কটিয়াদী ফলন-বাজার দুই-ই ভালো, খুশি শসা চাষিরা

কটিয়াদী ফলন-বাজার দুই-ই ভালো, খুশি শসা চাষিরা

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে শসার চাষ করে বাম্পার ফলন বাজারে ভালো দাম পাওয়ায় হাসি ফুটেছে শসা চাষিদের মুখে অল্প সময়ে কম খরচে বেশি লাভ হওয়ার কৃষিপণ্য হল শসা

কৃষকরা জানান, বীজ বপন থেকে মাত্র তিন মাসের মধ্যেই ফল আসে শসা গাছে পানি জমে না এমন বেলে দো-আঁশ মাটি শসা চাষের জন্য যথেষ্ট উপযোগী গর্ত করে প্রয়োজনীয় জৈব সার প্রয়োগ করে বীজ বপন করে একটু সেচ পরিচর্যা করলেই শসা ফলানো সম্ভব গাছ কিছুটা বড় হলে মাচাং বানিয়ে দিলে আড়াই মাসেই ফুল ফল আসে শসার গাছে ফলে উৎপাদন খরচ একেবারেই কম ফসল সংগ্রহ শুরু হলে একদিন পর পরই শসা তুলে বাজারে পাঠানো যায়

সবজির চাষাবাদ করে কৃষকরা যেমন লাভবান হচ্ছেন অনুরূপভাবে কৃষি শ্রমিকরা সারা বছর কাজের সুযোগ পাচ্ছেন স্থানীয় বাজারে বা মাঠে কৃষকদের কাছ থেকে সবজি ক্রয় করে সারাদেশের বাজার পাঠিয়ে লাভবান হচ্ছেন হাজারো ব্যবসায়ী বর্তমানে সবজি ক্ষেতের বড় অংশই জুড়ে আছে শসা চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় শসার বাম্পার ফলন হয়েছে একইভাবে বাজারে শসার ব্যাপক চাহিদা থাকায় বাজার দরও ভালো সব মিলিয়ে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা

উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, চলতি খরিপ মৌসুমে শাকসবজি চাষ করা হয় ৭৩০ হেক্টর জমিতে

১৩০ হেক্টরের বেশি জমিতে শুধু শসা চাষ হয়েছে

মসূয়া ইউনিয়নের বেতাল গ্রামের কৃষক হাদিউল ইসলাম জানান, আমার নিজস্ব কোন জমি নাই অন্যের কাছ থেকে এক একর জমি বর্গা নিয়ে লাখ টাকা খরচ করে শসা চাষ করেছি শসা ক্ষেত থেকে গত সপ্তাহ থেকে শসা তোলা শুরু করেছি প্রায় লক্ষ ৫০ হাজার টাকার শসা বিক্রি করেছি এখন প্রতি দুই দিন পর পর শসা তুলে বিক্রি করতে পারি এখন মাঝে মধ্যে পোকা দমনে সামান্য কিছু কীটনাশক স্প্রে করতে হবে আবহাওয়া বাজার অনুকলে থাকলে এই এক একর জমির শসা বিক্রি করে /৬লাখ টাকা লাভের হবে আশা করছি

পাইকারি সবজি ব্যবসায়ী মামুন জানান,শসার বাম্পার ফলন হওয়া প্রতিদিন চাষিদের ক্ষেত থেকে সবজি ক্রয় করে উপজেলার বিভিন্ন বাজারে পাঠানো হয় উপজেলার চাহিদা মেটানোর পর অন্যান্য জেলা উপজেলা তে শসা পাইকারি ধরে ক্রয় করা হয়

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মুখছেদুল হক বলেন, আমরা বাণিজ্যিক কৃষি সম্প্রসারণের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি সৌখিন সম্মানজনক কর্মসংস্থানের জন্য বাণিজ্যিক কৃষিতে আত্বনিয়োগ করার জন্য কটিয়াদীর কৃষকদের বিভিন্ন প্রশিক্ষন পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে আধুনিক প্রযুিক্ত গ্রহণ করে প্রচলিত ফসলের মাধ্যমে কৃষক লাভবান হচ্ছে কৃষি বিভাগের পরামর্শে সহযোগিতায় প্রথমবারের মতো হাইদুল সহ বেশ কয়েকজন কৃষি উদ্যোক্তা মালচিং পদ্ধতিতে ফসল চাষাবাদ করেন এতে একদিকে যেমন খরচ কমে অন্যদিকে ফলন বৃদ্ধি পায় ফলে কৃষি উদ্যোক্তাগণ ব্যাপক লাভবান হচ্ছেন

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে