logo
মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

  যাযাদি রিপোর্ট   ২০ জুন ২০১৯, ০০:০০  

কেউ আঘাত দিলে কষ্ট পাই, একলা একলা কাঁদি: পরিকল্পনামন্ত্রী

কেউ আঘাত দিলে কষ্ট পাই, একলা একলা কাঁদি: পরিকল্পনামন্ত্রী
রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলনকক্ষে বুধবার আয়োজিত কর্মশালায় বক্তৃতা করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান -যাযাদি

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের কাজে গতি আনার বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, 'আমার আচরণে আপনারা দুঃখ পাবেন না। আমি কাউকে আঘাত দিতেও চাই না, আঘাত পেতেও চাই না। কেউ আঘাত দিলে কষ্ট পাই, আমি একলা একলা কাঁদি। এরপরও আঘাত মাঝে মাঝে চলে আসে। আপনারা পিস্নজ ভালো করে কাজ করেন। আর আমি যে কয়েকটা দিন আছি, দয়া করে আমাকে সাহায্য করেন। কী সাহায্য? গতিটা বাড়ানোর চেষ্টা করেন। আর কিছুই না।' বুধবার সকালে রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলনকক্ষে এক কর্মশালায় যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। ডিজিটাল ডাটাবেজ সিস্টেম ও আর্কাইভ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এনইসি-একনেক ও সমন্বয় অনুবিভাগের সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ (প্রথম সংশোধিত) প্রকল্পের পক্ষ থেকে 'স্ট্রাক্‌চার অব দ্য ফিজিবিলিটি স্টাডি ফর ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট' শীর্ষক কর্মশালাটি আয়োজন করা হয়। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, 'আমি কোনো জেদ করব না। আপনারা যে ধাঁচে কাজ করছেন, এটা অত্যন্ত টাইমার। বহুদিন যাবত এটা চলে আসছে। এখানে হাত দিয়ে আঙুল পুড়াতে চাই না।' তিনি আরও বলেন, 'আপনার কাছে কাগজটা আসলে, আমার কাছে কাগজটা আসলে যেন তাড়াতাড়ি আমরা ছেড়ে দেই। না বলার অধিকার অবশ্যই আপনার আছে। কিন্তু হঁ্যা-ও বলি না, না-ও বলি না- ধরে নিয়ে বসে থাকি, এটা গ্রহণযোগ্য নয়। আপনি নোট দিয়ে দেন। কাগজটা নিয়ে বসে থাকা উচিৎ না।' কর্মশালার বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, 'এই মুহূর্তে আমরা সবাই বেতনভুক্ত কর্মচারী। এটাই আমাদের প্রথম ও প্রধান কাজ। এ বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আমি আঁচ করতে পারছি। কারণ, প্রায়ই দেখা যায়, ফিজিবিলিটি স্টাডি ছাড়াই প্রকল্প চলে আসে। আসলেও পরে খোঁড়া ফিজিবিলিটি, ভালোভাবে করে না। এ সম্পর্কে আগে আমাদের ধারণা পরিষ্কার হতে হবে, পরে তাদের পরিষ্কার হতে হবে।' পরিকল্পনামন্ত্রীর প্রত্যাশা, ফিজিবিলিটি স্টাডির জন্য প্রো-ফরম স্ট্রাকচার বিদ্যমান যেটা আছে, সেটাই সংস্কার করবেন কিংবা নতুন করে একটা বানাবেন। কর্মশালায় পরিকল্পনা বিভাগের সচিব মো. নূরুল আমিন, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব আবুল মনসুর মো. ফয়জুলস্নাহসহ পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ডিজিটাল ডাটাবেজ সিস্টেম ও আর্কাইভ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এনইসি-একনেক ও সমন্বয় অনুবিভাগের সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ (প্রথম সংশোধিত) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ই-ফাইলিং ব্যবস্থা প্রবর্তন ও ডিজিটাল একনেক কার্যকর করা, এনইসি-একনেক সভায় প্রদত্ত অনুশাসনগুলো এবং এর বাস্তবায়ন অগ্রগতি নিয়মিতভাবে পরিবীক্ষণ করার জন্য একটি ডিজিটাল ডাটাবেজ সিস্টেম তৈরি ও অনুমোদিত প্রকল্পগুলো সংরক্ষণের জন্য আর্কাইভ স্থাপন, প্রকল্প প্রক্রিয়াকরণ-সংক্রান্ত পরিপত্র ও গাইডলাইন-সংক্রান্ত সর্বশেষ তথ্যাদি সম্পর্কে সব মন্ত্রণালয়/বিভাগ ও সংস্থার কর্মকর্তাদের অবহিতকরণ, জাতীয় সংষদ থেকে প্রেরিত প্রশ্নগুলোর দ্রম্নত উত্তর প্রদানের লক্ষ্যে একটি এমআইএস স্থাপন করা এবং প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি করা ইত্যাদি কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে