শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

রিফাত হত্যা ১৪ অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামির রায় আজ

রিফাত হত্যা ১৪ অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামির রায় আজ
রিফাত শরীফ

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির রায় আজ মঙ্গলবার। আসামিদের পক্ষে-বিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ১৪ অক্টোবর বরগুনা শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান ২৭ অক্টোবর রায়ের দিন ধার্য করেছিলেন।

রায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে নিহত রিফাত শরীফের ছোট বোন ইসরাত জাহান মৌ গতকাল বলেছেন, 'মঙ্গলবার (আজ) এ মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামিদের রায় ঘোষণা হবে। আশা করি এর আগে যে রায়টি হয়েছে তার মতোই আমরা সুবিচার পাব। রায়ের মাধ্যমে হত্যায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি হবে। আমার মতো আর কোনো বোন যেন ভাই হারা না হয়।'

আসামিপক্ষের আইনজীবী গোলাম মোস্তফা বলেন, 'আমরা আদালতে যেসব তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করেছি তাতে আমার মক্কেলরা নির্দোষ প্রমাণিত হবে।'

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বরগুনার শিশু আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল বলেন, 'আমরা আদালতে যেসব তথ্য-প্রমাণ উপস্থাপন করেছি তার আলোকে এই মামলার সঙ্গে আসামিরা জড়িত বলে প্রমাণ করতে পেরেছি। আশা করি সব আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি হবে।'

এর আগে ৩০ সেপ্টেম্বর এই মামলার প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির রায় ঘোষণা করে বরগুনা জেলা দায়রা ও জজ। ১০ আসামির মধ্যে নিহত রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা

সিদ্দিকা মিন্নিসহ ৬ জনকে মৃতু্যদন্ড দেয় আদালত এবং এই মামলার প্রাপ্তবয়স্ক চার আসামির বিরুদ্ধে দোষী প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের বেকসুর খালাস প্রদান করে।

গত বছরের ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে স্ত্রী আয়শার সামনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যাকান্ডের পরের দিন রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম শরীফ বাদী হয়ে বরগুনা থানায় ১২ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ছিলেন এ মামলার প্রধান সাক্ষী। এ মামলার প্রধান আসামি সাব্বির আহম্মেদ ওরফে নয়ন বন্ড ওই বছরের ২ জুলাই পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।

চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি বরগুনার শিশু আদালতের বিচারক মো. হাফিজুর রহমান ১৪ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। ১৩ জানুয়ারি অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামিদের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়।

২০১৯ সালের ১ সেপ্টেম্বর মামলায় ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্তবয়স্ক ও অপ্রাপ্তবয়স্ক দুভাগে বিভক্ত করে আদালতে পৃথক দুটি অভিযোগপত্র (চার্জশিট) প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জনকে আসামি করা হয়।

আদালত-সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রিফাত হত্যা মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির বিরুদ্ধে ৭৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হওয়ার পর আসামির পক্ষে-বিপক্ষে আদালতে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা।

এরপর উভয়পক্ষের আইনজীবীর যুক্তিতর্ক শেষে আদালত এই মামলার অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির রায়ের দিন দিন ধার্য করে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সকল ফিচার

রঙ বেরঙ
উনিশ বিশ
জেজেডি ফ্রেন্ডস ফোরাম
নন্দিনী
আইন ও বিচার
ক্যাম্পাস
হাট্টি মা টিম টিম
তারার মেলা
সাহিত্য
সুস্বাস্থ্য
কৃষি ও সম্ভাবনা
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

Copyright JaiJaiDin ©2020

Design and developed by Orangebd


উপরে