মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯
walton1
কাতার বিশ্বকাপ ২০২২

রামোসের হ্যাটট্রিকে কোয়ার্টার ফাইনালে পর্তুগাল

যাযাদি ডেস্ক
  ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২৮

পর্তুগালের কোচ ফার্নান্দো সান্তোস প্রথম একাদশেই রাখেননি ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে। তার সিদ্ধান্তের কারণেই হয়তো ১৭ মিনিটে ওই রকম অসাধারণ গোলের সাক্ষী হতে পেরেছে কাতার বিশ্বকাপ। পরে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম হ্যাটট্রিকেরও সাক্ষী হয়েছে।

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়ামে ১৭ মিনিটের মাথায় গোল করে পর্তুগালকে এগিয়ে দেন গনসালো রামোস। থ্রো থেকে বক্সের মধ্যে তাকে পাস দেন জোয়াও ফেলিক্স। প্রথম পোস্টে থাকা গোলরক্ষকের পাশ দিয়ে জোরালো শটে গোল করেন রামোস। ওই সময় কিলিয়ান এমবাপের কথা মনে পড়তে বাধ্য, প্রি-কোয়ার্টারে তিনিও পোল্যান্ডের বিপক্ষে জোরালো শটে গোল করেছিলেন।

গোলটি সুইজারল্যান্ডের গোলরক্ষক ইয়ান সমারের দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। রোনালদোর পরিবর্তে প্রথম একাদশে সুযোগ পেয়ে রামোস ওই একটি গোলেই রাজা হয়ে গেছেন। এ ছাড়া সিআর সেভেনও শিক্ষা পেয়েছেন। সান্তোসের পরিকল্পনাও খেটে গেছে। সুইজারল্যান্ডকে ৬-১ গোলে হারিয়ে রোনালদোবিহীন পর্তুগাল প্রমাণ করেছে টিম-গেমে বড় তারকার মূল্য ততটুকু, যতটুকু জেতার জন্য কাজে লাগে। বাকিটা ইগোর প্রদর্শনী ছাড়া কিছু নয়।

৫১ মিনিটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন রামোস। বল নিয়ে ডান প্রান্ত ধরে ওঠেন দিয়োগো দালত। তিনি ক্রস করেন বক্সে। বাঁ পায়ের টোকায় গোলরক্ষকের পায়ের নিচ দিয়ে বল জালে জড়ান রামোস। ৪২ মিনিটে সহজ সুযোগ নষ্ট না করলে তখনই হ্যাটট্রিক হতে পারতো। প্রতি আক্রমণে মাঝমাঠে বল পেয়ে অনেকটা দৌড়ে বক্সের মধ্যে রামোসের উদ্দেশে বল বাড়ান ফের্নান্দেস। গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি তিনি। ৬৭ মিনিটে আর ভুল করেননি। বিশ্বকাপে নিজের প্রথম ম্যাচেই হ্যাটট্রিক করেন রামোস। নিজেদের মধ্যে বল খেলে বক্সের মধ্যে তার দিকে বল বাড়ান ফের্নান্দেস। গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জালে জড়িয়ে হ্যাটট্রিক করেন রামোস। ২০০২ সালে জার্মানির হয়ে মিরোস্লাভ ক্লোসা বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। ৭৩ মিনিটে তার পরিবর্তে মাঠে নামেন রোনালদো।

৩৩ মিনিটে পর্তুগালের হয়ে তৃতীয় গোলটি করেন পেপে। কর্নার থেকে জোরালো হেডে গোল করেন তিনি। সুইস গোলকিপার ইয়ান সমারের চেয়ে দেখা ছাড়া কিছু করার ছিল না। ম্যাচের ৫৫ মিনিটে ৪ নম্বর গোল পায় পর্তুগাল। গোলটি করেন রাফায়েল গুয়েরেরো। বাইরে থেকে বল পেয়ে গতি বাড়িয়ে বক্সে ঢোকেন তিনি। বাঁ পায়ের জোরালো শটে গোলও করেন। ৬ নম্বর গোলটি করেন রাফায়েল লেও।

৫৮ মিনিটে এক গোল শোধ করে সুইজারল্যান্ড। কর্নার থেকে সতীর্থের মাথায় লেগে বল আসে আকাঞ্জির সামনে। বাঁ পায়ের টোকায় গোল করেন তিনি। কাতার বিশ্বকাপের সবচেয়ে গুরুত্বহীন গোল সম্ভবত এটিই।

আগামী শনিবার মরক্কোর বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে পর্তুগাল।

যাযাদি/সাইফুল
 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে