​কিশোরগঞ্জে পিডিবি’র লাইনে অবৈধ কাজ করতে গিয়ে আটক চার

​কিশোরগঞ্জে পিডিবি’র লাইনে অবৈধ কাজ করতে গিয়ে আটক চার

কিশোরগঞ্জ পৌরসভা স্বনামধন্য শহরবাসীর দিন শেষে ক্লান্তিকাটে ঠান্ডা বাতাসে। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের বিরামহীন কষ্টের বিদ্যুতে উপকৃত সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ। প্রচন্ড গরমে মানুষ যখন অতিষ্ট ঠিক তখনই বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি প্রাকৃতিক কারণে বেকারণে লোডশেডিংয়ে আরও অতিষ্ট করে তোলে মানুষকে। এই লোডশেডিং এর ফাঁকে অসৎ উদ্দেশ্যে বিভিন্ন এলাকায় পিডিবির মই ও যন্ত্রপাতি নিয়ে আকষ্মিক কাজ করতে দেখা যায় অনেক লোককে। কখনও কোন কারণ ছাড়াই লোডশেডিং। যোগাযোগ করলেই সংযোগ চালু হয়। এসবে যখন অভ্যস্থ সাধারণ মানুষ তখন অফিসের অভ্যন্তরিণ সহযোগিতায় শহরের বিভিন্ন জায়গায় বৈদ্যুতিক পিলার স্থাপন ও উচ্ছেদ, বৈদ্যুতিক তার অপসারণ এবং বিভিন্ন এলাকার ফিড চেইঞ্জ করা এসব অজুহাতে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে দুষ্কৃতিকারীচক্র। কিশোরগঞ্জের পুরানথানাস্থ ধোপাবাড়ি মোড়ে মাস্টারবাড়ির সামনে পিডিবি’র লাইনে অবৈধ কাজ করতে গিয়ে আটক হয়েছে চারজন।

এর আগে ৩ আগস্ট রাত ২টার সময় কাজ করতে গেলে ভূক্তভোগী মানুষের ফোন পেয়ে একজন সৎ সাংবাদিক তাদের ছবি ও তথ্য সংগ্রহ করে। যথানিয়মে খবর ছাপানো হলে একটি লিগ্যাল নোটিশ দিয়ে হুমকি দেয়া হয় এবং স্বপন নামে একজন সাহায্যকারী কারণে অকারণে ফোন দিয়ে বলে পিডিবি’র ছাড়া কোন শালা চলবে না আর পিডিবিতে চাকরী করি আমি। এসব সাংবাদিকতা আমার দুপয়সার খেল।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পিডিবি’র ঘোষণা মতে সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত শাটডাউন দেয়া হবে বলে মাইকিং করা হয়। এই সুবাদে ৩ আগস্ট রাতের অবৈধ সংযোগকারী অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে যায়। তখন সাধারণ জনগণ জানতে চায় এই কারণে বিদ্যুৎ বন্ধ কি না। স্বপন নামে এক ব্যক্তি স্থানীয় মুরুব্বীর সাথে দুর্ব্যবহার করে সকাল ৬টায়। তখন জনমনে শুরু হয় ক্ষোভ। উৎসুক জনতার ক্ষোভের মুখে দুইজন পালিয়ে গেলেও চারজনকে যেতে দেয়নি স্থানীয়রা। জনতার গণধোলাই থেকে এস.আই চন্দনের নেতৃত্বে তাদেরকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে আসে। পরে জানা যায়, চারজনই হলো বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা ভাড়াটিয়া লোক। সুকৌশলে পালিয়ে যায় পিডিবি’র সাহায্যকারী স্বপন, নূরুল হক এবং সহকারী প্রকৌশলী বখতিয়ার। আটককৃত চারজন হলেন, স্বপন গাজী, ইয়াছিন, অলীউল্লাহ, মোঃ সেলিম। পরে তাদের ফোন নাম্বারে ডায়ালকৃত নাম্বারে দেখা যায় গত রাত থেকে ভোর পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে ফোন দিয়ে এবং গাড়ী ভাড়া করে কাজে সংযুক্ত করে দেয় এবং প্রয়োজনীয় বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম স্টোর থেকে নিয়ে আসে।

কিশোরগঞ্জ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী তারেক ছেফাতির সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমার কোন লোক এখানে কাজ করে নাই। আর যারা আটক হয়েছে তারা সবাই বহিরাগত। আমার ডিপার্টমেন্টের নিয়ম অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যাযাদি/ এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে