বিভিন্ন জেলার করোনা চিত্র

জামালপুর-দিনাজপুর ও চুয়াডাঙ্গার কয়েকটি এলাকায় লকডাউন

জামালপুর-দিনাজপুর ও চুয়াডাঙ্গার কয়েকটি এলাকায় লকডাউন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দ্রম্নতগতিতে বৃদ্ধি পাওয়ায় সংক্রমণ ঠেকাতে জামালপুর পৌর এলাকা, চুয়াডাঙ্গায় দামুড়হুদা উপজেলা ও দিনাজপুরের সদর উপ?জেলায় লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এর মধ্যে জামালপুরে সোমবার থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত এবং চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ও দিনাজপুর সদরে মঙ্গলবার থেকে যথাক্রমে ১৪ দিন ও ৭ দিনের লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

আমাদের জামালপুর প্রতিনিধি জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে জামালপুর পৌর এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। সোমবার সকাল ছয়টা থেকে এই বিধিনিষেধ কার্যকর হয়েছে। ৩০ জুন পর্যন্ত এই বিধিনিষেধ চলমান থাকবে। তবে লকডাউনের প্রথম দিনে শহরের চিত্র ছিল প্রতিদিনের মতোই স্বাভাবিক।

এদিকে, শহরের বেশ কয়েকটি এলাকায় সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে দ্রম্নত। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন করে ২১ জনের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

জেলা প্রশাসক মুর্শেদা জামান রোববার রাতে লকডাউন ঘোষণা করে একটি গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন। গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিধিনিষেধের আওতায় জরুরি পরিষেবা বিদু্যৎ, গ্যাস, কৃষিপণ্য পরিবহণ, পশুখাদ্য, ওষুধ ক্রয়, চিকিৎসাসেবা, মৃতদেহ দাফন বা সৎকার ব্যতীত কেউ সন্ধ্যা সাতটা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত বাড়ির বাইরে অবস্থান করতে পারবে না। সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা থাকবে। এ ছাড়া গণপরিবহণে অর্ধেক যাত্রী ওঠাতে হবে। গণসমাবেশ হয় এমন ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক, ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান বন্ধ রাখতে হবে।

এদিকে সোমবার সকাল থেকে লকডাউন কার্যকর হওয়ার কথা থাকলেও শহরের ব্যস্ততম সড়ক ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলো ছিল প্রতিদিনের মতোই স্বাভাবিক। যানবাহন, দোকানপাট, শপিংমলসহ সব জায়গায় সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রশাসনের নির্দেশনা মেনে চলার প্রবণতা দেখা যায়নি।

সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস বলেন, জামালপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ১১৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, সংক্রমণের হার ১৭.৯৪ শতাংশ। জামালপুর পৌর শহরের সব থেকে ঘনবসতিপূর্ণ মুসলিমাবাদ, কাচারিপাড়া ও বাগেরহাটা এলাকায় সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি। জেলায় গত এক সপ্তাহে ৫৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে ১০১ জনের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। জেলায় এ পর্যন্ত ২ হাজার ৩৬৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন, সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ১৮৫ জন, মৃতু্যবরণ করেছেন ৩৬ জন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান জানান, বিধিনিষেধ কার্যকর করতে জামালপুর সদর উপজেলায় তিনটি টিম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে।

এদিকে চুয়াডাঙ্গায় ভারত সীমান্তবর্তী উপজেলা দামুড়হুদায় ১৪ দিনের লকডাউন দিয়েছে প্রশাসন। মঙ্গলবার সকাল থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক সভা শেষে এ ঘোষণা দেন জেলা প্রশাসক। এর আগে উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম লকডাউনে ছিল।

জেলায় আরও ৫৭ জনের করোনা শনাক্ত হওয়ায় ২৪ ঘণ্টার হিসেবে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড হয়েছে। এদের মধ্যে ৩৫ জনই দামুড়হুদা উপজেলার।

জানা গেছে, ২ জুন থেকে দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের সাতটি গ্রাম এবং পরে ৫ জুন থেকে কুড়ুলগাছী ও পারকৃষ্ণপুর-মদনা ইউনিয়নের আরও নয়টি গ্রামে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ওই পদক্ষেপ পুরোপুরি কার্যকর করা সম্ভব হয়নি। ফলে এসব এলাকায় করোনা শনাক্ত ও মৃতু্যর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের হিসাবে, গত ২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়ার আরটিপিসিআর ল্যাব থেকে চুয়াডাঙ্গার ১৩২ জনের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। এই ১৩২ জনের ৫৭ জন করোনা 'পজিটিভ'। শনাক্তের হার ৪৩ দশমিক ১৮ শতাংশ। গত এক সপ্তাহে জেলায় গড় শনাক্তের হারও ৪৩ শতাংশ।

স্বাস্থ্য বিভাগের সর্বশেষ হিসাবে, চুয়াডাঙ্গায় মোট ১০ হাজার ৬৬৩ জনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ২ হাজর ২৭৯ জনের। এর মধ্যে ১ হাজার ৮৮৬ জন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। অন্তত ৭১ জন করোনায় সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন। বর্তমানে ২৮৩ জন বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন। এ ছাড়া ৩৬ জনকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল ও তিনটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে; তিনজনকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ ছাড়া দিনাজপুরে করোনার সংক্রমণ রোধে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেও ক?রোনার সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকায় সদর উপ?জেলায় ৭ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা ক?রোনা প্রতি?রোধ ক?মি?টি। এই সিদ্ধান্ত মঙ্গলবার সকাল ৬টা থে?কে ২১ তা?রিখ রোববার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বহাল থাকবে।

রোববার দিনাজপুর জেলা প্রশাস?ক কার্যাল?য় হলরুমে ক?রোনা প্রতি?রোধ ক?মি?টির বৈঠ?কে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক চ?লে সন্ধ্যা সা?ড়ে ৭টা থে?কে রাত সা?ড়ে ১০টা পর্যন্ত। জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জা?কির সভাপ?তি?ত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠ?কে অনলাইনে যুক্ত হন স্থানীয় সাংসদ ও জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর র?হিম ও ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণাল?য়ের স?চিব নুরুল ইসলাম।

সভায় সিদ্ধান্ত হয়, লকডাউনের সময় জরুরি পণ্যসেবা ব্যতীত অন্য সব দোকানপাট ও যান চলাচল বন্ধ থাকবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কাঁচাবাজার ও মু?দিখানা খোলা রাখা হ?বে সকাল ৬টা থে?কে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। উপ?জেলা থে?কে যাত্রীবাহী কোনো গা?ড়ি এমন?কি ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ঢুকতে বা বের হ?তে পার?বে না। ত?বে স্বাস্থ্যসেবা ও গণমাধ্যমকর্মী, রোগী ও অন্য জরুরি সেবাদানকারীর ক্ষেত্রে এই বি?ধিনি?ষেধ প্রযোজ্য হবে না। শহ?রের গুরুত্বপূর্ণ প্রবেশমু?খে বাঁশ দি?য়ে ব্যা?রি?কেড দেওয়ার সিদ্ধান্তও জানা?নো হয়।

এদিকে জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ২০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৭০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বি?বেচনায় শনাক্তের হার ৩৮ দশ?মিক ০৪ শতাংশ। মারা গেছেন একজন। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মৃতের সংখ্যা ১৪৪।

এর আগে ৭ জুন ক?রোনা সংক্রমণ প্রতি?রো?ধে জেলা ক?রোনা ক?মি?টি এক জরুরি বৈঠকে জেলায় ৭? দি?নের ক?ঠোর বি?ধিনি?ষেধ জা?রি করা হ?য়ে?ছিল।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে