কৃষকের ঘরে নতুন ধানের গন্ধ

ভালুকায় বোর ধান কাটা শুরু

ভালুকায় বোর ধান কাটা শুরু

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মাঠে মাঠে পাকা বোর ধান কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যাস্ত সময় কাটাচ্ছেন গাঁয়ের চাষি। নতুন ধান ঘরে তুলতে উৎসব মুখর প্রতিটি হিন্দু-মুসলিম বাড়ীর উঠান মুখরিত হয় মুরি হতে ধান ছড়ানো, গরু দিয়ে ধান মলা, খড় ছাড়ানো, আর কুলা দিয়ে শুকনা পাতা উড়িয়ে ঝকঝকে ধান খাদায় ভরে গোলার ডোলায় তোলা। বোর ধান ঘরে তোলা মানেই কৃষকের ঘর হাসি খুশি সুখ শান্তির পরশ নেমে আসা।

মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) বিকালে ভালুকার হবিরবাড়ী আমতলী গ্রামে বোরো ধান কাটছিলেন একদল শ্রমিক কৃষক আব্দুর রাজ্জাক মিয়ার ক্ষেতে। রাজ্জাক মিয়া জানান এ বছর ৩ বিঘা জমিতে ব্রি-ধান ৮১ ও আড়াই বিঘা জমিতে বাঁশমতি জাতের ধান চাষ করেছেন। তিনি প্রতি বিঘা জমি ট্রাক্টর দিয়ে চাষ করা বাবদ ১২০০ টাকা, ধান লাগানো ১৫০০ টাকা, সার, কীটনাশক, ও ঘাস বাছা বাবদ ১৫০০ টাকা, পানি সেচ ১৫০০ টাকা খরচ করেছেন। বর্তমানে পাকাধান কাটা ও মাড়াই বাবদ শ্রমিকদের প্রতি বিঘা ৩৫০০ টাকা দিতে হচ্ছে। প্রতি বিঘায় ২০ থেকে ২২ মণ ধান পাবেন বলে তিনি আশাবাদী। ধান রোপন হতে শুরু করে পাকা পর্যন্ত কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শে ক্ষেত পরিচর্যা করায় তিনি ভাল ফলন পেয়েছেন। বর্তমানে ১০০০ টাকা মণ দরে বাজারে ধান বিক্রি করতে পারায় তিনি বেজায় খুশি।

হবিরবাড়ী ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম জানান- চলতি মৌসুমে হবিরবাড়ী ব্লকে ৪২০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। তিনি জানান ব্রীধান ৮১ উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ বাসমতি চালের আকৃতি দেশীয় বাজারে জিরা ধানের বিকল্প হিসেবে গণ্য বিদেশে রপ্তানী যোগ্য। এ ধানের জীবনকাল ১৪০ দিন।

উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্যমতে চলতি মৌসুমে ভালুকায় ১৭ হাজার ৮৯৫ হেক্টর জমিতে বোর আবাদের লক্ষ মাত্রা ধরা হলেও অর্জিত হয়েছে ১৮ হাজার ৭১০ হেক্টর। এর মধ্যে হাইব্রীড লক্ষমাত্রা ৫১০ হেক্টর অর্জিত ১২০০ হেক্টর, উফসি লক্ষমাত্রা ১৭৩৭৫ হেক্টর অর্জিত ১৭৫০০ হেক্টর, স্থানীয় জাত ১০ হেক্টর। তবে ধানের পরাগায়ন সময়ে তাপমাত্রা বৃদ্ধি হওয়ায় কিছু কিছু এলাকায় চিটা হয়ে ধানের ক্ষতি হয়েছে যার পরিমান ১৫০ হেক্টরের মত। তার পরও বোর আবাদে লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে অনেক বেশী আবাদ হয়েছে।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে