logo
রোববার ১৬ জুন, ২০১৯, ২ আষাঢ় ১৪২৬

  যাযাদি রিপোটর্   ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

বস্ত্র প্রদশর্নীর উদ্বোধন

ভারতে ৪০০ কোটি ডলার যাওয়ার তথ্য ভুল: শ্রিংলা

ভারতে ৪০০ কোটি ডলার যাওয়ার তথ্য ভুল: শ্রিংলা
বাংলাদেশ থেকে প্রবাসী আয় বা রেমিট্যান্স হিসেবে বছরে ৪০০ কোটি ডলার ভারতে যাওয়ার তথ্যটি সঠিক নয় বলে দাবি করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হষর্ বধর্ন শ্রিংলা। ভারতের রেমিট্যান্সের চতুথর্ বড় উৎস বাংলাদেশ নয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বুধবার রাজধানীর আন্তজাির্তক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) বস্ত্রখাতের একটি আন্তজাির্তক প্রদশর্নীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনার এ দাবি করেন। দেশের ব্যবসায়ীদের শীষর্ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনের এক বক্তব্যের ভুল ভাঙাতে গিয়ে হষর্বধর্ন শ্রিংলা প্রবাসী আয় নিয়ে কথা বলেন।

এর আগে শফিউল ইসলাম বাংলাদেশের অথৈর্নতিক উন্নয়ন ও ভারতের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পকর্ নিয়ে কথা বলতে গিয়ে বলেন, ‘ভারতের প্রবাসী আয়ের চতুথর্ বড় উৎস বাংলাদেশ। এটা নিয়ে আমরা গবর্ বোধ করি।’

শফিউল ইসলামের এই বক্তব্যের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন হষর্বধর্ন শ্রিংলা। তিনি বলেন, ‘আমি রেকডর্ রাখার জন্য এফবিসিসিআই সভাপতির বক্তব্যটির আংশিক সংশোধনী দিতে চাই। বাংলাদেশ যে ভারতের রেমিট্যান্সের চতুথর্ উৎস, এটা প্রকাশ করেছিল পিউ রিসাচর্। তাদের ওয়েবসাইটে সাইবার আক্রমণের মাধ্যমে এ তথ্য উঠেছিল, যা পুরোপুরি ভুল। সংবাদটি মিথ্যা।’ তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে তথ্যাদি আমরা এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে আদানপ্রদান করতে পারি। এ দেশে ভারতীয় নাগরিকদের একটি ছোট দল কাজ করে। এটা অবিশ্বাস্য যে তাদের পক্ষে ৪০০ কোটি ডলারের প্রবাসী আয় পাঠানো সম্ভব।’

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে পিউ রিসাচের্র বরাত দিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় বাংলাদেশকে ভারতের রেমিট্যান্স আয়ের পঞ্চম উৎস বলে উল্লেখ করা হয়। এতে বাংলাদেশ থেকে ভারত বছরে ৪০৮ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স পায় বলে উল্লেখ করা হয়। গত ২ জুলাই আরেকটি পত্রিকায় বাংলাদেশ থেকে ভারত এক হাজার কোটি ডলার আয় করে বলে উল্লেখ করা হয়। যদিও সেখানে কোনো প্রতিষ্ঠানের বরাত দেয়া হয়নি।

পিউ রিসাচর্ গত ২৩ জানুয়ারি বিশ্বব্যাংকের তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করে একটি হালনাগাদ ইনফোগ্রাফিকস প্রকাশ করে, যেখানে বাংলাদেশ থেকে ২০১৬ সালে ২০০ কোটি ডলার বা সাড়ে ১৬ হাজার কোটি টাকার রেমিট্যান্স বিদেশে যায় বলে উল্লেখ করা হয়। এর মধ্যে ভারতে যায় ১১ কোটি ৪০ লাখ ডলার। এ ক্ষেত্রে ভারতের ওপরে আছে চীন, ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া। পিউ রিসাচের্র একই প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারত থেকে বাংলাদেশে ২০১৬ সালে ৪০৬ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে।

আইসিসিবিতে বস্ত্রখাতের প্রদশর্নীর আয়োজন করেছে সেমস গেøাবাল। এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মিজার্ আজম, বিজিএমইএর সহসভাপতি মোহাম্মদ নাসির প্রমুখ বক্তব্য দেন। আগামী শনিবার পযর্ন্ত প্রদশর্নীটি চলবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে