logo
বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

ঘরে ফিরে সংবর্ধনায় সিক্ত যুবারা

বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দলের অধিনায়ক আকবর আলী রংপুরে, মাহমুদুল হাসান জয় ও শামীম হোসেন চাঁদপুরে, তানজিদ হাসান তামিম ও তৌহিদ হৃদয় বগুড়ায়, শরিফুল ইসলাম পঞ্চগড়ে এবং অভিষেক দাস নড়াইলে পৌঁছলে তাদের প্রথমে উষ্ণ অভ্যর্থনায় বরণ করে নেয়া হয় এবং পরে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

ঘরে ফিরে সংবর্ধনায় সিক্ত যুবারা
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দলের দুই সদস্য মাহমুদুল ও শামীম চাঁদপুরে পৌঁছলে তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয় (বামে), বগুড়ায় তামিম ও হৃদয়কে সংবর্ধনা দেয়া হয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে (মাঝে), নড়াইলে পৌঁছলে অভিষেককে নিয়ে মোটর শোভাযাত্রা করা হয় -যাযাদি
ইতিহাস গড়ে বিশ্বকাপের ট্রফি নিয়ে দেশে ফিরেছেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক আকবর আলী। গত ৯ ফেব্রম্নয়ারি দক্ষিণ আফ্রিকায় যুব ক্রিকেট বিশ্বকাপে ভারতকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে বাংলাদেশ। বুধবার বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দল ঢাকায় পৌঁছালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে তাদের বীরোচিত সংবর্ধনা দেয়া হয়। এরপর বৃহস্পতিবার দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার মা-বাবার কাছে চলে যান। নিজ জেলায় পৌঁছলে তাদের জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উষ্ণ সংবর্ধনা দেয়া হয়।

বাংলাদেশ যুব ক্রিকেট দলের অধিনায়ক আকবর আলী রংপুরে, মাহমুদুল হাসান জয় ও শামীম হোসেন চাঁদপুরে, তানজিদ হাসান তামিম ও তৌহিদ হৃদয় বগুড়ায়, যুব দলের পেসার শরিফুল ইসলামকে পঞ্চগড়ে এবং অভিষেক দাস নড়াইলে পৌঁছালে তাদের প্রথমে উষ্ণ অভ্যর্থনায় বরণ করে নেয়া হয় এবং পরে সংবর্ধনা দেয়া হয়। রংপুর, চাঁদপুর, বগুড়া, পঞ্চগড় ও নড়াইল জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে সংবর্ধনার বিষয়টি উঠে এসেছে।

রংপুরে পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে অনূর্ধ্ব-১৯ অধিনায়ক আকবর আলীকে বীরোচিত সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রংপুর জেলা প্রশাসন ও ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে তাকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়। এর আগে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা থেকে বিমানে করে সৈয়দপুর আসেন। স্থানীয় প্রশাসনসহ আপামর জনগণ আকবরকে সেখানে ফুল ছিটিয়ে বরণ করে নেন। সংবর্ধনা মঞ্চে উঠেই আকবর আলী বলেন, 'আপনাদের সমর্থনের কারণে বিশ্ব জয় করেছি। আরও সমর্থন পেলে অনেক দূর এগিয়ে যাব।'

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. মোস্তাফিজার রহমান, জেলা প্রশাসক আসিব আহসান ও রংপুর ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আনোয়ারুল ইসলাম, আকবরের বাবা ও দুই ভাইসহ অন্যরা।

চাঁদপুরবাসীর উচ্ছ্বাস আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন দুই যুবা টাইগার মাহমুদুল হাসান জয় ও শামিম হোসেন। ভক্ত, সমর্থক ও ক্রিকেটপ্রেমী মানুষ উষ্ণ অভ্যর্থনায় বরণ করে নেয় বিশ্বকাপজয়ী দলের দুই সদস্যকে। একাধিক সংবর্ধনা আর মিষ্টি বিতরণের মাধ্যমে দুই বীরকে ঘিরে উৎসবে মেতে উঠে চাঁদপুরবাসী।

নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে শামিম হোসেন ও মাহমুদুল হাসান জয় বলেন, সকল কিছুর জন্য আলস্নাহর নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। দেশবাসীর দোয়া আমাদের সাথে ছিল বলে আমরা এত ভালো করতে পেরেছি। বিশ্বকাপ জয়ের ব্যাপারে তারা বলেন, 'আমরা অনেক দিন যাবত এক সাথে খেলে আসছিলাম। বিশ্বকাপেও আমরা অনেক আত্মবিশ্বাসী ছিলাম ভালো কিছু করার ব্যাপারে। দেশবাসীর প্রতি আমাদের চাওয়া, আপনারা আমাদের জন্য দোয়া করবেন ভবিষ্যতেও যেন আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি।'

বগুড়ার সাতমাথায় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী দলের ক্রিকেটার তানজিদ হাসান তামিম ও তৌহিদ হৃদয়কে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে বগুড়ার বনানী মোড়ে পৌঁছার পর তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে মোটর শোভাযাত্রার মাধ্যমে সাতমাথায় নবনির্মিত মুজিব মঞ্চে নেয়া হয়। সেখানে লাখো মানুষের মাঝে তামিম-হৃদয়কে মিষ্টিমুখ করান শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামের ভেনু্য ম্যানেজার জামিলুর রহমান জামিল।

তিনি বলেন, বগুড়ার এ দুই কৃতী সন্তানকে জেলা ক্রীড়া সংস্থার উদ্যোগে বড় করে সংবর্ধনা দেয়া হবে। এরইমধ্যে সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এ সময় জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তা ও ক্রিকেট বোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা শেষে তানজিদ হাসান তামিমকে সোনাতলা উপজেলার ফাজিলপুর ও তৌহিদ হৃদয়কে গাবতলী উপজেলার নাংলু পশ্চিমপাড়ায় নিজেদের গ্রামে নেয়া হয়।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী বাংলাদেশ দলের অন্যতম বাহাতি পেসার শরিফুল ইসলামকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নিয়েছে তার গ্রামের বাড়ি পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জের দন্ডপাল ইউনিয়নের মৌমারীর মানুষ। বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা থেকে মৌমারী বাজারে পৌঁছলে এলাকাবাসী ব্যান্ডপার্টির বাদ্যসহ তাকে তার গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে এলাকার মানুষ ও শিক্ষকরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। অনেকে তাকে মিষ্টি খাইয়ে বরণ করেন। যুব বিশ্বকাপ জয়ের পর থেকেই গ্রামের বাড়িতে উৎসবের আমেজ চলছে। এর আগে বিমানে করে ঢাকা থেকে সৈয়দপুরে আসেন শরিফুল। সেখান থেকে বাবা মা ও এলাকার মানুষ তাকে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসেন।

সংবর্ধনায় শরিফুল বলেন, 'বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন ও এলাকাবাসীর দোয়া ও ভালোবাসায় এত দূর এসেছি। ভবিষ্যতে জাতীয় দলে খেলতে চাই। ভালো ক্রিকেট খেলে এলাকা ও দেশকে এগিয়ে নিতে চাই।

আগামী ১৮ ফেব্রম্নয়ারি দেবীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শরিফুলকে সংবর্ধনা দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী ক্রিকেটার অভিষেক দাসকে বরণ করে নিলো নড়াইলবাসী। বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে নভোএয়ারের এক ফ্লাইটে যশোর বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান তিনি। বিমানবন্দরে বাবা অসিত দাস, মা অরুণা দাসসহ পরিবারের লোকজন অভিষেককে মালা পরিয়ে বরণ করে। তারপর গাড়িতে করে যাত্রা করে নড়াইলের উদ্দেশে।

অভিষেককে বরণ করতে নড়াইল শহর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে নড়াইল-যশোর সড়কের গাবতলা এলাকায় হাজির হয় শতাধিক মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাস ও প্রাইভেটকার নিয়ে আত্মীয়-স্বজন-বন্ধু বান্ধবসহ ক্রিকেট ভক্তরা। পরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা সহকারে নড়াইল শহরে প্রবেশ করে অভিষেক। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মাশরাফি বিন মর্তুজার বাড়িতে যায়।

অভিষেক বলেন, 'আপনারা আমার জন্য আশীর্বাদ করবেন, আমি যেন এর থেকে ভালো কিছু অর্জন করতে পারি, বাংলাদেশকে ভালো কিছু উপহার দিতে পারি সে চেষ্টা করব।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে