পৌর নির্বাচন

ভোট ডাকাতি করে পৌরসভা দখল করেছে ক্ষমতাসীনরা :ফখরুল

ভোট ডাকাতি করে পৌরসভা দখল করেছে ক্ষমতাসীনরা :ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচনে ভোট ডাকাতি করে ক্ষমতাসীনরা পৌরসভা দখল করেছে। খুন পর্যন্ত হয়েছে সিরাজগঞ্জে। ইভিএমের মধ্যেই সম্পূর্ণ কারসাজি-কারচুপি করেছে। অর্থাৎ সমগ্র রাষ্ট্রযন্ত্রকেই নষ্ট করে ফেলেছে। রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করছে শুধু ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য, একদলীয় শাসন ব্যবস্থাকে পোক্ত করার জন্য।

রোববার রাজধানীর শাহজাহানপুরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বাসায় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর ঢাকা বিভাগীয় সমন্বয়

কমিটির সভায় তিনি এসব বলেন। মির্জা আব্বাসের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ফজলুল হক মিলনের পরিচালনায় সভায় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব আব্দুস সালাম, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার, আফরোজা খানম রীতা, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা কামরুজ্জামান রতন, আবুল কালাম আজাদ, আবদুস সালাম আজাদ, শহিদুল ইসলাম বাবুলসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও আমাদের কোনো স্বাধীনতা নাই। নূ্যনতম যে অধিকার, সংবিধানসম্মত সেই অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে, ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। এ দেশের মানুষকে তার কথা বলার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে, সংগঠন করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশে গভীর সংকট সৃষ্টি হয়েছে। এই সংকট শুধু রাজনৈতিক সংকট নয়, অর্থনৈতিক সংকটও সৃষ্টি হয়েছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বাংলাদেশের একটি শ্রেণিকে বিপুল বিত্তের অধিকারী করা হচ্ছে। অন্যদিকে সাধারণ মানুষ তারা দারিদ্র্যের আরও অতল গহ্বরে চলে যাচ্ছে। গণতন্ত্রকে লুণ্ঠন করা হয়েছে, মানবাধিকার লুণ্ঠন করা হয়েছে। সেই কারণে এই সুবর্ণজয়ন্তীকে আমরা অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে জনগণের সামনে নিয়ে এসে তাদের ঐক্যবদ্ধ করে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, গণতান্ত্রিক সমাজ এবং সব মানুষের সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই।

তিনি বলেন, স্বাধীন দেশ হিসেবে যে ন্যায্য অধিকারগুলো তা পাচ্ছি না। অন্যদিকে প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে এই সরকার একটা নতজানু নীতি গ্রহণ করে তাদের কাছে সমস্ত সুবিধাগুলো দিয়ে দিচ্ছে। বছরের পর বছর ধরে সীমান্তে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে। পৃথিবীর কোনো সভ্য রাষ্ট্রে সীমান্তে এই ধরনের গণহত্যা চলতে পারে না। সব মিলিয়ে বলা যেতে পারে এখন সত্যিকার অর্থেই স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশ নয়।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন কেন্দ্রীয় কমিটির আহ্বায়ক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, 'আমরা কোনো চেতনার দল না। চেতনা বই পড়ে সৃষ্টি হয়, অন্য লোকের থেকে কথা শুনে বিভিন্ন কারণে চেতনা সৃষ্টি হতে পারে। সেরকম দল আমরা নই।' সুবর্ণজয়ন্তীর উদযাপনের মাধ্যমে নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস তুলে ধরতে সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা বিভাগীয় সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, সরকারি দল একাত্তরের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেনি। শুধু জিয়াউর রহমান ও তার দলকে খাটো করার জন্য আওয়ামী লীগের প্রচার-প্রচারণা চলছে।

এদিকে রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বর্তমান সরকার দেশকে বিচারবহির্ভূত হত্যাসহ সন্ত্রাসের এক অভয়ারণ্য, এক মৃতু্য উপত্যকায় পরিণত করেছে। সরকার রক্ত ঝরিয়ে নিজেদের অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে চায় বলেই সুষ্ঠু নির্বাচন, পরমত সহিষ্ণুতা, বিবেক, সহমর্মিতা ও দয়া-মায়ার লেশমাত্র আওয়ামী লীগের বিধানে নেই। দেশে যে খুন-খারাবির মহোৎসব চলছে, তাতে রাষ্ট্র এক অমানবিক চেহারায় রূপ লাভ করেছে।

গত শনিবার সিরাজগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর পদে বিজয়ী তারিকুল ইসলামের ওপর আওয়ামী লীগের পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা এবং তাকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপি মহাসচিব।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে