তাঁবুবাসী এক পরিবারের কপালে জোটেনি ঘর

তাঁবুবাসী এক পরিবারের কপালে জোটেনি ঘর

মুজিববর্ষে সরকারি বরাদ্দে হাজারো মানুষ পাকা ঘর পেলেও নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে মাথা গোঁজার ঠাঁই মিলেনি এক দম্পতির। জমি না থাকায় রাস্তার পাশেই তাঁবু টাঙ্গিয়েই সন্তান-সন্ততি নিয়ে তাদের বসবাস করতে হচ্ছে।

জানা যায়, ওই ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা শামসুল হক (৪০) ও স্ত্রী শাহিদা বেগম এবং দুই সন্তান নিয়ে রাস্তার ধারেই দীর্ঘ ৭ বছর ধরেই বসবাস করে আসছে। মানুষের সাহায্যের টাকায় কেনা টিনের চালায় বসবাস করে আসছে তারা। কিন্তু সম্প্রতি এক ঝড়ে সেই টিনের চালও উড়ে যায়। পরে খোলা আকাশের নীচে বসবাস করা দেখে গত বছর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিকের সহযোগিতায় জেলা পরিষদ থেকে একটি কাপড়ের নির্মিত তাঁবু পান। তখন থেকে তাঁবুতেই তার বসবাস। রোদ-বৃষ্টির কবলে পড়লেই তাকে ঠাঁই নিতে হয় অন্যের দরজায়।

শামসুল হকের স্ত্রী শাহিদা বেগম জানান, তার স্বামী অসুস্থ। কোনো কাজ-কর্ম করতে পারে না। তিনি অন্যের বাড়িতে ঝি-এর কাজ করে কোনোরকমে দিনযাপন করছেন। আপেক্ষ করে বলেন, 'সরকার তো গবীর-দুঃখী মানুষকে বিভিন্ন রকমের কার্ড দেয়, কিন্তু আমাদের কেউই দেখে না। অনেক জায়গায় দেন-দরবারও করেছি, তবুও পাইনি।'

ঘর বরাদ্দের তালিকায় শামসুল হকের নাম আছে দাবি করে টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ময়নুল হক বলেন, 'আমাদের দুটি ক্যাটাগরি আছে। তার মতে যেহেতু তার নাম আছে, সে ঘর পাবে।'

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে