উপাচার্যদের বৈঠক সিদ্ধান্ত : ১০০ নম্বর এমসিকিউ প্রশ্নে হবে গুচ্ছ ভর্তি পরিক্ষা

উপাচার্যদের বৈঠক সিদ্ধান্ত : ১০০ নম্বর এমসিকিউ প্রশ্নে হবে গুচ্ছ ভর্তি পরিক্ষা

বাংলাদেশের ১৯ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরিক্ষা ১০০ নম্বরের অভিন্ন এমসিকিউ প্রশ্নপত্রের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষায় থাকবে না পাশ-ফেল, শুন্য থেকে ১০০ নম্বরপ্রাপ্তদের তালিকা দেয়া হবে। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নিজস্ব চাহিদা অনুযায়ী বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে ভর্তি করতে পারবে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছভিত্তিক ভর্তি পরীক্ষাবিষয়ক কার্যক্রমের যুগ্ম আহ্বায়ক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান।

শনিবার ( ১৯ ডিসেম্বর) সকাল ১১:৩০ মিনিটে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য কক্ষে ১৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের এক বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় বলে তিনি জানান।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, ভর্তি পরীক্ষায় কেউ পাশ বা ফেল করবে না। প্রত্যেকেই পরীক্ষার ভিত্তিতে একটি স্কোর পাবে। পরবর্তীতে গুচ্ছভুক্ত প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় নিজস্ব শর্তারোপ করে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে এবং সম্মিলিত ভর্তি পরীক্ষায় ফলাফলের ভিত্তিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করবে। আবেদনের যোগ্যতার বিষয়ে বিজ্ঞাপ্তিতে বলা হয়, যে সকল শিক্ষার্থী ২০১৯ বা ২০২০ সালে এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ তারাই আবেদন করতে পারবে। ভর্তিচ্ছু আবেদনকারীর বিজ্ঞান শাখার জন্য নূন্যতম জিপিএ ৭.০, বাণিজ্য শাখার জন্য নূন্যতম জিপিএ ৬.৫ এবং মানবিক শাখার জন্য নূন্যতম জিপিএ ৬.০ থাকতে হবে। তবে প্রত্যেক শাখাতে এসএসসি এবং এইচএইচসি পরীক্ষায় নূন্যতম জিপিএ ৩.০ থাকতে হবে।

মানবন্টনের বিষয়ে বলা হয়, মানবিক শিক্ষার্থীদের বাংলায় ৪০, ইংরেজিতে ৩৫ ও আইসিটি ২৫ নম্বরের পরীক্ষা হবে। বাণিজ্যে একাউন্টিং ২৫, মেনেজমেন্টে ২৫, ভাষা জ্ঞান ২৫, বাংলা ১৩, ইংরেজি ১২ ও আইসিটি ২৫ নম্বরের পরীক্ষা। বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে ভাষা ২০, বাংলা ১০, ইংরেজি ১০, রসায়ন ২০, পদার্থ ২০, আইসিটি/ম্যাথ/বাইলোজি এই তিনটি থেকে যে কোন দুটিতে ২০ করে ৪০ নম্বরের পরীক্ষা হবে।

যেমন ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে ১০০ সিট থাকলে তার মধ্যে মানবিকের জন্য ৮০, বাণিজ্য ১০ ও বিজ্ঞানের জন্য ১০টি আসন থাকবে। সেক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নির্দিষ্ট বিষয়ে নূন্যতম নম্বর নির্ধারণ থাকতে পারে। আবেদন যোগ্যতা হিসেবে মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য এসএসসি এবং এইচএসসি’তে মোট পয়েন্ট ৬, বাণিজ্যে ৬.৫ এবং বিজ্ঞানে ৭ পয়েন্ট থাকতে হবে।

এদিকে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার জন্য বৈঠকে দুইটি কমিটি করা হয়েছে। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি (গাজীপুর) এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মুনাজ আহমেদ নূর এর নেতৃত্বে ‘টেকনিক্যাল সাব কমিটি’ ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ এর নেতৃত্বে ‘অর্থ-কমিটি’ গঠন করা হয়েছে।

এসময় বৈঠকে গুচ্ছ পদ্ধতিতে অংশগ্রহণ করা ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বাদে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বাদে অন্যান্য সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ এবং গুচ্ছভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা এর সচিব ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে