খানসামার রামনগরে জলাবদ্ধতায় ৩ বছর ধরে ব্যাহত চাষাবাদ

খানসামার রামনগরে জলাবদ্ধতায় ৩ বছর ধরে ব্যাহত চাষাবাদ

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ভাবকি ইউনিয়নের রামনগর গ্রামে জলাবদ্ধতার কারণে ৩ বছর ধরে আমণ ধানের চাষাবাদ করতে পারছেনা কৃষকরা।

মঙ্গলবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রামনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের দক্ষিণে জলাবদ্ধতার কারণে তিন ফসলি জমি এখন এক ফসলি জমিতে পরিণত হয়েছে। এখন কেবল বোরো মৌসুমে একবার ধান উৎপাদন করতে পারছেন এ এলাকার কৃষকরা। বিশাল এলাকা জুড়ে পানি আর শেওলা। যখন উপজেলা জুড়ে পানির অভাবে সেচ যন্ত্রের সাহায্যে কৃষকরা আমনের চারা রোপণ করতেছে তখন রামনগর এলাকায় প্রায় অর্ধ শতাধিক বিঘা জমি জলাবদ্ধতার কারণে পরে আছে। আবার কোথাও কোথাও পাটের জাক দেওয়া হয়েছে। এতে কৃষকরা ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

রামনগর এলাকার নাসির উদ্দীন, মোমিনুল ইসলাম, হামিদ, সফিকুল ইসলাম, ছকিমউদ্দীনসহ ভুক্তভোগী কৃষকরা বলেন, গত ৩ বছর আগে স্থানীয় সাফিয়ার রহমান পানি পারাপারের কালভার্ট বন্ধ করে দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করে। তখন থেকেই জলাবদ্ধতার কারণে ৩ ফসলি জমিতে বছরে এক বার আবাদ করতে হচ্ছে। কালভার্টের মুখ খুলে দিয়ে ৫০/৬০ ফুট দীর্ঘ একটি ড্রেনেজ ব্যবস্থা করা গেলেই পানি নিস্কাশনের মাধ্যমে এসব জমিতে বছরে তিনবার ফসল উৎপাদন করা সম্ভব হবে। আয়ের প্রধান উৎস ব্যাহত হওয়ায় গত ৩ বছর ধরে তাদের সংসার চালাতে হিমসিম খেতে হচ্ছে।

ভাবকি ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম বলেন, কালভার্ট বন্ধ করায় এ জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। গত বছর শেষের দিকে পাইপের সাহায্যে জলাবদ্ধতা নিরসন করে আংশিক আমন চাষ করা হয়েছিল। তবে এ জলাবদ্ধতা দূরীকরণে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহন করতে হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। জলাবদ্ধ ফসলের মাঠ পরিদর্শনের পর সমস্যা চিহ্নিত করে শিগগিরই জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে