীষের এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে বাধা দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন রাবেয়া বসরী কেন্দ্রের বিএনপি প্রার্থীর এজেন্ট সালাউদ্দিন সাহেদ।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) বিজয় বশাক বলেন, 'সামান্য অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। তবে তাতে ভোট গ্রহণে কোনো সমস্যা হয়নি। আমাদের কাছে বিচ্ছিন্ন দুই একটি অভিযোগ যা এসেছে আমরা সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নিচ্ছি।'

চট্টগ্রামের বোয়ালখালী উপজেলা, মহানগরীর চান্দগাঁও ও বায়েজিদের কিছু অংশ নিয়ে গঠিত চট্টগ্রাম-৮ আসনে এই উপ নির্বাচনে মোট ছয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। তবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোছলেম উদ্দিন আহমদের নৌকা এবং বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ানের ধানের শীষের মধ্যেই মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা ছিল।

বাকি চার প্রার্থী হলেন- বিএনএফের এস এম আবুল কালাম আজাদ (টেলিভিশন), ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের সৈয়দ মোহাম্মদ ফরিদ আহমদ (চেয়ার), ন্যাপের বাপন দাশগুপ্ত (কুঁড়েঘর) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ এমদাদুল হক (আপেল)।

বাংলাদেশ জাসদের নেতা মইন উদ্দিন খান বাদলের মৃতু্যতে আসনটি শূন্য হলে নির্বাচন কমিশন উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে