বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৯ মাঘ ১৪২৯
walton1

ধুনটে নিম্নমানের ইটের খোয়া দিয়ে পাকা রাস্তা নির্মাণ!

ঝিনাইদহে ব্যক্তি উদ্যোগে ৩ কিলোমিটার সড়ক সংস্কার
স্বদেশ ডেস্ক
  ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০
বগুড়ার ধুনটে রাস্তা সংস্কারে এভাবেই নিম্নমানের ইটের খোয়া ব্যবহার করা হচ্ছে -যাযাদি
বগুড়ার ধুনটে নিম্নমানের ইটের খোঁয়া দিয়ে একটি পাকা রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। পায়ের সামান্য আঘাতেই তা গুঁড়ো হয়ে যাচ্ছে। এদিকে ঝিনাইদহে ব্যক্তি উদ্যোগে তিন কিলোমিটার রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। এর ফলে সেখানে জনদুর্ভোগ লাঘব হয়ে জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি জানান, বগুড়ার ধুনটে নিম্নমানের ইটের খোঁয়া দিয়ে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে। এতে রাস্তাটির স্থায়িত্ব নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রতিবাদ করার পরেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না এলাকাবাসী। জানা গেছে, ধুনট সদর ইউনিয়নের চালাপাড়া গ্রামের চালাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বেলকুচি গ্রাম পর্যন্ত ৫০০ মিটার পাকা রাস্তা নির্মাণের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়নে বগুড়ার মনির হোসেন নামে এক ব্যক্তির খাদিজা ট্রেডার্স ঠিকাদরি প্রতিষ্ঠান রাস্তাটি নির্মাণ করছে। রাস্তাটি নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৪ লাখ টাকা। সরেজমিন গিয়ে উপজেলা প্রকৌশল অধিদপ্তরের কোন কর্মকর্তাকে সেখানে না পাওয়া গেলেও নির্মাণ শ্রমিকরা তাদের ইচ্ছামতোই কাজ করছিলেন। রাস্তাটির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত নিম্নমানের ৩নং ইটের খোঁয়া ও ইটের গুঁড়া বিছানো হয়েছে। চালাপাড়া গ্রামের মজনু মেম্বার ও কৃষক চাঁন মিয়া বলেন, 'রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য একদম নিম্নমানের ইটের খোঁয়া ব্যবহার করা হয়েছে। এসব খোঁয়া এতটাই নিম্নমানের যে, পা দিয়েই তা গুঁড়া করা যায়। এ বিষয়ে প্রতিবাদ করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছি না। এভাবে রাস্তা নির্মাণ করা হলে কিছুদিন পরই তা ভেঙ্গে যাবে।' এ বিষয়ে ঠিকাদার মনির হোসেন বলেন, 'স্থানীয় বাবলু নামে এক মিস্ত্রী ইটের খোঁয়াগুলো সরবরাহ করেছে। তাই হয়তো দুই-এক গাড়ি খারাপ খোঁয়া এসেছে। তবে ব্যস্ততার কারণে রাস্তাটির নির্মাণ কাজের খোঁজ নিতে পারিনি। সরেজমিন গিয়ে খোঁজ নেব।' উপজেলা প্রকৌশল কর্মকর্তা মনিরুল সাজ রিজন বলেন, কেউ নিম্নমানের কাজ করলে অবশ্যই সেই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানান, ঝিনাইদহে এক ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যক্তি উদ্যোগে সংস্কার করা হয়েছে ৩ কিলোমিটার সড়ক। সড়কের খানাখন্দ ভরাট করে চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। এতে দুর্ভোগ থেকে স্বস্তি পেয়েছে ওই সড়কে চলাচলকারী হাজারো মানুষ। ঝিনাইদহ সদর উপজেলার কালীচরণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম নিজের ব্যক্তিগত অর্থায়নে ওই সড়কটি সংস্কার করেন। জানা যায়, ঝিনাইদহের হামদহ-টিকারী সড়কে হামদহ বিশ্ববোড় থেকে বয়েড়াতলা বাজার পর্যন্ত সড়কের বেহাল দশা দীর্ঘদিনের। প্রতিদিন হাজারো মানুষের চলাচল এই সড়কে। সড়কের খানাখন্দে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হয় চলাচলকারীরা। মানুষের দীর্ঘদিনের এই দুর্ভোগ দেখে সদর উপজেলার কালীচরণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম সড়ক সংস্কারের উদ্যোগ নেন। গত ২ দিন ধরে সড়কের বিভিন্ন খানাখন্দে ইট-বালি দিয়ে তার উপর রোলার দিয়ে চলাচলের উপযোগী করেন। সড়কে চলাচলকারী ভ্যানচালক মজনু মিয়া বলেন, এই সড়কটুকু ভাঙ্গা হওয়ায় এতদিন অনেক কষ্ট হতো। ভ্যান প্রায়ই উল্টে যেত। চেয়ারম্যান রাস্তা ঠিক করে দিয়েছেন, এখন আর কোনো সমস্যা নেই। ভাঙ্গা গর্ত ভরাট করার কারণে ভ্যান চালানো সহজ হচ্ছে। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, 'সড়ক ভাঙ্গা হওয়ায় মানুষের অবর্ণনীয় দুর্ভোগ হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলজিইডি'র নির্বাহী প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা বলেছি। সড়ক সংস্কার হতে সময় লাগবে বলে তিনি জানিয়েছেন। পরে তার সহযোগিতায় আমি ব্যক্তিগত অর্থায়নে এটি করেছি।'
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপরে