logo
  • Sun, 23 Sep, 2018

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০০:০০  

বাংলাদেশেরও সম্ভাবনা দেখছেন জহির আব্বাস

পাকিস্তান আর ভারতকে বাদ দিলে শ্রীলংকা আছে। যারা তাদের সুযোগ নিতে চাইবে। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশেরও এই জায়গায় সেরা সুযোগ রয়েছে। তারা দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছে এবং এই আসরে তারাও অনেক ভালো করতে পারে

বাংলাদেশেরও সম্ভাবনা দেখছেন জহির আব্বাস
ওয়ানডে ক্রিকেটে গত কয়েকবছর দারুণ উন্নতি করেছে বাংলাদেশ। ওই সময়ে টাইগারদের সাফল্যের পাল্লাটাও বেশ ভারী। যা চোখ এড়ায়নি পাকিস্তানের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান জহির আব্বাসের। তাই এবারের এশিয়া কাপে মাশরাফি বিন মতুর্জার দলকে হিসাবের মধ্যে রেখেছেন। যদিও টুনাের্মন্টে ফেভারিটের তালিকায় তিনি রেখেছেন দুই চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী পাকিস্তান আর ভারতকে।

১৪তম এশিয়া কাপের খেলা আগামীকাল শনিবার থেকে মাঠে গড়াবে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে ছয় জাতির এই টুনাের্মন্টে ফেভারিট হিসেবে উঠে আসছে পাকিস্তানের নাম। শ্রীলংকা কোচ চন্ডিকা হাতুরুসিংহের পর এবার পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক জহির আব্বাসও নিজ দেশকে অন্যদের থেকে এগিয়ে রাখলেন। তার দাবি, এবারকার টুনাের্মন্টে শিরোপা জয়ের সম্ভাবনা সরফরাজ আহমেদের দলেরই বেশি। এরপরই ভারতের কথা বলেছেন আব্বাস। একদিনের ক্রিকেটে বরাবরই শক্তিশালী দল তারা। এশিয়া কাপেও সবাির্ধকবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ম্যান ইন বøুরা।

ভারত-পাকিস্তানের তুলনায় কিছুটা পিছিয়ে থাকবে শ্রীলংকা। সময়টা খুব ভালো কাটছে না হাতুরুর শিষ্যদের। ক’দিন আগে ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৩-২ ব্যবধানে সিরিজ খুইয়েছে তারা। কাজেই লংকানদের খুব একটা আমলে নিচ্ছেন না আব্বাস। তবে তৃতীয় দল হিসেবে তিনি শিরোপা দৌড়ে বাংলাদেশকে রাখছেন। ৭৮ টেস্ট ও ৬২ ওয়ানডে খেলা আব্বাসের চোখে টাইগাররা কোনো অংশে কম শক্তিধর নয়! সম্প্রতি বিদেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে আর টি২০ সিরিজ জিতেছে স্টিভ রোডসের শিষ্যরা। অন্য দলগুলোকে তাদের সমীহ জানাতেই হবে।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের সম্ভাবনা প্রসঙ্গে আব্বাস বলেছেন, ‘পাকিস্তান আর ভারতকে বাদ দিলে শ্রীলংকা আছে। যারা তাদের সুযোগ নিতে চাইবে। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশেরও এই জায়গায় সেরা সুযোগ রয়েছে। তারা দল হিসেবে অনেক উন্নতি করেছে এবং এই আসরে তারাও অনেক ভালো করতে পারে।’

এবারের এশিয়া কাপের আসর বসবে সংযুক্ত আরব আমিরাতে। যা আবার পাকিস্তানের হোম ভেন্যুও। যে কারণে সেখানে সরফরাজ আহমেদের দল ভালো করবে। তবে মূল লড়াইটা ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে হবে বলে মনে করেন জহির আব্বাস। গ্রæপপবের্ই দেখা হয়ে যাচ্ছে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বী দুই দেশের। ১৯ সেপ্টেম্বরের ওই ম্যাচের দিকে লক্ষ্য ক্রিকেটপ্রেমীর মতো চোখ আইসিসি’র সাবেক এই প্রেসিডেন্টেরও, ‘এই ম্যাচটিই (ভারত বনাম পাকিস্তান) টুনাের্মন্টে সবচেয়ে গুরুত্বপূণর্ ম্যাচ হতে যাচ্ছে। হাইভোল্টেজ এই ম্যাচটি দেখতে সবাই উদগ্রীব। আমার মনে হয় এই দুই দলের মধ্যেই শ্রেষ্ঠত্বের আসল লড়াইটা হবে।’

রঙিন পোশাকের ক্রিকেটে কোনো দলকেই হালকাভাবে দেখার উপায় নেই এখন। তাই আসন্ন এশিয়া কাপে সব দলকেই একে অন্যের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে সতকর্ থাকার পরামশর্ আব্বাসের, ‘আমার মনে হয় না হংকং পাকিস্তানকে কোনো বিপদে ফেলতে পারবে। তারপরও ছোট দলগুলোর বিপক্ষে অবশ্যই বড় দলগুলোর সতকর্ থাকতে হবে। ’

এদিকে নিজেদের নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ছাড়াই এশিয়া কাপে অংশ নিচ্ছে আাসরের বতর্মান চ্যাম্পিয়ন ভারত। তারপরও ভারতীয় দলে বেশ ক’জন ভালো মানের ক্রিকেটার আছেন, যারা ব্যাট হাতে ব্যবধান গড়ে দিতে পারেন ম্যাচে। এই প্রসঙ্গে আব্বাস বলেছেন, ‘বিরাট কোহলি ভারতের সবচেয়ে বড় ম্যাচ-উইনার। আমার মতে এই টুনাের্মন্টে ভারত তার অভাব খুব ভালোভাবে অনুভব করবে। তবে তাদের দলে বেশ কয়েকজন ভালো মানের ওয়ানডে খেলোয়াড় আছে। তাই এই টুনাের্মন্টে ভারতও ভালো করতে পারে।’
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
অাইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

উপরে