logo
সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

মাশরাফিদের এবার ওয়ানডে মিশন

আমাদের এখনো ওয়ানডে অনুশীলন শুরু হয়নি। তারপরও আমরা চেষ্টা করব সিরিজ জেতার। যদি হোয়াইটওয়াশ করতে পারি আরও ভালো। বাংলাদেশ দল যেভাবে খেলছে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করাটাই উচিত। না হলে আমাদের ব্যর্থতা থাকবে -আল আমিন

মাশরাফিদের এবার ওয়ানডে মিশন
মাশরাফি-তামিমদের সামনে এখন ওয়ানডে লড়াই। বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা লড়াইয়ে নামছেন সিলেটের মাঠে -ফাইল ফটো
দীর্ঘদিন পরে টেস্টে জয়ের স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সাড়ে তিন দিনে ইনিংস ও ১০৬ রানের ব্যবধানে জিতেছে মুমিনুলরা। এবার টাইগারদের সামনে ওয়ানডে মিশন। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিলেটে যাবে টাইগাররা। ওয়ানডে ফরম্যাটেই তুলনামূলক ভালো খেলে বাংলাদেশ। এর সঙ্গে আবার টেস্ট জয়ের আত্মবিশ্বাস।

সিরিজ খেলতে বৃহস্পতিবার সিলেট যাচ্ছে দুই দল। তবে একই সময়ে যাচ্ছে না বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। ভিন্ন দুই ফ্লাইটে ভিন্ন সময়েই যাবে তারা। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার ফ্লাইটে প্রথমে যাবে জিম্বাবুয়ে। পরে সন্ধ্যা ৬টার ফ্লাইটে রওনা হবে বাংলাদেশ দল। যার মানে দাঁড়ায় ওয়ানডে সিরিজের আগে ঢাকায় কোনো অনুশীলন পর্ব নেই দুই দলের। টানা চার দিন খেলার পর বুধবার ছুটি। বৃহস্পতিবার সিলেট পৌঁছে শুক্র-শনিবার অনুশীলন করবে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে।

ভারত-পাকিস্তানের কাছে ভরাডুবির পর ঘরের মাঠে জয়ে সন্তুষ্টি মুমিনুলদের। পারফরম্যান্সটাও হয়েছে ভালো। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং- তিন বিভাগেই দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। মুমিনুল মনে করছেন ওয়ানডেতে সবকয়টি ম্যাচই জেতা উচিত বাংলাদেশের।

একমাত্র টেস্টে ছেলেদের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুও। তিনি বলেন, 'সবকিছুই ভালো হয়েছে। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং ও ক্যাচিংয়ে আমি সন্তুষ্ট। উইকেটটাও ছিল আমাদের উপযোগী। ঠিক স্পিন ফ্রেন্ডলি নয়, মোটামুটি স্পোর্টিং পিচ দেশের মাটিতে আমাদের দলের সঙ্গে মানানসই। সে চিন্তায়ই শেরেবাংলায় বরাবরের স্পিন ফ্রেন্ডলি পিচ বাদ দিয়ে এবার তুলনামূলক সহজ ও ব্যাটিং সহায়ক উইকেটে খেলা হয়েছে। সেটা আমাদের টিম পারফরম্যান্স ভালো হতেও সহায়ক উপাদান হিসেবে কাজ করেছে।'

প্রধান নির্বাচকের কথায় পরিষ্কার আভাস, সিলেটে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজেও হয়তো শেরেবাংলার টেস্ট উইকেটের মতোই উইকেট দেখা যাবে। পুণ্যভূমি সিলেটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগামী ১, ৩ ও ৬ মার্চ হবে সিরিজের তিন ওয়ানডে।

রঙিন পোশাকে সফরকারীদের হোয়াইটওয়াশ করার কথা ভাবছেন জাতীয় দলের পেসার আল-আমিন হোসেন।

বুধবার আল আমিন বলেন, 'টেস্টে সবাই যেভাবে পারফর্ম করেছে, চার দিনে খেলা শেষ হয়েছে। আমাদের এখনো ওয়ানডে অনুশীলন শুরু হয়নি। তারপরও আমরা চেষ্টা করব সিরিজ জেতার। যদি হোয়াইটওয়াশ করতে পারি আরও ভালো। বাংলাদেশ দল যেভাবে খেলছে জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করাটাই উচিত। না হলে আমাদের ব্যর্থতা থাকবে।'

বিশ্বকাপের পর থেকে ওয়ানডে ক্রিকেটে ছন্দে নেই বাংলাদেশ। গত বছর জুলাইয়ে শেষদিকে শ্রীলংকা সফরে গিয়ে হোয়াইটওয়াশ (৩-০) হয়ে ফেরে দল। এ বছর টি২০ সংস্করণে ভারতের বিপক্ষে একটি জয় ছাড়া নেই কোনো সাফল্য। টেস্টে যাচ্ছিল চরম দুঃসময়। ইনিংস ব্যবধানে টানা হারের তিক্ততা কিছুটা কাটিয়েছে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়েকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়ে। তবে নিকটঅতীতের এত এত ব্যর্থতার ভার জিম্বাবুয়েকে ৩-০তে হারালেই নেমে যাবে- এমনটা মনে করেন না আল-আমিন। দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলে নিয়মিত হওয়া এ পেসার মনে করেন ভাবমূর্তি ফেরাতে জিততে হবে আরও আরও ম্যাচ।

'জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করলে আমাদের গস্নানি মুছে যাবে এমন কোনো ব্যাপার না। আমাদের জিততে হবে, ওদের হারাতে হবে। ওরাও তো এখানে জিততে এসেছে। ওরা তো হারতে আসেনি। শেষ কয়েকটা সিরিজ আমরা বাজে করেছি। এটা ভালো করতে পারলে ভালো হবে।'

'আমরা হয়তোবা কয়েকটা সিরিজ ধরে খুব ভালো খেলতে পারছি না। আমরা যেভাবে সবাই টেস্ট ক্রিকেট খেলেছি এবং ওয়ানডে যে দলটা ভারতের সাথে আমরা টি২০তে ভালো খেলেছি হয়তোবা জিততে পারিনি। তো সেই হিসােব আমরা যদি হোয়াইটওয়াশ করতে পারি খুব ভালো হবে; সিরিজটা তো জিততেই হবে।'

ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পর আর আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হয়নি মাশরাফি বিন মর্তুজার। চোটে পড়ায় যেতে পারেননি শ্রীলংকা সফরে। জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়েই ফিরছেন অধিনায়ক। অধিনায়ক হিসেবে এটিই হতে পারে মাশরাফির শেষ সিরিজ। ওয়ানডে ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক জিম্বাবুয়ে সিরিজে থাকায় বাড়তি উৎসাহ-উদ্দীপনা অনুভব করছেন আল-আমিন, 'উনি তো ওয়ানডে সেরা অধিনায়ক এবং একজন পারফরমার হয়তোবা মাঝখানে সিরিজ ছিল না, আবার এসেছে। সামনে থেকে খুব ভালো লিড করে এবং সামনে থেকে এগিয়ে নিয়ে যায়। উনার সাথে খেলাটাও আনন্দ ও গর্বের ব্যাপার। উনি অধিনায়ক হিসেবে থাকবেন কি না সেটা ক্রিকেট বোর্ডের সিদ্ধান্ত। তবে উনার সাথে খেলাটা আনন্দের।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে