logo
বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ৭ আশ্বিন ১৪২৭

  তানজিম ইফতেখার   ১১ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০  

আইন পর্যালোচনা

ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড আইন, ২০১৮

ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড আইন, ২০১৮
২০১৮ সনের ৫৬ নং আইন হিসাবে ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ গেজেটে প্রকাশিত হয় 'ওজন ও পরিমাপ মানদন্ড আইন, ২০১৮'। ঝঃধহফধৎফং ড়ভ ডবরমযঃং ধহফ গবধংঁৎবং ঙৎফরহধহপব, ১৯৮২ রহিত করে তার বিধানাবলি বিবেচনাক্রমে সময়ের চাহিদার প্রতিফলনে নতুনভাবে আইন প্রণয়নের জন্য প্রণীত হয় এই আইন, যা অবিলম্বে কার্যকর হয়। আপাতত বলবত অন্য কোনো আইনে ভিন্নতর কিছু থাকুক না কেন, এই আইনের বিধানাবলিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। আইনটিতে সংজ্ঞার অংশে 'জাতীয় মানদন্ড (ঘধঃরড়হধষ ঝঃধহফধৎফ)' বলতে দেশব্যাপী পরিমাপের সমতা রক্ষার লক্ষ্যে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত কোনো পরিমাপক মান বা মানদন্ডকে বোঝানো হয়েছে। 'প্রচলিত মানদন্ড (ডড়ৎশরহম ঝঃধহফধৎফ)' বলতে ওজন বা পরিমাপনের মানদন্ড, যা জাতীয় মানদন্ড, রেফারেন্স মানদন্ড বা সেকেন্ডারি মানদন্ড ব্যতীত, যে কোনো ওজন বা পরিমাপন প্রতিপাদনের জন্য সরকার কর্তৃক বা সরকারের পক্ষে উৎপাদন বা তৈরিকৃত মানদন্ডকে বোঝানো হয়েছে।

এছাড়া 'প্রাইমারি মানদন্ড (চৎরসধৎু ঝঃধহফধৎফ)' বলতে কোনো বস্তু বা একই ভিত্তি এককের কোনো পরিমাপনের মানের সম্পর্ক ছাড়া আন্তর্জাতিকভাবে প্রচলিত বিশেষ পরিমাপ পদ্ধতি ব্যবহার করে স্থিরিকৃত পরিমাপন মান বা মানদন্ডকে বোঝানো হয়েছে। আর 'রেফারেন্স মানদন্ড (জবভবৎবহপব ঝঃধহফধৎফ)' বলতে সরকার কর্তৃক বা তার পক্ষে তৈরিকৃত বা উৎপাদিত ওজন বা পরিমাপনের মানদন্ড যন্ত্রের সেট, যার দ্বারা সেকেন্ডারি মানদন্ড ওজন বা পরিমাপন যন্ত্রের যথার্থতা নির্ণয় করা হয়, তাকে বোঝানো জয়েছে। 'সেকেন্ডারি মানদন্ড (ঝবপড়হফধৎু ঝঃধহফধৎফ)' বলতে ওজন বা পরিমাপনের মানদন্ড যন্ত্রের সেট, যা কোনো প্রচলিত মানদন্ডের যথার্থতা নির্ধারণের উদ্দেশ্যে সরকার কর্তৃক বা সরকারের পক্ষে তৈরিকৃত বা উৎপাদিত, তাকে বোঝানো হয়েছে।

আইনটির ওজন ও পরিমাপন যন্ত্রের মানদন্ড প্রতিষ্ঠা শীর্ষক শিরোনামে ধারা ৪ এ বিস্তারিত আলোচনা রয়েছে। বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক পদ্ধতির ভিত্তি একক (ইধংব ঁহরঃ) আন্তর্জাতিক পদ্ধতির একক হিসেবে পরিচিত এককসমূহ সমগ্র বাংলাদেশে ওজন বা পরিমাপন যন্ত্রের মানদন্ড একক হিসেবে ব্যবহৃত হবে। সেক্ষেত্রে ভরের ভিত্তি একক হবে কিলোগ্রাম আর কিলোগ্রাম হবে কিলোগ্রামের আন্তর্জাতিক আদিরূপ অর্থাৎ ১৮৮৯ সনে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ওজন এবং পরিমাপবিষয়ক প্রথম সাধারণ সম্মেলনে অনুমোদিত এবং আন্তর্জাতিক ওজন বা পরিমাপ বিষয়ক আন্তর্জাতিক বু্যরোতে সংরক্ষিত আদিরূপ ভরের সমান।

দৈর্ঘ্যের ভিত্তি একক হবে মিটার। শূন্য মাধ্যমে আলো ১/২৯৯৭৯২৪৫৮ সেকেন্ড সময়ে যে দূরত্ব অতিক্রম করে তা হবে ১ (এক) মিটার। সময়ের ভিত্তি একক হবে সেকেন্ড। আর সেকেন্ড মানে বিকিরণের ৯১৯২৬৩১৭৭০ পরিব্যাপ্তি কাল, যা সিজিয়াম ১৩৩ পরমাণুর ভিত্তি অবস্থায় (মৎড়ঁহফ ংঃধঃব) দুটি অতিসূক্ষ্ণ স্তরের মধ্যে বিকিরণ সঞ্চালনের সময়কালের অনুরূপ।

বিদু্যৎ প্রবাহের ভিত্তি একক হবে অ্যাম্পিয়ার। 'অ্যাম্পিয়ার' হলো সেই স্থির বিদু্যৎ প্রবাহ, যা অসীম দৈর্ঘ্যের নগণ্য বৃত্তাকার দুটি সরল ও সমান্তরাল পরিবাহকের মধ্যে পরিচালিত হয় এবং শূন্যে এক মিটার দূরত্বে স্থাপন করা হলে পরিবাহকদ্বয়ের মধ্যে প্রতি মিটার দৈর্ঘ্যে ২ী১০-৭ নিউটন সমপরিমাণ বল উৎপাদিত হয়।

তাপমাত্রার ভিত্তি একক হবে কেলভিন। 'কেলভিন' হলো তাপ গতিবিদ্যায় পানির ত্রৈধ বিন্দুর অবস্থার (ঃৎরঢ়ষব ঢ়ড়রহঃ) তাপমাত্রার ১/২৭৩.১৬ অংশ। কেলভিন একক এবং তার শ প্রতীক তাপমাত্রার পার্থক্য অথবা মধ্যবর্তী সময় প্রকাশের জন্য ব্যবহৃত হবে। ডিগ্রি সেলসিয়াস একক 'কেলভিন'-এর সমান এবং সেলসিয়াস তাপমাত্রার পার্থক্য বা বিরতিকাল ডিগ্রি সেলসিয়াস হিসেবেও ব্যবহৃত হতে পারে। আলোর তীব্রতা পরিমাপের ভিত্তি একক হবে ক্যানডেলা (ঈধহফবষধ)। 'ক্যানডেলা' হলো সেই পরিমাণ দীপন তীব্রতা, যা কোনো আলোক উৎস একটি নির্দিষ্ট দিকে ৫৪০ী ১০১২ হার্জ কম্পাঙ্কের একবর্ণী বিকিরণ নিঃসরণ করে এবং নির্দিষ্ট দিকে এর বিকিরণ তীব্রতা হচ্ছে প্রতি স্টেরেডিয়ান ঘন কোণে ১/৬৮৩ ওয়াট।

পদার্থের পরিমাণের ভিত্তি একক হবে মোল (সড়ষব)। 'মোল' হলো যৌগিক পদার্থের পরিমাণ, যা কার্বন ১২ এর ০.০১২ কিলোগ্রামের মধ্যে যে পরিমাণ মৌলিক পদার্থ সেই পরিমাণ পদার্থ ধারণ করে।

আইনের দ্বিতীয় অধ্যায়ে মানদন্ড ওজন ও পরিমাপন এবং এর নিরাপদ সংরক্ষণ নিয়ে আলোচনা রয়েছে। বলা হয়েছে, সরকার সব ভিত্তি এককের জাতীয় মানদন্ড প্রস্তুতের ব্যবস্থা করবে। তবে শর্ত থাকে যে, সরকার, প্রয়োজনে কোনো প্রাইমারি মানদন্ডকে জাতীয় মানদন্ড হিসেবে ঘোষণা করতে পারবে। আর ওজন ও পরিমাপের সব জাতীয় মানদন্ড ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তি কর্তৃক নির্ধারিত স্থান ও অবস্থায় সংরক্ষণ করা হবে এবং তিনি সংরক্ষণের পূর্বে এবং প্রতি ১০ বছর পর তা প্রতিপাদন ও প্রত্যয়নের ব্যবস্থা করবেন।

আইনটির বিধান অনুযায়ী, সরকার, সরকারি গেজেটে প্রজ্ঞাপন দ্বারা, যেরূপ উপযুক্ত মনে করবে সেরূপ মাত্রা ও সংখ্যামানসমূহকে, পরিমাপনের সেকেন্ডারি মানদন্ডের একক হিসেবে ঘোষণা করতে পারবে। তবে শর্ত থাকে যে, সময়ের একক ব্যতীত, উক্তরূপ সেকেন্ডারি মানদন্ডের একক সংশ্লিষ্ট ভিত্তি এককের দশ গুণের ধনাত্মক বা ঋণাত্মক (ঢ়ড়বিৎ) শক্তি হবে।

কোনো ওজন, পরিমাপন বা সংখ্যামান, ওজন, পরিমাপন বা সংখ্যামানের মানদন্ড ব্যতীত হবে না। কোনো ওজন বা পরিমাপন ওজন বা পরিমাপনের মানদন্ডের অনুরূপ না হলে, উক্ত ওজন বা পরিমাপন তৈরি বা উৎপাদন এবং বিক্রয়, বিপণন ও সরবরাহ করা যাবে না। তবে শর্ত থাকে যে, সরকার, কেবল রপ্তানির উদ্দেশ্যে তৎকর্তৃক নির্ধারিত শর্ত বা বাধা-নিষেধসাপেক্ষে ওজন বা পরিমাপনের মানদন্ডের অনুরূপ নয় এইরূপ কোনো ওজন বা পরিমাপন তৈরি বা উৎপাদনের জন্য অনুমতি প্রদান করতে পারবে।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি
close

উপরে