পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা

৪৩ মন্ত্রী নিয়ে মমতা সরকারের পথচলা শুরু

বিরোধী নেতা হলেন শুভেন্দু
৪৩ মন্ত্রী নিয়ে মমতা সরকারের পথচলা শুরু
রাজভবনে মন্ত্রিসভার শপথ, ইনসেটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা

৪৩ মন্ত্রী নিয়ে পথ চলা শুরু করলেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নবনির্বাচিত সরকারের মন্ত্রিসভা রাজভবনে শপথগ্রহণ করে। শপথবাক্য পাঠ করান পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এবারও স্বরাষ্ট্র, তথ্য ও সংস্কৃতি, স্বাস্থ্যসহ মোট ছয়টি দপ্তর নিজের হাতে রেখেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা। সংবাদসূত্র : পিটিআই, এবিপি, ডিডবিস্নউ নিউজ

ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, এবার সংক্ষিপ্ততম শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান দেখল পশ্চিমবঙ্গ। মাত্র ছয় মিনিটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার ৪৩ জন মন্ত্রী শপথ নিয়েছেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে দ্রম্নত শেষ করা হয় অনুষ্ঠান। অমিত মিত্র, ব্রাত্য বসুর মন্ত্রীরা বাড়ি থেকে 'ভার্চুয়ালি' শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। বাকি ৪০ জন রাজভবনেই শপথ নেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এবারের মন্ত্রিসভায় মুখ্যমন্ত্রীসহ নারী মন্ত্রীর সংখ্যা ৯ জন। নতুন মন্ত্রী ১৬ জন। আর সংখ্যালঘু মন্ত্রীর সংখ্যা ছয়জন। বাদ পড়েছেন আগের আট মন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগেই শপথ নিয়েছিলেন। সোমবার কলকাতার রাজভবনে তার মন্ত্রিসভার ৪৩ মন্ত্রী শপথবাক্য পাঠ করেন। সাধারণত একজন একজন করে মন্ত্রী রাজ্যপালের সামনে যান এবং শপথবাক্য পাঠ করেন। দেশটির গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বিশিষ্ট মানুষদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়। জনগণও শপথ দেখতে পারে। কিন্তু করোনার কারণে এবার এর কোনো কিছুই হয়নি। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা এবং রাজ্যপাল জগদীপ অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছেন। এর আগেই সেখানে পৌঁছে গিয়েছিলেন মন্ত্রীরা। এদিন তিন দফায় শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল। প্রথমে পূর্ণ মন্ত্রী, এরপর স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী এবং সব শেষে প্রতিমন্ত্রীরা শপথবাক্য পাঠ করেন একসঙ্গে। এবার আলাদা করে শপথবাক্য পাঠ করানো হয়নি।

করোনায় আক্রান্ত রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু, পূর্বতন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রও অসুস্থ। ফলে তারা ভার্চুয়ালি বাড়ি থেকে শপথবাক্য পাঠ করেন। শারীরিক কারণে নির্বাচনে লড়েননি অমিত মিত্র। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে ফের মন্ত্রিত্ব দিয়েছেন।

শপথের শেষেই রাজ্য সচিবালয় 'নবান্ন' পৌঁছেন মমতা। তিনি বলেন, রাজ্যে এখনই সার্বিক লকডাউন ঘোষণা করা হবে না। তবে আংশিক লকডাউনের যে নিয়মগুলো জারি করা হয়েছে, সেটা বহাল থাকবে। জনগণকে লকডাউনের মতোই আচরণ করতে হবে। অকারণে বাড়ি থেকে বের হওয়া যাবে না। আগেই লোকাল ট্রেন বন্ধ করে দিয়েছিলেন মমতা। মেট্রো পরিষেবাও অর্ধেক হয়ে গেছে। দোকানপাট সরকারের বেঁধে দেওয়া সময় খোলা হচ্ছে।

পুরস্কার পেলেন শুভেন্দু, হলেন বিরোধী নেতা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে এবার একা মমতার কাছেই ধরাশায়ী হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। তবে দলটির প্রাপ্তি বলতে এতটুকুই, নির্বাচনে কঠোর লড়াইয়ের মাধ্যমে খোদ মমতাকে হারিয়েছেন তারই এক সময়কার শিষ্য শুভেন্দু অধিকারী। আর এর পুরস্কার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বিধানসভার বিরোধীদলীয় নেতা।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে