বিষমুক্ত সবজি চাষ

নওগাঁয় 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদে আগ্রহ কৃষকের

নওগাঁর সবজি ক্ষেতে 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদ ব্যবহার -যাযাদি
নওগাঁয় 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদে আগ্রহ কৃষকের

নওগাঁয় 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদ ব্যবহারে বিষমুক্ত সবজি চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের। একদিকে এই পদ্ধতি ব্যবহারে সবজি ক্ষেতে কমছে কীটনাশকের ব্যবহার। অন্যদিকে কম খরচে উৎপাদিত হচ্ছে বিষমুক্ত সবজি। নওগাঁর সবজির ক্ষেতগুলোয় বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনে বসানো হয়েছে পস্নাস্টিকের কৌটায় ফেরোমন ফাঁদ (ট্র্যাপ পদ্ধতি)। ঝোলানো এসব ফাঁদের কৌটায় কম খরচে মেশানো হয় বিভিন্ন জাতের ক্ষতিকর স্ত্রী পোকার ঘ্রাণসমৃদ্ধ ওষুধ। এতে ছুটে এসে ফাঁদে পড়ে মারা পড়ে ক্ষতিকর পুরুষ পোকা। এ পদ্ধতিতে ফসলের জন্য ক্ষতিকর পোকা দমন হওয়ায় বাড়তি খরচ করে কীটনাশক প্রয়োগ করতে হয় না কৃষকদের। চলতি বছর ফেরোমন ফাঁদের ব্যবহারে লাভবান হয়েছেন অনেক সবজি চাষি। এ ফাঁদ ব্যবহারে আশাব্যঞ্জক ফল পাওয়ায় বিষমুক্ত বেগুন, শসা, করলা, চিচিঙ্গা, বরবটি, চাল কুমড়া, মিষ্টি কুমড়াসহ বিভিন্ন ধরনের সবজি উৎপাদনে ব্যবহার হচ্ছে ফেরোমন ফাঁদ। একদিকে কীটনাশকের ব্যয় কম ও অন্যদিকে উৎপাদিত সবজি স্বাস্থ্যসম্মত, তাই ন্যায্য দাম পাওয়ায় লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। নওগাঁ সদর উপজেলার বর্ষাইল গ্রামের কৃষক রমজান আলী বলেন, 'হামার দুই বিঘা জমিত বেগুন আর মিষ্টি কুমড়া আবাদ করিছি। আগে কীটনাশক দিয়া সবজির আবাদে ৫ থ্যাকা ৬ হাজার টেকা করা খরচ হচ্ছিল। এখন ফেরোমন পদ্ধতির ফাঁদ ব্যবহার করা মেলা খরচ কুমা গেছে। এতে করা হামি ফ্রেস সবজি বাজারোত বিক্রি করবার পারিচ্ছি। সাথে দামও ভালো পাচ্ছি।' কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ী নওগাঁর উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. শামছুল ওয়াদুদ বলেন, 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদে ১০০ টাকার মতো খরচ হয়। এ ফাঁদ তৈরির জন্য ফেরোমন লিউর, পস্নাস্টিক কৌটা, তার সাবান গুঁড়া, পানি এবং বাঁশের খুঁটি লাগে। পস্নাস্টিক বৈয়ামের ত্রিকোণাকারভাবে কাটা অংশের মাঝ বরাবর তার দিয়ে ফেরোমন লিউর বা টোপটি ঝুলিয়ে দিতে হবে। ফেরোমন ফাঁদটি দুটি খুঁটির সাহায্যে শক্তভাবে বেঁধে দিতে হয়। যেহেতু ক্ষতিকর পোকা ফল ও ডগা ছিদ্র করে সেজন্য ফুল ও ডগার কাছাকাছি বক্সটিকে রাখতে হবে। বক্স বা কৌটার ভিতরে কর্তিত (২/৩ সে.মি.) অংশ পর্যন্ত গুঁড়া সাবান বা হুইল জাতীয় পাউডার মিশ্রিত পানি দিতে হবে। কৌটার অংশ উত্তর-দক্ষিণ মুখ করে ঝোলাতে হবে। এ ছাড়া ফেরোমন লিউর বা টোপটি যাতে সাবানের পানিতে না ভিজে যায় সেজন্য পানির কিছুটা উপরে রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন, বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনে ফেরোমিন ফাঁদসহ জৈব বালাইনাশক বিভিন্ন পদ্ধতি জেলার কৃষকের মধ্যে ছড়িয়ে দিচ্ছে কৃষি বিভাগ। এরই আলোকে বেশকিছু প্রকল্পের আওতায় 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদ ব্যবহারে কৃষকদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। এদিকে স্বাস্থ্যসম্মত, পরিবেশবান্ধব, উৎপাদন খরচ কম হওয়াসহ নানাবিধ সুবিধার কারণে এসব পদ্ধতি ব্যবহারে আগ্রহী হচ্ছেন কৃষকরা। জেলায় ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে সবজির চাষ হয়েছে। এর মধ্যে চলতি মৌসুমে জেলার প্রায় ১৪০ বিঘা জমিতে 'সেক্স ফেরোমন' ফাঁদ ব্যবহার করছে কৃষকরা। আগামীতে এ পদ্ধতির ব্যবহার বৃদ্ধিতে কৃষি বিভাগ থেকে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

আরও খবর

Copyright JaiJaiDin ©2021

Design and developed by Orangebd


উপরে