খালেদা জিয়া করোনায় আক্রান্ত, অবস্থা স্থিতিশীল

'তিনি দেশবাসীর দোয়া চেয়েছেন' ফিরোজায় আরও ৯ জন আক্রান্ত
খালেদা জিয়া করোনায় আক্রান্ত, অবস্থা স্থিতিশীল

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। রোববার দলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে তথ্য জানিয়েছেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাআলমগীর।

জানা গেছে, তিনদিন আগে বেগজিয়ার গুলশানস্থ ফিরোজার বাসায় একজন সদস্য হালকা জ্বর অনুভব করায় তিন ধাপে বাসার সবার নমুনা পরীক্ষা করানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রথদফায় গত বৃহস্পতিবার তিনজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়, তাতে সবার রিপোর্টই পজিটিভ আসে। শুক্রবার আরও ৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে একই ফল পাওয়া যায়। এরপর শনিবার বিকালে খালেদা জিয়ার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আইসিডিডিআরবিতে ওই নমুনা পরীক্ষায় রোববার তার রিপোর্টও পজিটিভ আসে।

সূত্র জানায়, খালেদা জিয়ার এখন পর্যন্ত করোনার কোনো উপসর্গ নেই, তারপরও সতর্কতার অংশ হিসেবে নমুনা পরীক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হয়। একজন টেকনোলজিস্ট খালেদা জিয়ার নমুনা সংগ্রহ করেন। আইসিডিডিআরবির পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করা তার রিপোর্টও পজিটিভ আসে।

জানা গেছে, আপাতত খালেদা জিয়া বাসায় থেকেই চিকিৎসা নেবেন। দলের একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সার্বক্ষণিক তার চিকিৎসায় কাজ করছেন। ইউনাইটেডসহ একাধিক হাসপাতালেও কথা বলে রাখা হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন

হলে সেখানে নেওয়া হবে তাকে। বেগজিয়ার করোনা রিপোর্ট নিয়ে রোববার দুপুর থেকেই সংবাদমাধ্যখেবর প্রচার হতে থাকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেেবগজিয়ার নাস্বোস্থ্য অধিদপ্তরের একটি করোনা পজিটিভ রিপোর্টও ছড়িয়ে পড়ে। তাৎক্ষণিকভাবে পরিবার ও দলের দায়িত্বশীল পর্যায় থেকে সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করা না হলে কিছুটা বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। নেতাকর্মীও প্রকৃত খবর কী তা জানার জন্য উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। এমন পরিস্থিতিতে বিকালে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে আসেন মির্জা ফখরুল ইসলাআলমগীর। গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলের মুখপাত্র ফখরুল বলেন, 'দেশনেত্রী বেগখালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শনিবার আইসিডিডিআরবিতে তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। আমরা আজকে যেটা পেয়েছি সেই টেস্ট রিপোর্ট পজিটিভ। অর্থাৎ তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।'

তিনি বলেন, 'প্রফেসর ডা. এফএসিদ্দিকীর নেতৃত্বে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক যারা আছেন তাদের তত্ত্বাবধানে ইতোমধ্যে চিকিৎসা শুরু হয়েছে। খালেদা জিয়া এখন স্টেবল আছেন, ভালো আছেন।'

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল আরও বলেন, 'তার কোনো টেম্পারেচার নেই, অন্য কোনো উপসর্গও নেই। তার চিকিৎসা ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। আমরা দেশবাসীকে আশ্বস্ত করতে চাই, তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক যারা আছেন তারা দেশবরেণ্য চিকিৎসক। তিনি তাদের তত্ত্বাবধানে আছেন এবং ভালো আছেন।'

তিনি জানান, 'তার চিকিৎসকদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। অর্থাৎ যদি কোনো প্রয়োজন হয় তখন সেভাবেই ফার্দার ট্রিটমেন্টের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'দেশবাসীকে আমরা আহ্বান জানাব- দেশনেত্রী বেগখালেদা জিয়াও আহ্বান জানিয়েছেন, তার রোগমুক্তির জন্য সবাই যেন দোয়া করেন। বিশেষ করে আমাদের দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীর কাছে আহ্বান থাকবে, তারা দেশনেত্রীর রোগমুক্তির জন্য পরকরুণাময় আলস্নাহতালার কাছে দোয়া চাইবে এবং সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে তারা যেন দোয়া করেন। আমাদের অনুরোধ থাকবে, স্থানীয় মসজিদে তার জন্য দোয়া করবেন।'

খালেদা জিয়ার সঙ্গে থাকা গৃহকর্মী ফাতেমাসহ অন্যদের সম্পর্কে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, 'ওখানে যারা আছেন তাদের সম্পর্কে আবিলতে পারব না। শুধু তারটাই জেনেছি। যেটা আসিুনিশ্চিতভাবে বলেছি।'

খালেদা জিয়ার ভাগ্নে ডা. মামুন বলেছেন, টেস্ট করা হয়নি- এরকপ্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, 'তিনি হয়তো জানতেন না। বিষয়ে আবিলতে পারব না। এটা তার কাছে জানতে চান। আই ক্যান নট গিবেন অ্যানসার। আমার যেটা দায়িত্ব আপনাদের জানানোর, সেটা আজিানিয়েছি।'

প্রসঙ্গত, দেশে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর গত বছরের ২৫ মার্চ কারাগার থেকে শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পান খালেদা জিয়া। বিএনপি তার সুচিকিৎসার বিষয়ে উদ্বিগ্ন থাকলেও করোনার কারণে সে ধরনের কোনো ব্যবস্থা তারা নিতে পারেনি। প্রায় ১৪ মাস ধরে কারাগারের বাইরে থাকা খালেদা জিয়া পুরো সময়টাই গুলশানের ফিরোজায় একান্ত জীবনযাপন করছেন। দলীয় কোনো কর্মসূচিতে অংশ নেননি। এমনকি রাজনৈতিক কোনো আলাপচারিতায়ও ছিলেন না। কদাচিত দলের কাউকে কাউকে সাক্ষাৎ দিলেও করোনার কারণে তা হয়েছে সতর্কতা মেনেই। তবে বোন ও ভাইয়ের পরিবারের সদস্যরা নিয়মিতই তাকে দেখতে বাসায় যেতেন।

চিকিৎসকদের ভাষ্যমতে, দীর্ঘসময় ধরেই অস্টিও আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিসসহ নানা রোগে ভুগছেন খালেদা জিয়া। তার মেরুদন্ড, বামহাত ও ঘাড়ের দিকে মাঝেমধ্যে হয়ে যায়। দুই হাঁটু প্রতিস্থাপন করা আছে। তিনি বস্নাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণের ওষুধ খান। বামচোখেও একটু সমস্যা রয়েছে তার।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে