বস্নাক লাইভ ম্যাটারস যাবজ্জীবন সাজা তিন শ্বেতাঙ্গের

বস্নাক লাইভ ম্যাটারস যাবজ্জীবন সাজা তিন শ্বেতাঙ্গের

২০২০ সালে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক আহমদ আরবেরিকে গুলি করে খুনের ঘটনায় জর্জিয়ার এক আদালত সাজা ঘোষণার পর ফের এই স্স্নোগান মুখরিত বিশ্ব জুড়ে। শ্বেতাঙ্গ পিতা-পুত্র গ্রেগরি ম্যাকমাইকেল (৬৬) ও ট্রাভিসকে (৩৫) যাবজ্জীবন কারাদন্ডের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। জেলে থাকাকালীন দু'জন প্যারোল পাবে না বলেও জানিয়েছেন আদালত। আর এক দোষী ম্যাকমাইকেলদের প্রতিবেশী উইলিয়াম ব্রায়ানকে (৫২) যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিলেও ৩০ বছর সাজা ভোগ করার পরে প্যারোল পাওয়ার সুযোগ থাকছে তার।

বিচারক টিমোথি ওয়ামসলে জানিয়েছেন, খুনের পরেও পিতা-পুত্রের কোনো অনুশোচনা ছিল না। সাজা ঘোষণার আগে আরবেরির পরিজন আদালতে আবেদন জানিয়েছিলেন, ওই তিন জনকে যেন দৃষ্টান্তমূলক সাজা দেওয়া হয়। এই রায়ে ন্যায়বিচার পেলেন বলেই মনে করছেন তারা। আরবেরির মা আদলত কক্ষে বসেই বলেন, 'এই রায়ে আমার ছেলে ফিরবে না, কিন্তু আমাদের জীবনের এক যন্ত্রণাময় অধ্যায়ের পরিসমাপ্তি হলো।' অন্য দিকে সামাজিক অধিকার আন্দোলন কর্মীরাও জানিয়েছেন, আজকের রায় বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে এক গুরুত্বপূর্ণ জয়।

২০২০ সালের ২৩ ফেব্রম্নয়ারি বছর পঁচিশের আরবেরি জগিং করতে বেরিয়েছিলেন। সেই সময়ে গ্রেগরি, ট্রাভিস এবং ব্রায়ান মিলে জর্জিয়ার ব্রম্ননসউইকের বাসিন্দা আরবেরিকে খুন করে। গ্রেগরি দাবি করেছিল, এলাকায় চুরির ঘটনা বেড়ে গিয়েছিল। সিসি ক্যামেরায় চোরের যে চেহারা দেখা গিয়েছিল, তার সঙ্গে মিল রয়েছে আরবেরির। তাই তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আরবেরি বাধা দেওয়ায় আত্মরক্ষার্থে গুলি চালানো হয়।

তবে আরবেরির খুনের ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই পাল্টে যায় পরিস্থিতি। ভিডিও দেখা যায়, ফুটপাত ধরে জগিং করছিলেন আরবেরি। সেই সময়েই একটি গাড়িতে গ্রেগরি ও ট্রাভিস এবং অন্য গাড়িতে ব্রায়ান তাকে অনুসরণ করে, কটূক্তিও করতে থাকে। এর পরে তাদের সঙ্গে আরবেরির বচসা শুরু হয়। হঠাৎই গ্রেগরি বন্দুক বের করে গুলি চালিয়ে দেয়। ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসতেই শুরু প্রতিবাদ-বিক্ষোভ। নড়েচড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন। ৭ মে গ্রেপ্তার করা হয় তিন জনকে। দীর্ঘ শুনানির পরে রায় দেন বিচারক। আহমদের বাবা বলেছিলেন, 'আমার ছেলেকে মারার একটাই কারণ সে কৃষ্ণাঙ্গ।'

আজ সাজা ঘোষণার আগে যখন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন আরবেরির পরিবার, সেই সময়ে বিচারক বলেন, 'আমরা সবাই নিজেদের কাজের জন্য দেশের কাছে দায়বদ্ধ... প্রত্যেককেই আইন মেনে চলতে হবে।' এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আবেদন জানানো হবে বলে জানিয়েছেন দোষীদের আইনজীবী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

ক্যাম্পাস
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
হাট্টি মা টিম টিম
কৃষি ও সম্ভাবনা
রঙ বেরঙ

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে