কুর্মিটোলায় বিশেষ পরিচ্ছন্নতার কাজ সম্পন্ন

কুর্মিটোলায় বিশেষ পরিচ্ছন্নতার কাজ সম্পন্ন

আগামীকাল রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে দেশে করোনা টিকা দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। এ উপলক্ষে হাসপাতালটির সব প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে।

সোমবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, কুর্মিটোলা হাসপাতালের চারপাশে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ধুয়েমুছে পরিষ্কার করা হয়েছে হাসপাতালটির বহির্বিভাগের সম্মুখভাগ। অভ্যর্থনা কেন্দ্রের সামনের জায়গায় সারিবদ্ধভাবে চেয়ার সাজিয়ে রাখা হয়েছে।

\হপ্রস্তুতি কাজে নিয়োজিতদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবার

\হটিকা দেওয়া কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য এসব চেয়ার সাজানো হয়েছে। এখানে অতিথিরা বসবেন। পাশেই সাংবাদিক, ডাক্তার ও অন্যান্য সংস্থার প্রতিনিধিদের বসার স্থান প্রস্তুত করা হচ্ছে।

অনলাইনে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের সংযোগ দিতে ও সার্ভার বসানোর জন্য বিটিসিএল কর্মীরা কাজ করছেন। টিকা দেওয়ার কার্যক্রম মনিটরিং ও সহায়তা দিতে ইউনিসেফ বাংলাদেশ ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির প্রতিনিধিও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিদু্যৎ সংযোগ, কারিগরি সহায়তা ও স্থান নির্ধারণে হাসপাতালের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদেরও ব্যস্ত থাকতে দেখা গেছে।

তবে হাসপাতালের ভেতরে ঢোকার আগেই নিরাপত্তা কর্মীরা যে কোনো ধরনের ছবি তুলতে নিষেধ করে দিয়েছেন। টিকা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে নিয়েজিত এক কর্মকর্তা যায়যায়দিনকে জানিয়েছেন, সরকার নির্দেশিত পন্থায় করোনা টিকা দেওয়ার জন্য সব রকমের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় সংখ্যক ফ্রিজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

যে জায়গায় টিকা দেওয়া হবে তার ঠিক পেছনে প্রস্তুত করা হয়েছে অবজারভেশন সেন্টার। টিকা গ্রহণের পর সবাইকে ওই অবজারভেশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হবে। কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বুধবার হাসপাতালটির একজন নার্সকে টিকা দেওয়ার মাধ্যমে দেশে করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু করা হবে। এরপর আরও ৩০ থেকে ৪০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। এরপর দিন বৃহস্পতিবার হাসপাতালের ডাক্তার নার্সসহ সংশ্লিষ্ট স্টাফ ও কর্মচারীদের টিকা দেওয়া হবে। এরপর নিবন্ধন অনুযায়ী অন্যদের টিকা দেওয়া কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এরই মধ্যে টিকা দেওয়ার জন্য হাসপাতালটির ডাক্তার, নার্স ও স্টাফদের কাছে নির্ধারিত ফরম দেওয়া হয়েছে। এ ফরম পূরণ করে জমাও দিয়েছেন অনেকেই। হাসপাতালের কোনো স্টাফ টিকা দিতে অনীহা প্রকাশ করলে তাকে জোর করা হবে না বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। তবে যিনি টিকা নিতে চাইবেন না তাকে ওই ফরমে তার কারণ লিখতে হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে