ঘরসজ্জায় যেভাবে নতুনত্ব আনবেন

ঘরসজ্জায় যেভাবে নতুনত্ব আনবেন
জীবনযাপনে ঘর সাজানোর বিষয়টি দিন দিন গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। শুধু ব্যবসায়িক জায়গাই নয়, ঘরেও আসবাবপত্র ব্যবহার ও সাজানোতে আসছে নতুনত্ব। ঘর সাজানোতেও ফুটে উঠছে মানুষের ব্যক্তিত্ব ও সৌন্দর্য।
আধুনিক জীবনযাপনে অধিক আসবাবপত্র ব্যবহার কমে আসছে। কম আসবাবপত্র ব্যবহার করে কীভাবে প্রয়োজন মেটানো যায় সে দিকে গুরুত্ব বাড়ছে। ফলে নানাভাবে একের ভেতরে একাধিক প্রয়োজন মেটানো যায় এমন আসবাবপত্রের প্রতি মানুষের ঝোঁক এখন। অতএব আপনিও চাইলে কমিয়ে দিতে পারেন অধিক আসবাবপত্র।
ঘরসজ্জায় প্রাত্যহিক জীবনযাপনকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন। বাচ্চাদের ঘরটি হতে পারে একটি শিশুরাজ্য। দেওয়ালে রং করা থেকে শুরু করে শিশুর আগ্রহের অনেক কিছুই থাকতে পারে এতে। একইভাবে হতে পারে কিচেন ও ডাইনিং রুমও। কিচেনে রান্নার নানা অনুষঙ্গ ব্যবহার করলেও ডাইনিং রুমে ব্যবহার করতে পারেন নানা ধরনের পেইন্টিংস। এ ঘরে আসবাবপত্রের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে নানা ধরনের প্রযুক্তিও। ওয়াইফাই, এসি, ওয়াশিং মেশিন, টিভি-সব কিছুতেই এসেছে অনলাইন প্রযুক্তির নতুন ছোঁয়া। নতুন করে ঘর সাজাতে আপনি পুরোনো প্রযুক্তির জিনিসপত্র সরিয়ে নতুনত্ব আনতে পারেন।
দেওয়ালে রং করা ছাড়াও ঘরসজ্জা এখন যুক্ত হয়েছে ওয়াল আর্ট। নানা ধরনের বিখ্যাত শিল্পকর্ম পুরো দেয়াল জুড়েই আঁকা থাকবে। একেকটি কক্ষের প্রয়োজন অনুসারে বৈচিত্র্য আনতে পারেন ডিজিটাল আর্টের মাধ্যমে। সেইসঙ্গে নানা ধরনের ক্রাফটস এবং নানা উপকরণ তো ঘরজুড়ে রাখবেনই।
নাগরিক জীবনে ঘরে নানা ধরনের পার্টি এখন নতুন ট্রেন্ড। ফলে বাহারি আলো দিয়ে সাজাতে পারেন ঘরে। পার্টি বা অনুষ্ঠানের মেজাজ অনুসারে আলোকসজ্জা করতে পারেন। এ ছাড়াও ঘরে নিয়মিত আলোর ব্যবহারেও আনতে পারেন নতুনত্ব। শুধু লাইট লাগিয়ে দিলেই যে আলোর প্রয়োজন ফুরিয়ে গেল, এমন না। লাইটে বা লাইট লাগানোর স্থানটিতে সুন্দর রূপ দিতে পারেন।
আগে ঘরের সামনের উঠোনে ফুলের বাগান ছিল। নাগরিক জীবনে সেটি এখন ব্যালকনিতে। ঘরোয়া উপযুক্ত গাছগাছালি ঘরজুড়েই বসাতে পারেন। ব্যালকনি ছাড়াও ঝুলিয়ে দিতে পারেন জানালাতেও। এমনকি রান্নাঘরের কোনাতেও বসিয়ে দিতে পারেন একটি টব। তবে ঘরের ভেতরে বড় গাছগাছালি না থাকাটাই উত্তম।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে