logo
বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২২ মে ২০১৯, ০০:০০  

প্রেস ক্লাবের সামনে আবারও বালিশ নিয়ে বিক্ষোভ

প্রেস ক্লাবের সামনে আবারও বালিশ নিয়ে বিক্ষোভ
জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মঙ্গলবার বালিশ হাতে মানববন্ধন করে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন নামের একটি সংগঠন -যাযাদি

পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদু্যৎ প্রকল্পে 'দুর্নীতির মহোৎসব' চলছে অভিযোগ করে এর বিচার দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকায় কর্মসূচি পালিত হয়েছে। 'দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন' নামের একটি সংগঠনের উদ্যোগে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বালিশ হাতে মানববন্ধন হয়। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি কেএম রকিবুল ইসলাম রিপন বলেন, রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পে লুটপাটের যে মহোৎসব চলছে তার প্রতিবাদে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো আবারও বিক্ষোভ করছি। আমরা মনে করি, বাংলাদেশ একটা 'মগের মুলুকে' পরিণত হয়েছে। তার প্রমাণ হলো, রূপপুর পারমাণবিক বিদু্যৎ প্রকল্পে লুটপাট। 'আমরা মনে করি, শাসক দলের নেতারা এই দুর্নীতির সাথে জড়িত। সারা দেশে পত্রপত্রিকা মিডিয়া যখন এই দুর্নীতির খবর প্রকাশ করছে, এরপরও এই সরকারের টনক নড়ছে না কেন?' অবিলম্বে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি। পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদু্যৎকেন্দ্র প্রকল্প এলাকায় কর্মকর্তা-কর্মচারীদের থাকার জন্য নির্মাণাধীন গ্রিন সিটি আবাসন পলস্নীর নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কেনা ও তা ভবনে তোলায় অনিয়মে নিয়ে গত ১৬ মে একটি দৈনিক পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়, প্রকল্পের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের থাকার জন্য গ্রিন সিটি আবাসন পলস্নীতে ২০ তলা ১১টি ও ১৬ তলা আটটি ভবন হচ্ছে। এরই মধ্যে ২০ তলা আটটি ও ১৬ তলা একটি ভবন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। ২০ তলা ভবনের প্রতিটি ফ্ল্যাটের জন্য প্রতিটি বালিশ কিনতে খরচ দেখানো হয়েছে পাঁচ হাজার ৯৫৭ টাকা। আর ভবনে বালিশ ওঠাতে খরচ দেখানো হয়েছে ৭৬০ টাকা। এরকম রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশন, খাট, বিছানা, বৈদু্যতিক চুলা, বৈদু্যতিক কেটলি, রুম পরিষ্কারের মেশিন, ইলেকট্রিক আয়রন, মাইক্রোওয়েভ ইত্যাদি কেনাকাটা ও ভবনে তুলতে অস্বাভাবিক খরচ দেখানো হয়েছে বলে ওই সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আলোড়ন তোলার পর অভিযোগ খতিয়ে দেখতে দুটি তদন্ত কমিটি করেছে গৃহায়ন ও গণপূর্ণ মন্ত্রণালয়। মানববন্ধনে বাংলাদেশ গণঐক্যের সভাপতি আরমান হোসেন পলাশ বলেন, 'দুদক সরকারবিরোধী নেতাকর্মীর পেছনে অকারণে ছোটাছুটি করলেও দেশের প্রতিটা সেক্টরে যখন দুর্নীতি মহামারি আকার ধারণ করেছে, তখন তারা নীরব ভূমিকা পালন করছে। আমি মনে করি, দুদকের হাত-পা বর্তমান শাসক দলের কাছে বাঁধা রয়েছে। এই দুদক কি করছে? আজকে জাতি জানতে চায়। মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে সংগঠনের সদস্য মোক্তার আকন্দ, ফারুক হোসেন, লায়ন মিয়া মো. আনোয়ার বক্তব্য রাখেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে