মানিকগঞ্জে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার লোহাগড়ায় শ্রমিককে হত্যার অভিযোগ

শ্রীমঙ্গলে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

শ্রীমঙ্গলে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ছোট ভাইয়ের হাতে বড়ভাই নিহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া মানিকগঞ্জের ঘিওরে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। অন্যদিকে নড়াইলের লোহাগড়ায় এক শ্রমিককে হত্যার খবর পাওয়া গেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে ডেস্ক রিপোর্ট:

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) :মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ছোটভাই সঞ্জিত কয়রার (২৫) হাতে বড়ভাই রঞ্জিত কয়রা (২৮) খুন হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার বিকালে উপজেলার মির্জাপুর চা বাগানে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, রঞ্জিত কয়রার স্ত্রী মোবাইল ফোনে স্পিকার লাগিয়ে গান বাজাচ্ছিলেন। এতে বাধা দেন রঞ্জিতের ছোটভাই সঞ্জিত কয়রা। আপত্তির পরও গান বন্ধ না করায় সঞ্জিত তার বৌদির মোবাইল ফোন ভেঙে ফেলেন।

বিকালে রঞ্জিত বাড়ি ফিরলে তার কাছে অভিযোগ করেন স্ত্রী। এ কথায় দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝগড়া বেঁধে যায়। এক পর্যায়ে সঞ্জিত ঘরে থাকা দা দিয়ে কুপিয়ে বড়ভাই রঞ্জিতকে আহত করেন। গুরুতর অবস্থায় তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রঞ্জিতকে মৃত ঘোষণা করেন।

শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হুমায়ুন কবির যায়যায়দিনকে জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মানিকগঞ্জ :মানিকগঞ্জের ঘিওরে ডলি আক্তার (২১) নামে সদ্য মা হওয়া এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মাত্র ১৮ দিন আগে তিনি মা হয়েছিলেন। তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে শ্বশুর বাড়ি থেকে বলা হলেও ডলির পরিবারের দাবি তাকে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে পলাতক তার স্বামী উপজেলা যুবলীগের শিক্ষা ও পাঠাগার সম্পাদক মহির উদ্দিন (৪০)। বুধবার সকালে ঘিওরের বড়টিয়া ইউনিয়নের হিজুলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। ডলি আক্তার উপজেলার হিজুলিয়া গ্রামের হযরত আলীর মেয়ে।

ডলির বড়ভাই মো. সানি মিয়া বলেন, দুই বছর আগে তার বোনের সঙ্গে একই গ্রামের আবুল প্রধানের ছেলে মহির উদ্দিনের বিয়ে হয়। কিন্তু মহির মাদকাসক্ত হওয়ায় প্রায়ই তার বোনকে নির্যাতন করতেন। এর প্রতিবাদ করায় তার সঙ্গেও হাতাহাতি হয়েছে।

ঘিওর থানার ওসি রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ বিপস্নব জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সকালে নিহতের স্বামী ঘিওর বাজারে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হলেও তিনি আর ফিরেননি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়া গেলেই মৃতু্যর সঠিক কারণ জানা যাবে।

লোহাগড়া (নড়াইল) : নড়াইলের লোহাগড়ায় বালুবাহী ভলগেট শ্রমিক আজমল ফারাজিকে (৩৫) হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজমল কালিয়া উপজেলার পাঁচগ্রাম ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া গ্রামের মোজাফফর ফারাজির ছেলে। এ ঘটনায় নিহতের ছোটভাই আজাই ফারাজি বাদী হয়ে লোহাগড়া থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা জানায়, আজমল লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের সাহাবাজপুর এলাকায় নবগঙ্গা নদীতে ভলগেটে বাবুর্চির কাজ করতেন। মঙ্গলবার রাতে আজমলের মরদেহ তার সহকর্মী সুকানি মিল্টন তাদের বাড়িতে দিয়ে যান। পরিবারের সদস্যদের মিল্টন জানান, আজমল হৃদরোগে মারা গেছেন। পরে পরিবারের সদস্যরা মরদেহের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখে বিষয়টি পুলিশকে জানালে লোহাগড়া থানা পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ মর্গে পাঠায়। বুধবার সকালে তার ময়নাতদন্ত নড়াইল সদর হাসপাতালে সম্পন্ন হয়।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। পুলিশ এজাহারভুক্ত ভলগেটের মালিক ডালিম ও সুকানি মিল্টনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে