logo
সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১৬ চৈত্র ১৪২৬

  ক্রীড়া ডেস্ক   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ

নাপোলির সঙ্গে স্বস্তির ড্র মেসিদের

ফরাসি ফরোয়ার্ড অঁতোয়ান গ্রিজমানের নৈপুণ্যে হারের লজ্জা না পেলেও নাপোলির মাঠ থেকে ড্র নিয়ে ফিরেছে সেতিয়েনের শিষ্যরা

নাপোলির সঙ্গে স্বস্তির ড্র মেসিদের
D‡qdv P¨vw¤úqÝ wj‡M bv‡cvwji wec‡ÿ g¨v‡P g½jevi †Ljv †kl nIqvi `yB wgwbU Av‡M A‡bKUv gv_v Mig K‡i jvj KvW© †`‡Lb wf`vj, Zv gvb‡Z cvi‡Qb bv †gwm| wb‡RI †`‡L‡Qb njy` KvW©| `kR‡bi `‡j cwiYZ nIqvi ci †gwm I mZx_© †L‡jvqvoiv ÑI‡qemvBU

প্রতিপক্ষের মাঠে এমনিতেই মিশন বেশ কঠিন। তারওপর গোল পোস্টের সামনে প্রাচীর তুলে দাঁড়িয়েছিল নাপোলি। বারবারই সেই প্রাচীর ভাঙার ব্যর্থ চেষ্টা করে গেলেন লিওনেল মেসিরা। আরেকটু হলে তো হারের তিক্ত স্বাদ নিয়েই ফিরতে হতো। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর ম্যাচটিতে প্রথমে গোল খেয়ে হারের লজ্জা পেতে যাচ্ছিল বার্সেলোনা। তবে ফরাসি ফরোয়ার্ড অঁতোয়ান গ্রিজমানের নৈপুণ্যে হারের লজ্জা না পেলেও নাপোলির মাঠ থেকে ড্র নিয়ে ফিরেছে সেতিয়েনের শিষ্যরা। ঘরের মাঠ সান পাওলোতে খেলার প্রথমার্ধে এগিয়ে গিয়েছিল নাপোলি। দ্বিতীয়ার্ধে আতোয়ান গ্রিজম্যানের গোলে সমতায় ফেরে বার্সেলোনা। নাপোলির স্তাদিও সান পাওলোয় মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। প্রথমার্ধে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন ড্রিস মের্টেন্স। দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে সমতা ফেরান বার্সেলোনার গ্রিজমান। কিন্তু ম্যাচটিতে প্রায় পুরোটা সময়ে রক্ষণ ধরে রেখে খেলেছে নাপোলি। প্রতিপক্ষের মাঠে গোল করার সুবিধা নিয়ে কোয়ার্টারফাইনালের পথে অনেকটাই এগিয়ে রইল লা লিগা চ্যাম্পিয়নরা। দল দুটির ফিরতি লেগের ম্যাচ গোলশূন্য ড্র হলেও শেষ আটের টিকিট পাবে বার্সেলোনাই। ম্যাচ শুরুর ৩০তম মিনিটে এগিয়ে যায় ইতালিয়ান ক্লাব নাপোলি। সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে ডান পায়ের অসাধারণ দ্রম্নতগতির এক শটে বার্সেলোনা গোলরক্ষক টের স্টেগানকে পরাস্ত করেন মার্টিনস। তাতে নাপোলির হয়ে সর্বোচ্চ ১২১টি গোলের রেকর্ড স্পর্শ করলেন বেলজিয়ান এই ফরোয়ার্ড। প্রথমার্ধে হতাশ করা বার্সেলোনাকে দ্বিতীয়ার্ধে আর আটকে রাখতে পারেনি নাপোলি। ম্যাচের ৫৭ মিনিটে সমতায় ফেরে সেতিয়েনের দল। পর্তুগিজ রাইটব্যাক নেলসন সেমেদোর পাসে বল পেয়ে ডি-বক্সের মাঝামাঝি থেকে ডান পায়ের শটে বল জালে জড়ান গ্রিজমান। দ্বিতীয়ার্ধে রক্ষণকে আরও আগলে রেখে খেলতে থাকে নাপোলি। যার ফলে বার্সেলোনার খেলোয়াড়রা বেশ কিছু সুযোগ পেলেও কাজে লাগাতে পারেনি। এমনকি লিওনেল মেসিকে কোনো সুযোগই দেয়নি নাপোলির ইস্পাতকঠিন ডিফেন্স। সমতায় ফেরার পাঁচ মিনিটের মাথায় নেপোলি দুটি জোরালো আক্রমণ করে। তবে বার্সার আন্দ্রে টের স্টেগেন দারুণভাবে তা প্রতিহত করেন। এর কয়েক মিনিট পরে ঘটে আরেকটি ঘটনা। গোলমুখের সামনে মেসিকে আটকাতে গিয়ে তার সঙ্গে সংঘর্ষে আঘাত পান নাপোলির গোলকিপার ওসপিনার। মেসিকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়। মেসি ছাড়াও এদিন বার্সার আক্রমণভাগের বাকি দুই খেলোয়াড়ও দেখেছেন হলুদ কার্ড। ম্যাচের শেষদিকে দশজনের দলে পরিণত হয় বার্সেলোনা। সবচেয়ে বড় ধাক্কা আসে আর্তুরো ভিদালের দুটি হলুদ কার্ডে। স্বাগতিক দলের স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ফাবিয়ান রুইসকে বাজেভাবে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়া হন বার্সেলোনার অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার আর্তুরো ভিদাল। তাতে দ্বিতীয় লেগে বার্সার হয়ে খেলতে পারবেন না তিনি। ফিরতি লিগের লড়াইয়ে দল দুটি বার্সেলোনার নু্য ক্যাম্পের মাঠে নামবে ১৮ মার্চ। এদিকে রাতের আরেক ম্যাচে ৩-০ গোলে চেলসিকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে এক পা দিয়ে রাখল বায়ার্ন মিউনিখ। মঙ্গলাবার রাতে রবার্ট লেভানদোভস্কির নৈপুণ্যে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে দুর্দান্ত জয় পেয়েছে জার্মান চ্যাম্পিয়নরা। তিন গোলেই অবদান রাখেন পোল্যান্ডের এই স্ট্রাইকার। যদিও গোলরক্ষকের দৃঢ়তায় প্রথমার্ধে জাল অক্ষত রাখে চেলসি। দ্বিতীয়ার্ধে আর পারেনি তারা। শেষ পর্যন্ত ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের দলকে তাদের মাঠে উড়িয়ে দিল বায়ার্ন মিউনিখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে