logo
রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১ ফাল্গুন ১৪২৬

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা   ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

যমুনার বুকে জেগে ওঠা চরে নৌচলাচল ব্যাহত

যমুনার বুকে জেগে ওঠা চরে নৌচলাচল ব্যাহত
সিরাজগঞ্জের যমুনা নদীর বুকে অসংখ্য চর ও ডুবোচর জেগে ওঠায় নৌচলাচল ব্যাহত হয়ে দুর্ভোগে পড়েন মাঝি ও যাত্রীরা -যাযাদি
পানি প্রবাহ কমে যাওয়ায় সিরাজগঞ্জের যমুনা নদীর বুকে অসংখ্য চর ও ডুবোচর জেগে উঠেছে। এতে চৌহালীর সঙ্গে এনায়েতপুরের নৌচলাচল বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। সেইসঙ্গে এ অঞ্চলের অর্ধলক্ষাধিক মানুষকে বঙ্গবন্ধু সেতু ও পাবনার বেড়া উপজেলা ঘুরে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে হচ্ছে। এ কারণে নৌকার মাঝিমালস্না ও যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কয়েক সপ্তাহ ধরে।

ভুক্তভোগীরা জানান, প্রায় দেড় মাস আগে যমুনার বুকে বিশাল চর ও ডুবোচর জেগে ওঠে। এতে নদীর বিভিন্ন চ্যানেলে নৌ-চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। ইতোমধ্যেই চৌহালীর সঙ্গে এনায়েতপুর থানার নৌ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এনায়েতপুর ঘাটের নৌকার মাঝি মামুন সরকার জানান, গত বছরের নভেম্বর মাসের প্রথম থেকে যমুনায় পানি কমতে শুরু করে জেগে উঠেছে অসংখ্য ছোট বড় চর ও ডুবোচর। বিশেষ করে দুই উপজেলার যোগাযোগে এই নৌপথের খাষইজারপাড়া থেকে রানজানপুর পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার এলাকাব্যাপী বিশাল চর জেগে উঠেছে। চৌহালী নৌঘাট থেকে জেলা সদরে যাতায়াতের মাধ্যম এনায়েতুর বেড়িবাঁধ ঘাটের নৌ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। কয়েক সপ্তাহ ধরে নৌযাত্রী ও পণ্যবোঝাই নৌযানগুলোকে যমুনার উত্তরে প্রায় ৩২ কিলোমিটার ঘুরে বঙ্গবন্ধু সেতু এবং দক্ষিণে প্রায় ৩০ কিলোমিটার ঘুরে পাবনার বেড়া উপজেলা হয়ে এনায়েতপুর যাতায়াত করতে হচ্ছে। এদিকে চৌহালী, সিরাজগঞ্জ, বেলকুচি, শাহজাদপুর ও কাজিপুর উপজেলার চরবাসীকে মাইলের পর মাইল হেঁটে যাতায়াত করতে হচ্ছে। এনায়েতপুর ঘাটের ইজারাদার ইউসুফ আলী বেপারীসহ অনেক যাত্রী বলেন, এ নৌকাঘাট থেকে চৌহালী যেতে বর্ষা মৌসুমে সময় লাগত মাত্র ১ ঘণ্টা। আর এখন লাগে প্রায় সাড়ে ৩ ঘণ্টা। এ দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পেতে স্থানীয় ঘাট ও নৌকা মালিকরা ব্যক্তিগত উদ্যোগে বাংলা ড্রেজার দিয়ে প্রায় আড়াই কিলোমিটার চর খনন করে একটি অগভীর সরু চ্যানেল চালুর চেষ্টা করেন। কিন্তু অর্থাভাবে চ্যানেলের কাজ বন্ধ রয়েছে। সরকারি উদ্যোগে চ্যানেলটি ড্রেজিং করা হলে এ অঞ্চলের মানুষের সহজ যোগাযোগের একমাত্র নৌপথটি সচল হবে।

এ বিষয়ে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান মওদুদ আহমেদ বলেন, খুব শিগগির ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে নৌপথটি সচল রাখার উদ্যোগ নেয়া হবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে