logo
বৃহস্পতিবার ২৩ মে, ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ১৬ মে ২০১৯, ০০:০০  

সংবাদ সংক্ষপে

রোগীর পেটে

১১৬টি পেরেক!

যাযাদি ডেস্ক

ভারতের রাজস্থানের কোটার বুন্দি সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা এক রোগীর পেট থেকে ১১৬টি লোহার পেরেক বের করেছেন। সেই সঙ্গে পেট থেকে আরও একটি লোহার তার ও লম্বা পেরেক বের করা হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই রোগীর নাম ভোলা শঙ্কর। তিনি পেশায় মালি। বেশ কয়েক দিন ধরে পেট ব্যথায় ভুগছিলেন। পরে হাসপাতালে আসেন চিকিৎসা নিতে। এক্স-রে ও সিটি স্ক্যানের পর তার পেটের ভেতর পেরেক, তার ও পেলেট ধরা পড়ে। তবে এতগুলো লোহা-লক্কড় পেটের ভেতর কীভাবে এলো, সে ব্যাপারে কিছুই জানেন না ভোলা শঙ্কর বা তার পরিবারের লোকজন। অস্ত্রোপচারের পর তিনি এখন সুস্থ আছেন। হাসপাতালের সার্জন অনিল সাইনি জানান, প্রায় দেড় ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে ভোলা শঙ্করের পেট থেকে বের করা অধিকাংশ পেরেকের দৈর্ঘ্য ৬ সেন্টিমিটার।

পুলিশের ঊর্ধ্বতন ১৩ কর্মকর্তা বদলি

যাযাদি রিপোর্ট

বাংলাদেশ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অ্যাডিশনাল এসপি) পদমর্যাদার ১১ জন ও সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পদমর্যাদার দুজন কর্মকর্তাকে নতুন ইউনিটে বদলি করা হয়েছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে তাদের বদলি করা হয়। সর্বশেষ ২৪ এপ্রিল এক প্রজ্ঞাপনে অ্যাডিশনাল এসপি পদমর্যাদার ১৮ জন কর্মকর্তাকে নতুন কর্মস্থলে বদলি করা হয়।

পাচার হওয়া থেকে

বাঁচল দুই শিশু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে শিশু পাচারকারীদের হাত থেকে রক্ষা পেল দুই শিশু। বুধবার সকালে উপজেলার মঙ্গলপৈতা গ্রামের মাঠে ছাগল খাওয়ানোর সময় এ ঘটনা ঘটে। তারা দুজনই স্থানীয় একটি মাদ্রাসার শিক্ষার্থী।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলপৈতা গ্রামের তাহাজ্জেল হোসেনের ছেলে মিলন হোসেন (৮) ও মনিরুল ইসলামের ছেলে রাজু হোসেন (৬) মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় বুধবার সকালে মাঠে ছাগলকে ঘাস খাওয়াতে নিয়ে যায়। এ সময় বস্তা হাতে দুই ব্যক্তি তাদেরকে বিস্কুট খাওয়ার প্রলোভন দেখায়। শিশুরা বিস্কুট খেতে অস্বীকৃতি জানালে অপরিচিত দুজন প্রথমে রাজুকে জোরপূর্বক বস্তায় ভরে ফেলে। এরপর মিলনকে হাত-পা বেঁধে বস্তায় ভরার চেষ্টা করে। এ সময় শিশু মিলনের চিৎকারে পার্শ্ববর্তী জমিতে কাজ করা কৃষকরা এগিয়ে এলে শিশু পাচারকারীরা তাদের ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

সড়কে ট্রাক উল্টে

চালকের মৃতু্য

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

বুধবার ভোরে শহরের অদূরে কামননগর-বকচরা বাইপাস সড়কে ট্রাক উল্টে চালকের মৃতু্য হয়েছে। নিহত ট্রাক চালকের নাম মফিজুল ইসলাম (৩৫)। তিনি শ্যামনগর উপজেলার আটুলিয়া ইউনিয়নের ভড়ভুড়িয়া গ্রামের মোহাম্মদ আলী গাইনের ছেলে।

নিহতের স্বজনরা জানান, মফিজুল কুষ্টিয়া থেকে পোলট্রি ফিড ভর্তি ট্রাকটি চালিয়ে সাতক্ষীরার শ্যামনগরে যাচ্ছিলেন। পথে খুব ক্লান্ত বোধ করায় তার হেলপার মামুনকে দিয়ে ট্রাকটি চালাচ্ছিলেন। এ সময় বকচরা মোড়ে পৌঁছলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকটি রাস্তার ধারে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান চালক মফিজুল।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে