logo
  • Thu, 20 Sep, 2018

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

বিশ্বকাপ রানাসর্আপদের এমন হার!

বিশ্বকাপ রানাসর্আপদের এমন হার!
লুকা মদ্রিচের এই চেহারাই বলে দিচ্ছে সব। মঙ্গলবার উয়েফা নেশন্স লিগের ম্যাচে তার দল ক্রোয়েশিয়া ৬-০ গোলে বিধস্ত হয়েছে স্পেনের কাছে Ñওয়েবসাইট
এটাই কি সেই ক্রোয়েশিয়া, মাস দুয়েক আগে রাশিয়া বিশ্বকাপে রানারআপ হয়ে যারা ইতিহাস গড়েছিল? গোলরক্ষক ড্যানিয়েল সুবাসিচ আর স্ট্রাইকার মারিও মানজুকিচ ছাড়া সবাই তো ছিলেন। ইউরোপসেরা লুকা মদ্রিচ, ইভান রাকিতিচ, ভিদা, ব্রোজোভিচ- সবাই। কিন্তু মঙ্গলবার এলচেতে স্পেনের বিপক্ষে তাদের খুঁজেই পাওয়া গেল না। উয়েফা নেশন্স লিগের ম্যাচে মদ্রিচরা বিধ্বস্ত হয়েছে ৬-০ ব্যবধানে, যা কিনা ক্রোয়েশিয়ার ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে বড় পরাজয়।

নিজেদের ডেরায় বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টদের অতিথির মতোই বরণ করে নেয় স্পেন। জাতীয় দলের জাসিের্ত শততম ম্যাচ উপলক্ষে রাকিতিচের হাতে তুলে দেয়া হয় বিশেষ জাসির্। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে রামোস-ইসকোদের কাছে একটুও ছাড় পাননি তারা। গুনে গুনে ছয়টি গোল হজম করতে হয়েছে। অতীতে এমন লজ্জায় কখনো পড়তে হয়নি ক্রোয়েশিয়াকে। ১৯৪১ এবং ১৯৪২ সালে তাদের ৫-১ ব্যবধানে বিধ্বস্ত করেছিল জামাির্ন। স্বাধীনতা লাভের পর ২০০৯ সালে ইংল্যান্ডের কাছেও একই ব্যবধানে হেরেছিল ক্রোয়াটরা।

এদিন স্পেনের গোলউৎসবের শুরুটা করেন সউল নিগেজ। ২৪ মিনিটের মাথায় দারুণ এক হেডে দলকে এগিয়ে দেন এই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ স্ট্রাইকার। ৩৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে ফেলেন রিয়াল তারকা মাকোর্ আসেনসিও। মিনিট দুয়েক বাদে পাওয়া স্পেনের তৃতীয় গোলটিতেও তার অবদান। আসেনসিওর শট ক্রসবারে লেগে ক্রোয়েশিয়ার গোলরক্ষক কালিনিচের পিঠ ছুঁয়ে জড়িয়ে যায় জালে। তাতে প্রথমাধের্ই নিধাির্রত হয়ে যায় ম্যাচের ভাগ্য।

স্পেন দ্বিতীয়াধের্ও সমান তিনটি গোল উপহার দিয়েছে ক্রোয়েশিয়াকে। রদ্রিগো, অধিনায়ক রামোস আর ইসকোর কল্যাণে। একটা সময় ৭০ মিনিটেই ব্যবধানটা হয়ে গিয়েছিল ৬-০! ভাগ্যিস শেষ সময়টুকু নিজেদের জাল অক্ষত রাখতে পেরেছিলেন ভিদা-ব্রজোভিচরা। তা না হলে আরও বড় লজ্জা সঙ্গী হত তাদের। রীতিমতো অসহায় আত্মসমপর্ন করেছে ক্রোয়েশিয়া। অথচ রাশিয়া বিশ্বকাপে হার না মানা মানসিকতার জন্য সুখ্যাতি পেয়েছিল দলটি। বলা যায়, কঠোর পরিশ্রমই ক্রোয়াটদের ফাইনালে নিয়ে গিয়েছিল।

কিন্তু স্পেনের বিপক্ষে মদ্রিচরা উল্টো চরিত্র দেখিয়েছেন। দুই গোল হজম করার পরই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন তারা। ক্রোয়েশিয়ার বড় হারের পেছনে মানসিক বিপযর্য়কেই বড় করে দেখছেন দলীয় কোচ জলাতকো দালিচ, ‘স্পেনকে অভিনন্দন জানানোই আমাদের জন্য ভালো হবে। এতগুলো গোল হজম করা মোটেও সহজ কিছু নয়। তবে আমরা বসে বসে কঁাদতে পারি না। আমাদের চেষ্টা করতে হবে। কিন্তু প্রথম ও দ্বিতীয় গোলের পর আমরা মানসিক শক্তি হারিয়ে ফেলতে থাকলাম, অপরদিকে আরও স্পেন মোমেন্টাম পেল, আরও সহজে আমাদের জালে বল জড়াতে থাকল।’

লুইস এনরিকের অধীনে প্রথম ম্যাচেই বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্ট ইংল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়েছিল স্পেন। এবার রানারআপ ক্রোয়েশিয়াকে বিধ্বস্ত করে অন্য দলগুলোকে একটা আগাম বাতার্ই দিয়ে রাখল লা রোজারা। এদিকে, নেশন্স লিগের অপর ম্যাচে জিতেছে বেলজিয়াম। রোমেলু লুকাকুর জোড়া গোলে আইসল্যান্ডকে ৩-০ ব্যবধানে উড়িয়ে দিয়েছে তারা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে