logo
শুক্রবার ২১ জুন, ২০১৯, ৭ আষাঢ় ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০  

দশর্ক টানতে ম্যাচের সময় পরিবতর্ন!

দশর্ক টানতে ম্যাচের সময় পরিবতর্ন!
দশর্ক-খরায় ভুগছে এবারের বিপিএল। বেশিরভাগ ম্যাচেই খঁা খঁা করছে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের গ্যালারি। মাঠে দশর্ক টানতে ম্যাচ শুরুর সময়ে তাই পরিবতর্ন আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে বিসিবি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, শনিবার থেকে এক ঘণ্টা পিছিয়ে দুপুরের ম্যাচ শুরু হবে দেড়টায়, আর সন্ধ্যার ম্যাচ সাড়ে ছয়টায়। তবে শুক্রবারের ম্যাচগুলো আগের সময় অনুযায়ীই হবে। প্রথম ম্যাচ দুপুর দুইটায়, পরেরটি সন্ধ্যা সাতটায়।

বিপিএল গভনির্ং কাউন্সিলের সদস্য, টেকনিক্যাল কমিটির প্রধান এবং বিসিবি পরিচালক জালাল ইউনুস জানালেন, মাঠে দশর্ক বেশি টানতেই সময় পেছানো হয়েছে, ‘প্রথম কয়েকদিনে মাঠে প্রত্যাশিত দশর্ক হয়নি। তাই সময় পেছানো হলো। দেড়টায় খেলা শুরু হলে অন্তত অনেক ছাত্র-ছাত্রী হয়তো ক্লাস শেষ করে মাঠে আসতে পারবে। সন্ধ্যার ম্যাচটিও সাড়ে ৬টায় হওয়ায় চাকরিজীবী অনেকে মাঠে আসতে পারবেন। আমরা তো নিশ্চয়তা দিতে পারব না যে দশর্ক আসবেই। তবে চেষ্টা করছি তাদের মাঠে আসার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি করার।’

বিপিএলকে দেশের সবচেয়ে বড় ঘরোয়া আসর তো বটেই তকর্সাপেক্ষে বিশ্বের দ্বিতীয় সেরা ফ্র্যাঞ্চাইজি টুনাের্মন্টও বলা হয়। দেশি-বিদেশি তারকা ক্রিকেটারের উপস্থিতির দিক দিয়ে আইপিএলের কাছাকাছি থাকলেও দশর্ক উপস্থিতিতে অনেকটাই পিছিয়ে বিপিএল। প্রতিবারই আসরটি যাত্রা করে নতুন আশা দেখিয়ে। কিন্তু বেশিরভাগ সময়ই আশাটা অপূণর্ই থেকে যায়। প্রযুক্তি ব্যবহারে সীমাবদ্ধতা কিংবা লো স্কোরিং উইকেটের জন্য দশর্ক সমাগম কম হওয়াটা প্রতিবারের নিয়মিত ঘটনা।

এক্ষেত্রে মিরপুরের খেলাগুলোতে দশর্ক খরা বেশি চোখে পড়ে। সংবাদ সম্মেলনে এনিয়ে কথা বলতে হয়েছে ক্রিকেটারদেরও। বুধবারের ম্যাচ শেষে যেমন বললেন চিটাগং ভাইকিংসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। তার মতে মোবাইল ফোন কিংবা টিভি চ্যানেলে খেলা দেখার সহজলভ্যতার জন্যই মাঠে আসায় দশর্কদের ‘অনীহা’। তবে পযার্প্ত দশর্ক না হওয়ার পেছনে আরও একটি উল্লেখযোগ্য কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে খেলা শুরুর সময়টাকে। বিষয়টি মাথায় রেখেই একঘণ্টা পিছিয়ে দেয়া হয়েছে ম্যাচ। এখন এর সুফল গ্যালারিতে দেখা যায় কিনা।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে