আফগানিস্তান

প্রথম বিস্ফোরণের মুখে তালেবান

কাবুল-জালালাবাদে শক্তিশালী বিস্ফোরণে নিহত তিন জাতিসংঘ মহাসচিবকে চিঠি দিয়েছে তালেবান ম স্কুল খুলেছে, মেয়েরা বাদ
প্রথম বিস্ফোরণের মুখে তালেবান
জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস

আফগানিস্তানে ক্ষমতায় আসার পর প্রথম বোমা বিস্ফোরণের ঘটনার মুখোমুখি হয়েছে তালেবান। দেশটির রাজধানী কাবুলে শনিবার দুটি শক্তিশালী বিস্ফোরণ ঘটেছে। বিস্ফোরণে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। একইদিন আফগানিস্তানের জালালাবাদ শহরেও তিনটি বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে একটি বিস্ফোরণ ঘটে তালেবান কর্মকর্তাদের বহনকারী গাড়িতে। বিস্ফোরণে কমপক্ষে তিন জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ২০ জন। সংবাদসূত্র : এএফপি, রয়টার্স

এসব হামলার দায় স্বীকার করেনি কেউ। তালেবান ক্ষমতা দখলের পর প্রথমবার তাদের ওপর হামলা হলো। জড়িতদের আটক করতে অভিযানে নেমেছে তালেবান প্রশাসনের নিরাপত্তা বাহিনী।

এদিকে, কাবুলে বিস্ফোরণ নিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক তালেবান কর্মকর্তা জানিয়েছেন, 'এখন পর্যন্ত আমরা দুই জন নিহত এবং ২০ জন আহত হওয়ার খবর পেয়েছি। টহলরত একটি গাড়ি লক্ষ্য করে এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। আহতদের মধ্যে নারী ও শিশু রয়েছে। বিস্ফোরণের কারণ উদ্ঘাটন এবং ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে জানতে এরই মধ্যে তদন্ত শুরু হয়েছে।' স্থানীয় কয়েকটি গণমাধ্যম জানিয়েছে, হামলায় নিহত হয়েছেন দুই জন এবং আহত ১৯ জন।

উলেস্নখ্য, আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে জালালাবাদের দূরত্ব মাত্র ৮০ কিলোমিটার। শহরটিকে আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) স্বর্গরাজ্য বলা হয়ে থাকে। গত আগস্টের শেষে কাবুল বিমানবন্দরে ভয়াবহ হামলায় ১৩ মার্কিন সেনাসহ ১৭০ জন হত্যার দায় স্বীকার করেছিল আইএস।

গত ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাষ্ট্র ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন করে তালেবান। তারা কাবুলে ঢোকার পর তৎকালীন ঘানি সরকারের পতন হয়। রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসীন হওয়ার পর তালেবান দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠা ও নিরাপত্তা রক্ষার প্রতিশ্রম্নতি দিয়েছিল। তবে ক্ষমতায় আসার এক মাস না যেতেই হামলার মুখে পড়েছে আফগানিস্তান।

জাতিসংঘ মহাসচিবকে চিঠি দিয়েছে তালেবান

আফগানিস্তানের রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসীন তালেবানের কাছ থেকে একটি চিঠি পাওয়ার কথা জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। চিঠিতে আফগানিস্তানে দায়িত্বরত জাতিসংঘের কর্মীদের সুরক্ষার প্রতিশ্রম্নতি দিয়েছে তালেবান। এ ছাড়াও আফগানিস্তানের নারীদের অধিকার-সংক্রান্ত বিষয়গুলো সুরাহার কথাও বলা হয়েছে ওই চিঠিতে। গুতেরেস বলেছেন, 'তাদের (তালেবান) সঙ্গে মানবিক ত্রাণ সহায়তা নিয়ে কথা হয়েছে। কোনো বৈষম্য ছাড়া গোটা আফগানিস্তানে জাতিসংঘের মানবিক ত্রাণ সহায়তা বাড়ানো, দেশটিতে জাতিসংঘের কর্মীদের সুরক্ষা এবং নারীদের অধিকার নিয়ে আমাদের উদ্বেগ, বিশেষ করে আমাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মেয়েদের বিষয়েও আলোচনা হয়েছে।'

আফগানিস্তানে স্কুল খুলেছে, মেয়েরা বাদ

জাতিসংঘ মহাসচিবকে চিঠি দিলেও আফগানিস্তানে সম্ভবত মেয়েদের শিক্ষা নিষিদ্ধ হচ্ছে। কারণ, দেশটিতে শনিবার মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুল খুলছে। এদিন ছেলে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরতে পারলেও মাধ্যমিক স্তরের মেয়ে শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে তালেবান সরকার। শুক্রবার তালেবান সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় ঘোষণা জানিয়েছে, সপ্তম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষা কার্যক্রম চালু হচ্ছে। পুরুষ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা তাদের নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। তবে নারী শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা ফিরতে পারবেন কিনা, এ বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে