টোকিও অলিম্পিক ২০২০

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে দিয়ার বিদায়

হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে দিয়ার বিদায়

রোমান সানার পর টোকিও অলিম্পিক যাত্রার ইতি ঘটেছে বাংলাদেশের আরেক আরচার দিয়া সিদ্দিকীর। অলিম্পিক আরচারির নারী রিকার্ভ এককের নকআউট পর্বের শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে বেলারুশের জিওমিনস্কায়া কারিনার কাছে টাইব্রেকারে হেরেছেন বাংলাদেশের সেরা নারী আরচার দিয়া। বৃহস্পতিবার ১৭ বছর বয়সি দিয়া নেমেছিলেন প্রথম রাউন্ডের লড়াইয়ে। প্রতিপক্ষ ছিল বেলারুশের কারিনা জিওমিনস্কায়া। কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে দিয়াকে, জানাই ছিল। সেটিতে পাস করার খুব কাছাকাছি চলে গিয়েছিলেন তিনি। এলিমিনেশন রাউন্ডের প্রথম সেটে বেলারুশের কারিনা জিওমিনস্কায়ার বিপক্ষে প্রথম সেট ২৩-২২ পয়েন্টে জিতে দারুণ শুরু করেছিলেন বাংলাদেশের এই নারী তীরন্দাজ। অবশ্য পরের দুই সেটে সমান স্কোর হয়। চতুর্থ সেট হেরে দ্বিতীয় রাউন্ডে ওঠার স্বপ্ন অনিশ্চিত হলেও শেষ রাউন্ড জিতে আবার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফিরে আসেন দিয়া। নির্ধারিত প্রথম ৫ সেট শেষ হয় ৫-৫ সেট পয়েন্টে। শেষ পর্যন্ত শুট অফে হেরে বিদায় নিতে হয়েছে দিয়াকে। শুট অফে ৬-৫ সেট পয়েন্টে হেরে যান বাংলাদেশের এই আরচার। দিয়া সিদ্দিকী গত শুক্রবার মেয়েদের রিকার্ভ এককেরর্ যাংকিং রাউন্ডে নিজের সেরা স্কোর টপকে গিয়েছিলেন। মেয়েদের রিকার্ভ এককেরর্ যাংকিং রাউন্ডে ৭২০ পয়েন্টের মধ্যে ৬৩৫ স্কোর তোলেন। ৬৪ প্রতিযোগীর মধ্যে হন ৩৬তম। বিশ্ব আর্চারির স্বীকৃত প্রতিযোগিতায় তার সেরা স্কোর যেটি। আগের সেরাটি ছিল সুইজারল্যান্ডের লুসানে বসা আর্চারি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় স্টেজে করা ৬৩৪। রোমান সানা আগেই বিদায় নিয়েছিলেন। তার মতো দিয়া সিদ্দিকীও এক পয়েন্টের জন্য অলিম্পিক থেকে বিদায় নেন। রোমান শেষ সেটে শেষ তীরে এক পয়েন্টর জন্য হারেন। দিয়া সিদ্দিকীর ম্যাচটি গড়িয়েছে শুট অফ পর্যন্ত। এই সেটেই দিয়ার বিদায়ের ঘণ্টা বেজে যায়। এলিমিনেশন রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়ে খানিকটা হতাশ ছিলেন দিয়া। টোকিও থেকে জার্মান কোচ মার্টিন ফ্রেডরিক জানান, 'কিছুক্ষণের জন্য তার মন খারাপ ছিল। পরক্ষণে বুঝেছে সে তার কাজ অসাধারণভাবে সম্পন্ন করেছে। আমিও তাকে বুঝিয়েছি যে সে দুর্দান্ত লড়াই করেছে। শুধু আমি নই সবাই তার প্রশংসা করছে ফলে হতাশ হওয়ার কিছু নেই।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে