সংবাদ সংক্ষেপ

সংবাদ সংক্ষেপ

চীন

গ্রামীণ দারিদ্র্য দূরে

সফল জিনপিং

ম যাযাদি ডেস্ক

চীনের গ্রামীণ দারিদ্র্য দূরীকরণের প্রচেষ্টায় 'সম্পূর্ণ বিজয়' অর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। বৃহস্পতিবার রাজধানী বেইজিংয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এই ঘোষণা দেন। চীনের গ্রামীণ দারিদ্র্য দূরীকরণকে জিনপিংয়ের প্রেসিডেন্ট মেয়াদের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হিসেবে নেওয়া হয়েছে।

গত আট বছরে প্রায় ১০ কোটি লোককে দারিদ্র্যমুক্ত করার জন্য জিনপিংয়ের নেতৃত্বকে কৃতিত্ব দিয়েছে চীন।

দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম এ অর্জনকে চলতি বছরে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির ১০০ বছর পূর্তির আগাম উপহার হিসেবে বর্ণনা করেছে।

বুধবার কমিউনিস্ট পার্টির মুখপত্র 'পিপলস ডেইলি' দুই পৃষ্ঠার বেশি জুড়ে ছাপানো একটি মন্তব্য প্রতিবেদনে জিনপিংয়ের অধীনে দারিদ্র্য জয় করাকে 'ঐতিহাসিক পদক্ষেপ' হিসেবে তুলে

ধরে প্রশংসা করেছে।

চীন মাথাপিছু বার্ষিক চার হাজার ইউয়ান (৬২০ ডলার) বা দৈনিক এক দশমিক ৫২ ডলারের চেয়ে কম আয়কে চরম গ্রামীণ দারিদ্র্য বলে সংজ্ঞায়িত করেছে। অপরদিকে, বিশ্বব্যাংকের সংজ্ঞা অনুযায়ী, এ ক্ষেত্রে দৈনিক মাথাপিছু আয় এক দশমিক ৯০ ডলার বলে নির্ধারণ করা হয়েছে।

রোববার প্রকাশ করা 'এক নম্বর নীতি দলিলে' চীন দারিদ্র্য বিমোচন নীতি অব্যাহত রাখা হবে বলে জানিয়েছে। সংবাদসূত্র : রয়টার্স

ইরান

হৃদরোগে মৃতু্যর পরও

ফাঁসিতে নারী!

ম যাযাদি ডেস্ক

ফাঁসিতে ঝোলানোর আগেই হৃদরোগে মৃতু্য হয় স্বামীকে হত্যার দায়ে অভিযুক্ত এক নারীর। তারপরও সেই নিথর দেহকেই ফাঁসিতে ঝোলানো হলো। বুধবার এমনই অমানবিক ঘটনা ঘটেছে ইরানের রাজাই শাহর জেলে।

ওই নারীর নাম জাহরা ইসমাইলি। তার স্বামী আলিরেজা জামানি পেশায় একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা ছিলেন। আলিরেজা তার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে নির্যাতন করতেন। আর এই নির্যাতনের হাত থেকে মেয়েদের বাঁচাতেই জাহরা স্বামীকে খুন করতে বাধ্য হন বলে তার আইনজীবীর দাবি। পরে স্বামীকে হত্যার দায়ে জাহরার মৃতু্যদন্ডের সাজা হয়।

এদিকে, যে জেলে জাহরাকে ফাঁসি দেওয়ার কথা ছিল, সেই রাজাই শাহর জেল বন্দিদের ওপর অত্যাচারের জন্য কুখ্যাত।

জাহরার আইনজীবী ওমিদ মোরাদির অভিযোগ, ফাঁসির আগে আরও ১৬ জন সাজাপ্রাপ্তের পেছনে লাইনে দাঁড় করানো হয়েছিল দুই সন্তানের মা জাহরাকে। চোখের সামনে একের পর একজনকে ফাঁসিতে ঝুলতে দেখে সেই মানসিক ধাক্কা সামলাতে পারেননি তিনি। লাইনে দাঁড়িয়েই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতু্য হয় তার। কিন্তু তারপরেও তাকে ছাড় দেওয়া হয়নি।

মৃতু্যর পরেও জাহরার দেহটি ফাঁসির মঞ্চে নিয়ে গিয়ে দড়িতে বেঁধে ঝোলানো হয়। যাতে ফাঁসিতে ঝোলানোর পর তার শাশুড়ি লাথি মেরে জাহরার পায়ের নিচ থেকে চেয়ারটি সরিয়ে দিতে পারেন। সংবাদসূত্র : রয়টার্স

ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে

৪১ জনের প্রাণহানি

ম যাযাদি ডেস্ক

বিপজ্জনক পথে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে নৌকা ডুবে কমপক্ষে ৪১ জনের মৃতু্য হয়েছে। শনিবার ওই নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। যুদ্ধ-বিধ্বস্ত সিরিয়া থেকে ইউরোপে উন্নত জীবনের আশায় সাগর পাড়ি দিতে গিয়ে এসব শরণার্থী প্রাণ হারিয়েছেন।

জাতিসংঘের শরণার্থী ও অভিবাসন বিষয়ক সংস্থা আইওএম এবং ইউএনএইচসিআর বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে জানিয়েছে, গত ১৮ ফেব্রম্নয়ারি অন্তত ১২০ অভিবাসীকে নিয়ে যাত্রা করেছিল নৌকাটি। পরবর্তী সময়ে দুর্ঘটনায় ৪১ জনের মৃতু্য হয়েছে।

নৌকাটি ডুবতে শুরু করার প্রায় ১৫ ঘণ্টা পর একটি বাণিজ্যিক জাহাজ সহায়তার জন্য এগিয়ে আসে। এর মধ্যেই আটজনের মৃতু্য হয়।

দুর্ঘটনায় জীবিত শরণার্থীদের উদ্ধার করে ইতালির সিসিলিয়ান বন্দর শহর পোর্তো এম্পেদোকলেতে নিয়ে যায় ওই জাহাজটি। এখনো তিন শিশু ও চার নারী নিখোঁজ রয়েছে। সংবাদসূত্র : বিবিসি

কোরিয়ায় জন্মহার

কমে সর্বনিম্ন

ম যাযাদি ডেস্ক

দক্ষিণ কোরিয়ায় ২০২০ সালে তার আগের বছরের তুলনায় জন্মহার আরও কমেছে। জন্মহার এখন এতটাই তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে যে, বিশ্বের মধ্যে তা সর্বনিম্ন। বুধবার দেশটির পরিসংখ্যান বু্যরো থেকে প্রকাশিত তথ্যে এমনটাই দেখা যাচ্ছে।

'স্ট্যাটিস্টিকস কোরিয়া'র দেওয়া তথ্যমতে, করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২০২০ সালজুড়ে দেশটিতে বিয়ের প্রবণতা কমেছে। একই কারণে দম্পতিরাও সন্তান নিতে অনুৎসাহিত হয়েছেন।'স্ট্যাটিস্টিকস কোরিয়া'র দেওয়া বার্ষিক পরিসংখ্যান দেখা যাচ্ছে, ২০২০ সালে দক্ষিণ কোরিয়ায় নারীপ্রতি প্রত্যাশিত শিশুর জন্মহার কমে দাঁড়িয়েছে ০.৮৪ শতাংশ। অথচ এক বছর আগেও দেশটির নারীপ্রতি প্রত্যাশিত শিশু জন্মহার ছিল ০.৯২ শতাংশ। সংবাদসূত্র : রয়টার্স

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে