বাবা-মায়ের কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় নুরে আলম পুলিশ মোতায়েন, মামলা দায়ের

ভোলায় পুলিশ বিএনপি সংঘর্ষ
বাবা-মায়ের কবরের পাশেই চিরনিদ্রায় নুরে আলম পুলিশ মোতায়েন, মামলা দায়ের

ভোলায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ভোলা জেলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ভোলা শহরের মধ্য চরনোয়াবাদ এলাকায় আলতাজের রহমান কলেজ মাঠে জানাজা হয়। জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে তার লাশ দাফন করা হয়েছে।

এর আগে রাত সাড়ে ৮টার দিকে নুরে আলমের মরদেহ ভোলায় পৌঁছলে বিএনপির নেতাকর্মীরা শহরে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন। এ সময় নেতাকর্মীরা নুরে আলমের মরদেহ বহনকারী ফ্রিজিংগাড়িসহ কয়েক শত মোটর সাইকেল নিয়ে শহর প্রদক্ষিণ করেন। নুরে আলমের জানাজায় ভোলার প্রায় ১০ হাজার লোক অংশগ্রহণ করে।

জানাজায় কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব) হাফিজ উদ্দিন বীর বিক্রম, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ আমিনুল হক, নির্বাহী সদস্য নুরুল ইসলাম নয়ন, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীরসহ স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব) হাফিজ উদ্দিন বলেন, নুরে আলম দলীয় কোনো প্রোগ্রামে নিহত হয়নি। সাধারণ মানুষের জীবনে সুখ-শান্তি আনতে সে নিজের জীবন দিয়ে গেছে। এক দিন না এক দিন এ হত্যার বিচার হবে।

এদিকে ভোলায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষের ঘটনায় এখনো থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। তবে, জনজীবন স্বাভাবিক রয়েছে। শুক্রবার শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এদিকে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত ছাত্রদল নেতার রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়ার আয়োজন করেছে জেলা বিএনপি। জুমার নামাজ শেষে জেলার সব মসজিদে এই দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে স্বেচ্ছাসেবক দল সদস্য নিহতের ঘটনায় ভোলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত)-সহ ৩৬ পুলিশকে আসামি করে মামলা করেছেন নিহতের স্ত্রী খাদিজা বেগম। এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপারেশন) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, মামলার আদেশ এখনো পুলিশের কাছে এসে পৌঁছায়নি, আদেশ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে