গাজীপুরের কারাগারে মাদানি, মাদ্রাসায় তালা

গাজীপুরের কারাগারে মাদানি, মাদ্রাসায় তালা

আলোচিত হাফেজ শিশু বক্তা রফিকুল ইসলাম ‘মাদানি’কে গাজীপুর মহানগরের একটি থানার মামলায় আদালতের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার সকালে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গাজীপুর মহানগর পুলিশের ডিসি ইলতুৎমিশ কারাফটকে সাংবাদিকদের জানান, গাজীপুর মহানগরের বোর্ডবাজারের কলমেশ্বর এলাকায় একটি কারখানা চত্বরে গত ১০ ফেব্রুয়ারি এক ওয়াজ মাহফিলে সরকারকে কটাক্ষ করে বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে বুধবার দিবাগত রাত সোয়া ২টার দিকে গাছা থানায় মামলা হয়েছে।

র‌্যাব-১ এর ডিএডি আব্দুল খালেক বাদী হয়ে ওই মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তাকে নেত্রকোনা থেকে গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার সকালে গাজীপুর করোনাকালীন বিশেষ আদালতে পাঠানো হলে আদালত তাকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে কড়া পুলিশ ও র‌্যাবের সদস্যদের প্রহরায় গাজীপুর জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। পরে পুলিশের হেফাজতে নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে অবেদন করা হবে।

গাজীপুর জেলা কারাগারের সুপার মো. বজলুর রশিদ আকন্দ জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে তাকে এ কারাগারে বুঝে নেওয়া হয়েছে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আসামি মো. রফিকুল ইসলাম (২৬) নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার লেটিরকান্দা এলাকার মৃত সাহাবুদ্দিনের ছেলে। তিনি বিভিন্ন সময় দেশ ও সমাজের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এমন উসকানিমূলক বক্তব্য দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা ও জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছেন। বাংলাদেশের স্বার্থপরিপন্থি বিভিন্ন অপতৎপরতায় লিপ্ত এবং ধর্মীয় অর্থাৎ কোরআন ও হাদিসের অপব্যাখ্যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে উসকানি দিয়ে আইনশৃঙ্খলা বিনষ্ট করতে উদ্বুদ্ধ করেন। এছাড়া তিনি রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি ও সুনাম ক্ষুণ্ন করা বাংলাদেশের জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি, সামাজিক তথা রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটানো, আইনশৃঙ্খলা বিনষ্ট করা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করা, প্রতিবেশী বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে শত্রুতামূলক মনোভাব ও সরকারের প্রতি ঘৃণারভাব সৃষ্টিমূলক বক্তব্য প্রদান করে দেশের সরল ও ধর্মানুরাগী মানুষের ধর্মীয় মূল্যবোধ ও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেন।

আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচারিত বক্তব্য দেখালে এবং শোনালে তা নিজের বলে স্বীকার করেন।

গাজীপুর মাদ্রাসায় তালা

গাজীপুর মহানগরের বাড়িয়ালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পেছনে মারকাজুন নূর আল ইসলামিয়া নামে একটি আবাসিক মাদ্রাসা রয়েছে। হাফেজ ক্কারী মো. রফিকুল ইসলাম মাদানি ওই মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল ও পরিচালক। বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে মাদ্রাসা ক্যাম্পাসে গিয়ে দেখা গেছে মাদ্রাসাটির প্রাধান ফটকে ভেতর থেকে দুটি তালা ঝুলছে এবং দিনের বেলাও বাইরে বিদ্যুতের বাতি জ্বলছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মো. সেলিম জানান, গত ২৫ মার্চ বাড়িয়ালী-নলজানী ঈদগাহ মাঠে ওই মাদ্রাসার হাফেজ ছাত্রদের পাগড়ি প্রদান উপলক্ষে শানে রিসালাত মহাসম্মেলন নামে এক ইসলামি মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সোখানে তিনিও বক্তব্য রাখেন। ওই অনুষ্ঠানের পরদিন থেকে মাদ্রাসাটি বন্ধ রয়েছে। মাদ্রাসাটির ছাত্র ও শিক্ষক বেশির ভাগই তার নিজ জেলার বলে তিনি জানান। বন্ধ থাকায় বর্তমানে মাদ্রাসাও কেউ থাকেন না। গত এক বছর ধরে আমিনুল হোসেন নামের কালীগঞ্জের নাগরিক এক প্রবাসীর বাড়িভাড়া নিয়ে রফিকুল ইসলাম মাদানি ওই মাদ্রাসাটি পরিচালনা করছেন। মাদ্রাসাটি আবাসিক, অনাবাসিক ও ডে-কেয়ার রয়েছে। এখানে নুরানী মক্তব, নাযেরা, হিফজ বিভাগ ছাড়াও প্লে থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করানো হয়।

যাযাদি/এস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে