logo
শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৫

  ক্রীড়া প্রতিবেদক   ২৬ মার্চ ২০২০, ০০:০০  

করোনা মোকাবিলা

বেতনের অর্ধেক দিচ্ছেন টাইগাররা

বেতনের অর্ধেক দিচ্ছেন টাইগাররা
সারাবিশ্বের মতো বাংলাদেশেও মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। এর মধ্যেই এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বুধবার পর্যন্ত দেশে মারা গেছেন মোট ৫ জন। তাই দেশের এ দুঃসময়ে মানবতার ডাকে সাড়া দিলেন দেশের শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটাররা। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলেন মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবালরা। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ ক্রিকেটারদের সঙ্গে কিছুদিন আগে শেষ হওয়া জিম্বাবুয়ে সিরিজে সুযোগ পাওয়া আরও ১০ ক্রিকেটারসহ মোট ২৭ জন ক্রিকেটার নিজেদের এক মাসের বেতনের অর্ধেক দান করছেন সরকারি তহবিলে। সবার বেতনের অঙ্ক দাঁড়ায় এক মাসে ৬০ লাখ টাকার বেশি। দানকৃত এ অঙ্ক ৩০ লাখ টাকার একটু বেশি।

জানা গেছে, পুরো ব্যাপারটাই তত্ত্বাবধান করেছেন তামিম ইকবাল। সতীর্থ ক্রিকেটাররাও নতুন অধিনায়কের ডাকে সাড়া দিয়েছেন। বিসিবির সঙ্গে চুক্তিতে সর্বোচ্চ বেতন পাচ্ছেন তামিম ইকবাল। তার অ্যাকাউন্টে জমা হয় সাড়ে ৬ লাখ টাকা। তিনি দান করছেন তিন লাখ ২৫ হাজার টাকা। এরপরই আছেন মুশফিকুর রহিম। তিনি দেবেন তার মাসিক বেতনের অর্ধেক ৩ লাখ ১০ হাজার টাকা। পাশাপাশি মাশরাফি বিন মুর্তজা দিয়েছেন ২ লাখ ২৫ হাজার টাকা। তিনি বেতন পেতেন ৪ লাখ ৫০ হাজার। টি২০ অধিনায়ক মাহমুদউলস্নাহও বেতনের অর্ধেক ২ লাখ ১৫ হাজার টাকা তহবিলে দিয়েছেন করেছেন। তামিম ও মাহমুদউলস্নাহ ছাড়া টেস্টের অধিনায়ক মুমিনুল হক বেতনের অর্ধেক ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা তহবিলে দিয়ে সহায়তা করেছেন।

এছাড়া মানবতার ডাকে সাড়া দিয়েছেন লিটন কুমার দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ মিঠুন, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহি, এবাদত হোসেন, সৌম্য সরকার, মুস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, আফিফ হোসেন, নাঈম শেখ, শফিউল ইসলাম, আল-আমিন হোসেন, মেহেদী হাসান, হাসান মাহমুদ, সাঈফ হাসান, ইয়াসির আলি চৌধুরী, তাসকিন আহমেদ, নাসুম আহমেদ ও আমিনুল ইসলাম বিপস্নব।

কীভাবে এই তহবিল গঠন করা হচ্ছে, তার বিস্তারিত তামিম ইকবাল নিজের ফেসুবকে পোস্টে জানিয়েছেন, 'করোনাভাইরাসের ছোবলে গোটা বিশ্বই আজ বিপর্যস্ত। বাংলাদেশেও প্রকোপ বেড়ে চলেছে। আমরা ক্রিকেটারেরাও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানাভাবে চেষ্টা করছি সবাইকে সতর্ক ও সচেতন করার। তবে আমরা মনে করছি, শুধু সচেতন করাই যথেষ্ট নয়, এই দুর্যোগের সময় আমাদের আরও কিছু করার আছে।'

তহবিল গঠনের ব্যাপারে তামিম বলেছেন, 'এই সময় যার যার জায়গা থেকে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম, 'করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই যতটা ব্যাপক, এই অর্থ হয়তো খুব বড় অঙ্ক নয়। তবে বিন্দু বিন্দু জল মিলেই হয়ে ওঠে মহাসাগর। আমরা সবাই যদি নিজেদের জায়গা থেকে চেষ্টা করি, যত ছোট অবদানই হোক, সবাই মিলে সেটিই বড় হয়ে উঠবে। চারপাশের সবার সমালোচনায় মেতে না থেকে আমরা যদি নিজেরা দায়িত্ব নেই ও নিজেদের সাধ্যমতো অবদান রাখি, তাহলেই করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে আমাদের জয় সম্ভব। সবাই ঘরে থাকুন, নিরাপদ থাকুন। নিজে ভালো থাকুন, দেশকে ভালো রাখুন।'

মুশফিকুর রহিম তার ফেসবুকে এ বিষয়ে লিখেছেন, 'করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে যার যার জায়গা থেকে। সেটির অংশ হিসেবে আমরা ক্রিকেটাররা একটা উদ্যোগ নিতে যাচ্ছি, যেটি হয়তো অনুপ্রাণিত করতে পারে আপনাদেরও। আমরা এই মাসের বেতনের ৫০ শতাংশ দিয়ে একটা তহবিল গঠন করেছি। এই তহবিল ব্যয় হবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণে আক্রান্ত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত ও সাধারণ মানুষ যাদের গৃহবন্দী থাকা অবস্থায় জীবন চালিয়ে নিতে অনেক কষ্ট হয়।'

'তহবিলে জমা পড়েছে প্রায় ৩০ লাখ টাকার মতো। কর কেটে থাকবে ২৬ লাখ টাকা। করোনার বিরুদ্ধে জিততে হলে আমাদের এই উদ্যোগ হয়তো যথেষ্ট নয়। কিন্তু যাদের সামর্থ্য আছে সবাই যদি এক সঙ্গে এগিয়ে আসেন কিংবা ১০জনও যদিও এগিয়ে আসেন, এই লড়াইয়ে আমরা অনেক এগিয়ে যাব। হ্যাঁ, এরই মধ্যে করোনা মোকাবিলায় অনেকে এগিয়ে এসেছেন। তাদের অবশ্যই সাধুবাদ জানাই। কিন্তু বৃহৎ পরিসরে যদি আরও অনেকে এগিয়ে আসে, তাহলে আমরা এই লড়াইয়ে জিততে পারব ইনশাআলস্নাহ। সেই সহায়তা হতে পারে ১০০, ৫০০০ কিংবা ১ লাখ টাকা দিয়ে। টাকা দিয়ে না হোক হতে পারে দুস্থ মানুষকে খাবার কিনে দিয়ে। আসুন পুরো দেশকে আমরা একটা পরিবার ভেবে চিন্তা করি এবং এই বিপদে সবাই সবাইকে সহায়তা করি। আলস্নাহ আমাদের নিশ্চয়ই রক্ষা করবেন।'

সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি ক্রিকেটারদের এমন উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানিয়ে ফেসবুকে লিখেছেন, 'ধন্যবাদ তিন অধিনায়ক। মুমিনুল-মাহমুদউলস্নাহ ও তামিম। দুর্দান্ত কাজ বাংলাদশ ক্রিকেট দল। বিশেষ ধন্যবাদ খান সাহেবকে।'
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে