logo
সোমবার ২২ জুলাই, ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

  অনলাইন ডেস্ক    ০৪ জুলাই ২০১৯, ০০:০০  

কাঙ্ক্ষিত মুনাফার পরও পুঁজিবাজারে ব্যাংক খাতের দরপতন

যাযাদি রিপোর্ট

চলতি বছরের প্রথমার্ধে (জানুয়ারি-জুন) অধিকাংশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা বেড়েছে। কিন্তু ধারাবাহিকভাবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোর অধিকাংশ শেয়ারের দরপতন হচ্ছে। বুধবারও এই ধারা অব্যাহত ছিল। দর কমার প্রভাবে ব্যাংকিং খাতের শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের লোকসানে পড়তে হচ্ছে।

ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ব্যাংক খাতের ৫০ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর কমেছে। ৩০টি ব্যাংক লেনদেনে অংশ নিয়েছে। ব্যাংকগুলোর মধ্যে ৬টির বা ২০ শতাংশের শেয়ার দর বেড়েছে এবং ১৫টির বা ৫০ শতাংশের শেয়ার দর কমেছে এবং শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৯টির বা ৩০ শতাংশ ব্যাংকের।

ধারাবাহিক দরপতন বিষয়ে ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (ডিবিএ) প্রেসিডেন্ট মো. শাকিল রিজভী বলেছেন, ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা বেড়েছে তা ঠিক আছে। তবে সঞ্চিতি সংরক্ষণ ও কর প্রদানের শেষে নিট মুনাফা কত থাকবে তা দেখার বিষয়। তাই নিট মুনাফা না জেনে বিনিয়োগকারীদের উদ্বেগ থেকেই যাচ্ছে। তাছাড়া শেয়ার বিক্রিসহ নানা কারণও রয়েছে। এসব কারণেই অধিকাংশ ব্যাংকের শেয়ারে দরপতন হয়েছে।

দরপতনের শীর্ষে রয়েছে ব্র্যাক ব্যাংক। ব্যাংকটির দর কমেছে ১ দশমিক ১০ টাকা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দশমিক ৮০ টাকা কমেছে ডাচ-বাংলা ব্যাংকের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ দশমিক ৬০ টাকা কমেছে ইস্টার্ন ব্যাংকের। এছাড়া রূপালী ব্যাংকের ০ দশমিক ৫০ টাকা, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ০ দশমিক ৩০ টাকা, শাহজালাল ইসলামী, পূবালী, ওয়ান, ইসলামী, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ও আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ০ দশমিক ২০ টাকা করে এবং ন্যাশনাল, প্রিমিয়ার, প্রাইম ও ট্রাস্ট ব্যাংকের শেয়ার দর ০ দশমিক ১০ টাকা করে কমেছে।

শেয়ার দর বৃদ্ধিও তালিকায় শীর্ষে রয়েছে সিটি ব্যাংক। ব্যাংকটির দর বৃদ্ধি পেয়েছে ০ দশমিক ৬৪ টাকা। এ ছাড়া ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ও যমুনা ব্যাংকের ০ দশমিক ২০ টাকা করে এবং এনসিসি, এবি ও ব্যাংক এশিয়ার শেয়ার দর ০ দশমিক ১০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিন লেনদেন শেষে শেয়ার দর অপরিবর্তিত রয়েছে ৯টি ব্যাংকের। ব্যাংকগুলো হলো- ঢাকা, এক্সিম, আইসিবি ইসলামিক, আইএফআইসি, মার্কেন্টাইল, স্যোসাল ইসলামী, সাউথইস্ট, স্ট্যান্ডার্ড ও উত্তরা ব্যাংক।

বছরের প্রথমার্ধে ৫১০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে ডাচ্‌-বাংলা ব্যাংক। ২০১৮ সালের একই সময়ে ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা ছিল ৪১৮ কোটি টাকা। আর ডিএসইতে ব্যাংকটির দর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ০ দশমিক ৮০ টাকা কমেছে। আগের দিনও ১ দশমিক ৬০ শতাংশ দর হারিয়েছিল।

চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে ১ হাজার ২২৩ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড। গত বছরের একই সময় ব্যাংকটির পরিচালন মুনাফা হয়েছিল ১ হাজার ২১ কোটি টাকা। মুনাফা বৃদ্ধির পরও গতকাল ডিএসইতে ০ দশমিক ২০ টাকা দর হারিয়েছে। আগের দিনও ১ দশমিক ৭ শতাংশ দর হারিয়েছিল ব্যাংকটির শেয়ার। চলতি বছরের প্রথমার্ধে ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে বেসরকারি খাতের আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড। ব্যাংকটি ৪০৫ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা পেয়েছে। ২০১৮ সালের প্রথমার্ধে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা ছিল ২৮০ কোটি টাকা। তবে ডিএসইতে গতকাল ব্যাংকটির ০ দশমিক ২০ টাকা দর হারিয়েছে। আগের দিনও শেয়ারদর কমেছিল ১ দশমিক ১ শতাংশ।

প্রিমিয়ার ব্যাংক পেয়েছে ২৫৪ কোটি টাকার পরিচালন মুনাফা। ২০১৮ সালের একই সময়ে ব্যাংকটি ২১২ কোটি টাকার পরিচালন মুনাফা পেয়েছিল। গতকাল ডিএসসিতে ব্যাংকটির দর ০ দশমিক ১০ টাকা করে কমেছে। আগের দিনও শেয়ারদর কমেছিল ১ দশমিক ৭০ শতাংশ।

পরিচালন মুনাফায় ভালো করেছে বেসরকারি খাতের সাউথইস্ট ব্যাংকও। চলতি বছরের প্রথমার্ধে ব্যাংকটি পরিচালন মুনাফা করেছে ৫০৫ কোটি টাকা। গত বছরের একই সময়ে ব্যাংকটি ৪৫৬ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফায় ছিল।

তা সত্ত্বেও ব্যাংকটির দর অপরিবর্তিত রয়েছে। তবে আগের দিন শেয়ারদর কমেছিল দেড় শতাংশ। ৩০০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা পেয়েছে ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড। গত বছরের একই সময়ে ২৬০ কোটি টাকা মুনাফায় ছিল ব্যাংকটি। ডিএসইতে ব্যাংকটির দর গতকাল অপরিবর্তিত ছিল। তবে আগের দিন কমেছিল দশমিক ৭০ শতাংশ। মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড চলতি বছরের প্রথমার্ধে ৩৩১ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে। আগের বছরে এর পরিমাণ ছিল ৩২৫ কোটি টাকা। গতকাল ডিএসইতে দর অপরিবর্তিত ছিল। তবে আগের দিন ১ দশমিক ৪০ শতাংশ দর হারিয়েছিল ব্যাংকটির শেয়ার।

চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে ৩৬২ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা পেয়েছে এনসিসি ব্যাংক। বিদায়ী বছরের একই সময়ে ব্যাংকটি ২৯৬ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা পেয়েছিল। এর শেয়ারদর গতকাল ০ দশমিক ১০ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে আগের দিন কমেছিল ১ দশমিক ৪০ শতাংশ। এই প্রবণতা ছিল অন্য ব্যাংকগুলোর ক্ষেত্রেও।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
close

উপরে