দেশে এলো অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ছয় লাখ ডোজ টিকা

দেশে এলো অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ছয় লাখ ডোজ টিকা

দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রথম দেওয়া অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরেকটি চালান এসেছে। জাপান থেকে আসা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এই চালানে ৬ লাখ ১৬ হাজার ৭৮০ ডোজ টিকা রয়েছে বলে সংশ্লিষ্টরা যায়যায়দিনকে নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার বিকাল সোয়া তিনটায় ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে এ টিকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়।

এ নিয়ে তিন দফায় জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা এলো দেশে। যার সংখ্যা দাঁড়াল ১৬ লাখ ডোজ। টিকাগুলো রাজধানীর মহাখালীর ইপিআই সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।

শাহজালাল বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ বলেন, এসব টিকা গ্রহণের সময় বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৩০ জুলাই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভ্যাকসিন ডেপস্নয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব ডা. শামসুল হক জানিয়েছিলেন, শনিবার (৩১ জুলাই) ও মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার আরও ১৩ লাখ ডোজ টিকা আসছে। এছাড়া জাপানের টোকিওতে বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছিল, সোমবার জাপানের স্থানীয় সময় রাত সোয়া ৯টায় নারিতা বিমানবন্দর থেকে তৃতীয় দফায় ৬ লাখ ১৬ হাজার ৭৮০ ডোজ টিকা নিয়ে অল নিপ্পন এয়ারওয়েজের (এএনএ) একটি কার্গো ফ্লাইট ছেড়ে আসে। এরপর হংকং হয়ে ক্যাথে প্যাসিফিক এয়ারওয়েজের কার্গো ফ্লাইটে মঙ্গলবার দেশে পৌঁছায় তৃতীয় চালানের টিকা। সে অনুযায়ী ৩১ জুলাইতে টিকা আসার পর গতকাল মঙ্গলবার এ টিকা দেশে এলো।

এর আগে গত ২৪ জুলাই কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় জাপান সরকারের উপহার দেওয়া ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা দেশে পৌঁছায়। সে সময় জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, আগামী ১ মাসের মধ্যে আরও প্রায় ২৮ লাখ টিকা জাপান থেকে বাংলাদেশে আসবে।

উলেস্নখ্য, জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১ কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা কোভ্যাক্সের আওতায় দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। জাপানের উপহার পাবে এমন দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নাম। তালিকা অনুযায়ী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২৯ লাখ টিকা পাবে বাংলাদেশ।

দেশে গত ৭ ফেব্রম্নয়ারি করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। শুরুতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড দিয়ে এ কর্মসূচি শুরু হলেও ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞার পরে টিকার সংকট শুরু হয় দেশে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এ টিকার প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩০ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের বেশি মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয় সংকট। তবে এবারে জাপান সরকারের উপহার দেওয়া এ টিকার মাধ্যমে দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় থাকাদের সংশয় কেটে যাবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এর আগে জানিয়েছেন, টিকা পেতে গত জুনে কোভ্যাক্সকে চিঠি দেয় বাংলাদেশ। সে হিসাবে আমাদের পর্যায়ক্রমে প্রায় সাত কোটি টিকা দেওয়ার কথা রয়েছে। চিঠি পেয়েছি, তারা আমাদের ২৫ লাখ টিকা দেবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে