পিআইও অফিসে ফের কর্মবিরতি

প্রকাশ | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০:০০

ম স্বদেশ ডেস্ক
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরেরর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ন্যায্য দাবি আদায়ের লক্ষ্যে কেন্দীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিভিন্ন স্থানে ফের পিআইও অফিসে চলছে পূর্ণদিবস কর্ম বিরতি। এর আগে জনবল কাঠামো ও নিয়োগবিধি বাস্তবায়নসহ ৫ দফা দাবিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে ১২ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেন তারা। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- কালীগঞ্জ (গাজীপুর) প্রতিনিধি জানান, গাজীপুরের কালীগঞ্জে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এ কর্ম বিরতি শুরু হয়েছে। এতে পিআইও অফিসে সেবাপ্রত্যাশী মানুষেরা সেবা নিতে না পেরে দুর্ভোগে পড়েছেন। সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল ৯টার দিকে উপজেলা বাস্তবায়ন কর্মকর্তার অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কাজ বন্ধ রেখে কর্মবিরতি পালন করছেন। এ সময় উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পিআইও অফিসে সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষ ফিরে যান। তবে কয়েকদিন পর পর এমন দুর্ভোগ লাঘবে এ সমস্যার দ্রম্নত স্থায়ী সমাধান চান সাধারণ মানুষ। কালীগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম শোভন বলেন, 'কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা আমাদের কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছি।' তবে আমাদের দাবি ন্যায্য। দাবি মেনে না নিলে আরও কঠোর কর্মসূচিতে যাবেন বলেও জানান তিনি। নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, কেন্দীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নওগাঁর নিয়ামতপুরে জনবল কাঠামো ও নিয়োগবিধি বাস্তবায়নসহ পাঁচ দফা দাবিতে আবারও পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। স্থানীয় পিআইও অফিস থেকে জানা গেছে, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইনের আলোকে প্রস্তাবিত জনবল কাঠামো ও নিয়োগবিধি বাস্তবায়নের দাবিতে এ কর্মবিরতি পালিত হচ্ছে। এদিকে পিআইও অফিসে কর্মবিরতি পালন করায় সেবা নিতে এসে হতাশা প্রকাশ করে ভাবিচা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ওবায়দুল হক প্রতিবেদককে বলেন, 'আমরা প্রান্তিক জনগণের সেবক। পিআইও অফিস হলো জনগণের দ্রম্নত সেবাপ্রদানকারী উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর। এ অফিস বন্ধ থাকলে আমরা অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হব।' প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) তরিকুল ইসলাম বলেন, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি চলছে। ডামুড্যা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি জানান, শরীয়তপুরের ডামুড্যায় প্রকল্প বস্তবায়ন অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা বৃহস্পতিবার সারাদিন কর্মবিরতি পালন করেন। ডামুড্যা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, সারা দেশের ন্যায় ডামুড্যায়ও সারাদিন কর্মসূচি পালন করা হয়। আমাদের দাবি নিয়ে কর্তৃপক্ষ মৌখিকভাবে একমত প্রকাশ করলেও বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ না নেওয়ায় ক্ষোভ ও ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। জাজিরা (শরীয়তপুর) প্রতিনিধি জানান, শরীয়তপুরের জাজিরায় বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত পূর্ণ দিবস কর্মবিরতি পালন করা হয়েছে। জাজিরা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, আমাদের ন্যায্য দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। আনোয়ারা (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রামের আনোয়ারা পিআইও অফিসে পূর্ণদিবস কর্ম বিরতি পালন করা হয়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জামিরুল ইসলামের নেতৃত্বে অন্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা কর্মবিরতিতে অংশ নেন। কর্ম বিরতি চলাকালে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে সেবা নিতে আসা সাধারণ মানুষ সেবা না পেয়ে ফিরে গেছেন। তবে সেবা নিতে সমস্যা হলেও পিআইও'দের যৌক্তিক দাবিগুলো অবগত হওয়ার পর সেবাপ্রার্থীরাও এসব দাবির সঙ্গে সহমত পোষণ করেন।