logo
  • Wed, 14 Nov, 2018

  যাযাদি রিপোটর্   ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

ইলিশ কমিয়েছে মাছের দাম!

ইলিশ কমিয়েছে মাছের দাম!
বাজারে আনার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে ইলিশ -যাযাদি
পদ্মা-মেঘনায় জেলেদের জালে ধরা পড়ছে ঝঁাকেঝঁাকে রুপালি ইলিশ। এতে জেলেরা যেমন খুশি, একইভাবে খুশি ক্রেতারাও। কারণ নদীতে মাছ বেশি ধরা পড়ায় বাজারে পযার্প্ত ইলিশ মিলছে। আর বাজারে ইলিশের যোগান বেশি থাকায় দামও তুলনামূলক কম।

অন্যদিকে বাজারে ইলিশের ব্যাপক উপস্থিতির প্রভাব পড়েছে অন্য মাছে। ইলিশের দাম কম হওয়ায় অন্য মাছের দামও কমেছে কেজিপ্রতি ৩০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা পযর্ন্ত।

মঙ্গলবার রাজধানীর মালিবাগ, খিলগঁাও, মতিঝিল টি অ্যান্ড টি বাজার ও ফকিরাপুল বাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

এসব বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৫০০ থেকে ৬০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। যা দুইদিন আগে ৭৫০ থেকে ৯০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। ৭৫০ থেকে ৮০০ গ্রাম ইলিশ ৭০০ থেকে ৮৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হয়। এক থেকে সোয়া কেজির ওজনের ইলিশের জোড়া ২০০০ থেকে ২২০০ টাকা চাইছেন বিক্রেতা। আর ৩০০ থেকে ৩৫০ গ্রাম ওজনের ইলিশের কেজি চাওয়া হয় ৪০০ টাকা।

এসব বাজারে পাবদা মাছ প্রতিকেজি ৩৬০ থেকে ৫০০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা যায়। যা দুইদিন আগেও বিক্রি হয়েছে ৪৫০ থেকে ৭০০ টাকা কেজি পযর্ন্ত। শিং মাছ ৩০০ থেকে ৫৫০ টাকা প্রতিকেজি বিক্রি করতে দেখা যায়। শিং মাছ দুই দিন আগের তুলনায় কেজিতে কমেছে ১০০ থেকে ২০০ টাকা পযর্ন্ত। দাম কমেছে সব ধরনের চিংড়ির। এসব বাজারে প্রতিকেজি বাগদা বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৭০০ টাকার মধ্যে, হরিণা চিংড়ি ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, ছোট দেশি চিংড়ি ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা যায়।

অন্যদিকে রুই প্রতিকেজি চাওয়া হয় ২০০ থেকে ৩০০ টাকা, পাঙাশ ১২০ থেকে ১৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৩০ থেকে ১৬০ টাকা, কাচকি ২৮০ থেকে ৩৫০ টাকা, নলা মাছ ১৬০ থেকে ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে।

মাছের দাম তুলনামূলক কম হওয়ায় খুশি ক্রেতারা। আনোয়ারা বেগম নামে মালিবাগ বাজারের এক ক্রেতা বলেন, বাজারে এসে দাম শুনে খুব ভালো লাগছে। সব মাছের দাম কম চাওয়া হচ্ছে। ইলিশের দাম খুবই কম। তিনি বলেন, দাম কম হলে তাদের চাহিদাও থাকে। এখন বাজারে মাছের দাম ক্রেতার নাগালের মধ্যে, বছরের অন্য সময়েও এমন দাম থাকা দরকার।

ইলিশ মাছ বিক্রেতা আলী হোসেন বলেন, এখন পাইকারি বাজারে পযার্প্ত ইলিশ আছে, তাই দাম কম। তারা কম দামে এনে কম দামেই বিক্রি করছেন, ক্রেতাও ভালোই কিনছেন।

আরেক মাছ বিক্রেতা অনু বলেন, এখন বাজারে ইলিশের দাম কম হওয়ায় অন্য মাছের চাহিদা কম। তাই মাছের দাম তুলনামূলক কম। ইলিশের দাম বেড়ে গেলে অন্য মাছের দামও বেড়ে যাবে বলে জানান তিনি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে