রাস্তায় ফেলে রাখা বৃদ্ধার পাশে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি

রাস্তায় ফেলে রাখা বৃদ্ধার পাশে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি

রাস্তায় ফেলে রাখা বৃদ্ধা নারীর পাশে দাঁড়িয়েছে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটি। বুধবার জেলার হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে রিপোর্টার্স ইউনিটির নেতারা উপস্থিত হয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। এ সময় খবর পেয়ে ছুটে আসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল করিমসহ থানা পুলিশের কর্মকর্তারা। আশ্বস্ত করা হয় তার বাকি জীবনের দায়ভার বহনের।

জেলার হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের নারগুন গ্রামে মৃত কেংকর আলীর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৭০) এক ছেলেকে নিয়ে বসবাস করতেন। এর মধ্যে ছেলে আব্দুস ছালাম (২৫) ঢাকায় কাজের সন্ধানে গিয়ে মারা যান। পরে প্রতিবেশী তোফায়েল হোসেন ওই বৃদ্ধাকে ভুলিয়ে ভালিয়ে তার বাকি জীবন দেখভালের কথা বলে বসতভিটাসহ ৬ বিঘা জমি রেজিস্ট্রি করে নেন। এ বিষয়ে হরিপুর থানায় একাধিকবার গিয়েও কোনো বিচার পায়নি। পরে গত ১৫ ডিসেম্বর রাতে ওই ইউনিয়নের ঘাগড়তলা রাস্তায় পরে থাকা অসুস্থ অবস্থায় ফেলে দেয় তোফায়েলসহ কয়েকজন। পরে পথচারীরা ভোররাতে তাকে দেখতে পেয়ে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হরিপুর স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে ভর্তি করে। দীর্ঘ একমাস ধরে হাসপাতালে ভর্তি থাকলে কেউ তার খবর নেয়নি। ঘটনা জেনে রিপোর্টার ইউনিটির নেতারা ছুটে গিয়ে আর্থিক সহযোগিতা করলে খবর পেয়ে ছুটে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ পুলিশ সদস্যরা। এ সময় তার বাকি জীবন দেখভাল ও জমি উদ্ধারের প্রতিশ্রম্নতি দেন।

ফাতেমা বেগম বলেন, 'আপনারা আমার পাশে আসছেন আমি আলস্নাহর কাছে দোয়া করি আপনারাও ভালো থাকবেন। বাকি জীবনটা যেন আমার ভালো কাটে আপনারা ব্যবস্থা করে দেন।' রিপোর্টার্স ইউনিটির উপদেষ্টা মাজাহারুল ইসলাম সুজন জানান, 'আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে ফাতেমা বেগমকে আর্থিক সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছি।'

এ বিষয়ে হরিপুর ইউএনও আব্দুল করিম জানান, 'তিনি পুরোপুরি সুস্থ হলে আমরা জমি উদ্ধারের বিষয়টিসহ তার বাকি জীবন চলার বিষয়ে দায়িত্ব গ্রহণ করব।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে