এবার কলকাতার সিনেমা প্রযোজনায় জয়া আহসান

এবার কলকাতার সিনেমা প্রযোজনায় জয়া আহসান

প্রথমবার সিনেমা প্রযোজনা করেই আলোড়ন তুলে দেন দুই বাংলার আলোচিত অভিনেত্রী জয়া আহসান। কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের 'দেবী' উপন্যাস অবলম্বনে ২০১৮ সালে 'দেবী' সিনেমা বানিয়েছিলেন জয়া। সিনেমাটি মুক্তি পায় ওই বছর শারদীয় দুর্গা পূজার সময়। মুক্তির আগেই ব্যতিক্রমধর্মী নানা প্রচারণায় আলোচনায় চলে আসে সিনেমাটি। মুক্তির পর আলোচনার পাশাপাশি অভাবনীয় ব্যবসা করে 'দেবী'। শুধু দেশেই নয়, বিদেশেও সিনেমাটি আশানুরূপ সাফল্য এনে দেয়। পাশাপাশি সুধী মহলেও প্রশংসিত হয় সিনেমাটি। এতে অনবদ্য অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে জয়া আহসান ছিনিয়ে নিয়েছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও। এ সিনেমার সাফল্যের কারণেই 'দেবী' মুক্তির পরপরই দ্বিতীয় সিনেমা মুক্তির ঘোষণা দেন জয়া আহসান। সিনেমার নাম দেন 'ফুড়ুৎ'। নিজের প্রযোজনা সংস্থা 'সি ফর সিনেমা' থেকেই 'ফুড়ুৎ' নির্মাণ হবে ঘোষণা দিয়ে জয়া বলেছিলেন, এবার আর উপন্যাস নয়, মৌলিক গল্পের পথে হাঁটছেন তিনি। এরই মধ্যে সিনেমার প্রি-প্রোডাকশনের কাজ শুরু হয়েছে। অভিনয়শিল্পী, গল্প, পরিচালক, কলাকুশলীসহ অনেক কিছু নির্ধারণ হয়ে গেছে। এমনকি সে সিনেমায় নিজে অভিনয় করবেন না বলেও জানান তিনি। তবে কবে নাগাদ শুটিং শুরু হবে, সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু না বললেও সিনেমার গল্প ও বিষয়বস্তুর বিষয়ে জয়া বলেছিলেন, গল্পের কথা মাথায় রেখে কয়েকজন অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে কথা বলেছি। কথাবার্তা চালিয়ে যেতে হচ্ছে। কাউকে চূড়ান্ত করিনি বলে এখনই কিছু বলতে চাচ্ছি না। এই সিনেমাটি কমেডি, ড্রামা, নস্টালজিয়া, ড্রিমস কাম ট্রু- এক কথায় এটি একটি আধুনিক রূপকথার গল্প। কিন্তু মানুষগুলো আসল। সিনেমার গল্প অনুসারে এর শুটিং করতে হবে গ্রীষ্ম মৌসুমে। সিনেমার চিত্রনাট্য অনুযায়ী এর আউটডোর শুটিং বেশি। তাই আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে শুটিং পরিকল্পনা করা হচ্ছে। ইচ্ছে আছে গ্রীষ্মের সময় ছবিটির শুটিং শুরু করার। এ কারণে গ্রীষ্মকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

কিন্তু এরপর দুই গ্রীষ্ম কেটে গেলেও জয়ার দ্বিতীয় সিনেমা 'ফুড়ুৎ' নির্মাণের কোনো প্রস্তুতির খবর মেলেনি। বরং প্রযোজনার চেয়ে অভিনয়ের দিকে বেশ ঝুঁকতে দেখা গেছে তাকে। 'ফুড়ুৎ' সিনেমার কাজ শুরু করার আগেই এবার জানা গেল, এবার তিনি ঘোষণা দিলেন কলকাতার সিনেমা প্রযোজনা করতে যাচ্ছেন। ভারতীয় এক গণমাধ্যম জানিয়েছে, টালিগঞ্জ তথা টলিউডের প্রযোজক হিসেবে আবির্ভাব হচ্ছে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসানের। কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, সৃজিত মুখোপাধ্যায়, অতনু ঘোষ, অরিন্দম শীল, নন্দিতা রায়-শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মতো টালিগঞ্জের প্রথম সারির প্রায় সব পরিচালকের ছবিতেই কাজ করে ফেলেছেন এই অভিনেত্রী। সেই আস্থা ও অভিজ্ঞতার উপর ভর করেই কলকাতার সিনেমা প্রযোজনা করার সাহস পেয়েছেন বলে জানালেন জয়া। এই সিনেমার মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করবেন জয়া আহসান স্বয়ং। তার প্রযোজনা সংস্থা 'সি ফর সিনেমা'র ব্যানারেই তৈরি হচ্ছে সিনেমাটি। টলিউডের এই নতুন ছবিটির নাম যদিও এখনও ঠিক হয়নি। তবে সিনেমাটি পরিচালনা করবেন সৌকর্য ঘোষাল- এটা নিশ্চিত করেছেন জয়া। কোয়েল মলিস্নককে নিয়ে এই পরিচালকের শেষ সিনেমা 'রক্ত রহস্য' দর্শক-সমালোচকদের পছন্দ হয়েছিল। সৌকর্যের পরিচালনায় 'ভূতপরী' সিনেমাতেও মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া। সেই সিনেমার শুটিং আপাতত শেষ। বর্তমানে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। এর মধ্যেই দু'জনে এই নতুন ছবির পরিকল্পনা করে ফেলেছেন বলে জানা গেছে। জয়ার কাছ থেকে জানা গেল, নতুন এই ছবিতে জয়া ছাড়াও বাংলাদেশের আর এক জনপ্রিয় অভিনেতার কাজ করার কথা রয়েছে। সিনেমায় টলিউড থেকে অভিনয় করবেন কৌশিক সেন, অনসূয়া মজুমদার প্রমুখ। সৌকর্যের সিনেমাতে সব সময় একটা টু্যইস্ট থাকে। এই ছবিতেও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না বলে আশা করছেন তিনি। এখানে এক ডাক্তারের চরিত্রে অভিনয় করবেন জয়া। সিনেমার গল্পে দেখা যাবে সেখানে তার ধূসর অতীত রয়েছে। এই অতীত জীবন এক রোগী জেনে ফেলায় তাকে হত্যা করে সে। এরপর তার পথের কাঁটাদেরও ধীরে ধীরে সরিয়ে ফেলতে উদ্যত হয়। এই নিয়েই টানটান সিনেমা।

এতে অভিনয়ের প্রস্তাব তার কাছে এসেছে, সেটা স্বীকার করে নিলেন কৌশিক সেন। তার কথায়, 'আমার সঙ্গে এই সিনেমায় অভিনয় করছেন জয়া। ছবির নামটা সৌকর্য এখনও চূড়ান্ত করেনি। আমাকে চিত্রনাট্য পাঠাবে। তবে আমি প্রাথমিক সম্মতি দিয়েছি।' এসব সত্ত্বেও একটা প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক, যে বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে কি এদেশের ছবিতে টাকা লগ্নি করা যায়? 'ইম্পা' (ইস্টার্ন ইন্ডিয়া মোশন পিকচার্স অ্যাসোসিয়েশন)-এর এক পদস্থ আধিকারিকের কথায়, 'এক্ষেত্রে কোনো অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। তবে, আমাদের ইন্ডাস্ট্রির সমস্ত নিয়ম মেনে তাকে সিনেমাটা তৈরি করতে হবে।' এ প্রসঙ্গে ভারতের প্রিয়া সিনেমার কর্ণধার অরিজিৎ দত্ত বললেন, 'নতুন প্রযোজক আসা তো আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য মঙ্গলজনক। এখানে অনেক লোকের কর্মসংস্থান হবে। কিন্তু ওই ছবি বাংলাদেশে রিলিজ করা যাবে কিনা, সেটা প্রযোজককেই দেখে নিতে হবে।' সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ফেব্রম্নয়ারিতেই শুরু হবে এই এ সিনেমার শুটিং।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে