ময়নাকে পিটিয়ে হত্যা করলো জাহাঙ্গীর

প্রকাশ | ২৯ আগস্ট ২০২৩, ১৩:১৯

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি

ঈশ্বরদীতে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে লোহার পাইপদিয়ে পিটিয়ে একজনকে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে ঈশ্বরদী পৌরশহরের মশুড়িয়া পাড়ায় (কামার পাড়া) এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত ময়না বেগম (৫৮) কামার পাড়া এলাকার মোঃ রহম আলীর স্ত্রী। তিনি পেশাক একজন রাস্তা নির্মান শ্রমিক ছিলেন।

অভিযুক্ত ঘাতক মোঃ জাহাঙ্গীর একই এলাকার মোঃ কাশেম আলীর ছেলে এবং পেশাদার কাঠমিস্ত্রী।

নিহতের পরিবার এবং এলাকাবাসী জানায়, নিহত ময়নার মেয়ে নিশি খাতুন একই এলাকার সীটকাপড় ব্যবসায়ী রনির স্ত্রী শিলা খাতুনের থেকে কাপড় ক্রয় করেন। সেই ক্রয়কৃত কাপড়ের মূল্য বাবদ ২০০০/ (দুই হাজার) টাকা বাকী থাকায় শিলা এবং নিশির মথ্যে বিতন্ডা হয়। 

বিতর্কের এক পর্যায়ে জাহাঙ্গীর, আসিফগং সেখানে উপস্থিত হন এবং বাকী টাকা পরিশোধ না করার দায়ে নিশিকে মারধর করেন। বোনকে মারধর করার কারণ জানতে নিশির ভাই মো. মমিন এবং রিপন সেখানে গেলে জাহঙ্গীরগং তাদেরকেও মারধর শুরু করলে সেখানে উভয় পক্ষের ধস্তাধস্তিতে জাহাঙ্গীরের ভাই মোঃ আসিফ (২২) আহত হন। 

গন্ডগোল হচ্ছে জেনে ছেলেদের ফিরিয়ে আনতে  ময়না বেগম ঘটনাস্থলে গেলে জাহাঙ্গীরগং ময়নার উপর হামলা চালালে ময়না মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যায়। এসময় পাষন্ড জাহাঙ্গীর লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে ময়নার মাথা থেতলে দেয়। এসময় স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে ঘাতকদল ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

 গুরুতর আহত অবস্থায় ময়নাকে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ময়নাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। রাজশাহীতে নেওয়ার পথে আহত ময়নার মৃত্যু হয়।


ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ অরবিন্দ সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 

ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাবনা মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

যাযাদি/ এস