logo
মঙ্গলবার ১৬ জুলাই, ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ২০ জুন ২০১৯, ০০:০০  

বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ ও বৃষ্টির ছোঁয়া

মৃদুল মিনহাজ

অনেকটা কাকতালীয় হলেও একটা ব্যাপার আছে বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের মধ্যে। বিশেষত গত চার বছরে আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টেই এই দুই দলের মুখোমুখি প্রকৃতি সহজভাবে নিতে পারেনি। বারবারই বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বৃষ্টি।

গত বিশ্বকাপ আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি- দুটোতেই দুইবার বাংলাদেশ আর অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ বৃষ্টির হানায় পরিত্যক্ত হতে হয়েছে। এবার তো খেলা প্রায় অর্ধেক হওয়ার পর বাতিল করতে হয়েছে। ২০১৫ সালের ২১ ফেব্রম্নয়ারি অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে বিশ্বকাপের ম্যাচ বৃষ্টির বাধায় পরিত্যক্ত হয়। সেই ম্যাচে বৃষ্টি এমনই রুদ্রমূর্তি ধারণ করেছিল যে টসও হতে পারেনি। ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডেই অনুষ্ঠিত আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সর্বশেষ আসরে আবারও দুই দলের মুখোমুখি দেখায় বাদ সাধে বৃষ্টি। এবার অবশ্য খেলা প্রায় অর্ধেক হওয়ার পর বৃষ্টির হানায় বাতিল হয়।

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুই অস্ট্রেলিয়ান বোলার মিচেল স্টার্ক (৪/২৯) আর অ্যাডাম জাম্পার (২/১৩) সাঁড়াশি বোলিং আক্রমণে বাংলাদেশ অলআউট হয় মাত্র ১৮২ রানে। তামিম ইকবাল একাই ১১৪ বলে ৯৫ রানের সাহসী এক ইনিংস খেলেন। সাকিব করেছিলেন ২৯ রান। সাকিব আর তামিম ছাড়া কেউই ওই ম্যাচে দাঁড়াতে পারেননি প্রতিপক্ষের বোলারদের সামনে।

১৮৩ রানের ছোট টার্গেট সামনে রেখে অস্ট্রেলিয়া ভালোই এগোচ্ছিল। ১৬ ওভারে এক উইকেটে ৮৩ রান করার পর নামে বৃষ্টি। আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী অন্তত ২০ ওভার খেলা হলেই ডিএল ম্যাথডে ফলাফল নিষ্পত্তি করা হয়। কিন্তু তা না হওয়ায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয় ম্যাচ।

ওই ম্যাচ বাতিল হওয়ায় ভাগ হওয়া পয়েন্টের সুবিধায় সেমিফাইনাল খেলার পথ সুগম হয় টাইগারদের। অস্ট্রেলিয়ার সাথে ম্যাচের এক পয়েন্ট পরে রীতিমতো 'বোনাস' পয়েন্ট হিসেবে পরিগণিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার সাথে পয়েন্ট ভাগ আর কিউইদের হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্নপূরণ করে বাংলাদেশ।

দুই বছর পর সেই ইংল্যান্ডেই বিশ্বকাপের আসরে আজ আবার মুখোমুখি বাংলাদেশ। অবাক করা বিষয় হচ্ছে এই ম্যাচ ঘিরেও শঙ্কা রয়েছে বৃষ্টি হানার। তবে কি আবারও পয়েন্ট ভাগাভাগি? আবারও পরিত্যক্ত হতে পারে ম্যাচ?

এ প্রশ্নের উত্তরে নটিংহ্যামের আবহাওয়া পূর্বাভাস বলছে, গত দুইদিনের মতো আজও নটিংহ্যামের আকাশে মেঘ থাকবে। তবে একদম মেঘের ঘনঘটা থাকার সম্ভাবনা কম। সারা দিনে ভারী ও টানা বৃষ্টির সম্ভাবনার কথাও বলা নেই।

পূর্বাভাসে বৃষ্টির কথা বলা যে নেই, তাও কিন্তু নয়। ৩০% বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা উলেস্নখ আছে আবহাওয়া প্রতিবেদনে। যার অর্থ ম্যাচ পন্ড করার মতো বৃষ্টি না হলেও ঝামেলা কিছু করার হুমকিও আছে। অতি নাটকীয় পরিবর্তন না ঘটলে ব্রিস্টলের মতো নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজেও বৃষ্টিতে খেলা বিঘ্ন ঘটার সম্ভাবনা কম।

শঙ্কা থাকলেও দুই দেশের ক্রিকেটারসহ কেউই চাইবেন না সেই ধারাবাহিকতার পুনরাবৃত্তি।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে