খানসামায় কেজিতে ৮০ টাকা বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির মাংসের দাম

খানসামায় কেজিতে ৮০ টাকা বেড়েছে ব্রয়লার মুরগির মাংসের দাম

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার বেশিরভাগ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করে। তাই বয়লার মুরগি কেটে কেজিতে বিক্রি করার প্রবণতা অনেক বেশি। গরু-ছাগলের মাংসের দাম আকাশচুম্বী হওয়ায় এ উপজেলার অধিকাংশ মানুষের কাছে আত্মীয়-স্বজনদের আপ্যায়ন ও মধ্যবিত্ত পরিবারে বয়লার মুরগির চাহিদা অনেক বেশি। সেই বয়লার মুরগির মাংস এক লাফে প্রতি কেজি ২০০ টাকা থেকে বেড়ে ২৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। পাশাপাশি বাজারগুলোতে গোটা বয়লার মুরগির দাম কেজিতে ৫০ টাকা বেড়েছে। গত তিন দিন আগেও প্রতি কেজি বয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছিল ১৪০ থেকে ১৫০ টাকায়। আর কাটা বয়লার মুরগির মাংস ২০০ টাকা। তা বেড়ে বর্তমানে প্রতি কেজি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি আর কাটা মাংস ২৮০ টাকা।

বুধবার সরেজমিনে উপজেলার খানসামা ও পাকেরহাট বাজারের মুরগি মার্কেটে গিয়ে দেখা যায়, বেশিরভাগ দোকানদার ব্রয়লার মুরগি জবাইয়ের পর পরিষ্কার করে সাজিয়ে রেখেছেন। তবে ক্রেতার দেখা মিলছে না। আর যারা কিনতে আসছেন তারাও দাম শুনে চলে যাচ্ছেন কিংবা চাহিদার তুলনায় কম করে মাংস নিচ্ছেন।

খানসামা বাজারের মুরগি ব্যবসায়ী রুবেল ইসলাম জানান, কিছুদিন আগেও মুরগির দাম কম ছিল। তবে যে পরিমাণ চাহিদা রয়েছে, সে হারে ফার্ম থেকে সরবরাহ পাওয়া যাচ্ছে না। এ কারণেই হয়তো ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। পাকেরহাটের মুরগি ব্যবসায়ী মশিউর রহমান জানান, ঈদের পর কোরবানির মাংস বাড়িতে থাকায় বাজারে ব্রয়লার মুরগির চাহিদা কম থাকে। তার ওপর আবার গরমের সময় মুরগি মারা যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই ক্ষতির আশঙ্কায় অনেক মুরগির ফার্ম বন্ধ ছিল। ফলে সরবরাহ ঘাটতি কমে যাওয়ায় দাম বেড়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির বলেন, বাজারে মুরগির খাদ্যের দাম বৃদ্ধি ও সরবরাহ কম হওয়ায় দাম বাড়ছে। তবে বয়লার মুরগির খাদ্যের দাম সহনীয় হলেই দাম আবারও কমবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2022

Design and developed by Orangebd


উপরে